mamata-at-dharmatala
ধর্মতলা ২১শে জুলাইয়ের মঞ্চে বক্তব্য রাখছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি টুইটার

কলকাতা: তৃণমূল কংগ্রেসের ২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে কড়া ভাষায় বিঁধলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজনৈতিক মহলের অভিমত, শহিদ দিবসের মঞ্চ থেকে আগামী লোকসভা নির্বাচনের প্রচারের আনুষ্ঠানিক সূচনা করলেন মমতা। তিনি বিজেপির উদ্দেশে বলেন, “২০১৯-এ বিজেপি তো বটেই এনডিএর সমস্ত শরিক দল মিলে ১০০টি আসন পাবে। যারা দেশ চালাতে পারে না, তারা না কি দেশ গড়বে। আগামী দিনে বাংলাই গোটা ভারতকে পথ দেখানে”!

মমতা বলেন, “আমরা রাজ্যের উন্নয়ন নিজেদের পরিশ্রমেই এগিয়ে নিয়ে চলেছি। এর জন্য বিজেপি-কে কেয়ার করি না। কিন্তু মানুষকে কেয়ার করি। মানুষের কাছে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। আগামী লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের ৪২টি আসনেই তৃণমূল জিতবে। আজকের ২১-এর মঞ্চ থেকে সেই অঙ্গীকারই করছি। গোটা দেশে এনডিএ ভাঙতে শুরু করেছে। শিবসেনা-টিডিপি বিজেপির থেকে দূরত্ব তৈরি করে ফেলেছে বিজেপি-কে ক্ষমতা থেকে যেতেই হবে। ২০১৯-এ বিজেপি ১০০টা আসন পাবে কি না, সন্দেহ আছে। আজকের বৃষ্টিই তার ইঙ্গিত দিচ্ছে।মধ্যপ্রদেশ-গুজরাতে বিজেপি শূন্য পাবে। ফেডারেল ফ্রন্টকে সঙ্গে নিয়ে আমরা ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে এগিয়ে যাব”।

আরও পড়ুন : ২১ জুলাই উপলক্ষে কমেছে বাস-অটো, ভোগান্তি এড়াতে কী করবেন? দেখে নিন পুলিশের আপডেট

এ রাজ্যে বিজেপি ক্রমাগত পেশি আস্ফানল নিয়েও সরব হন মমতা। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপি পশ্চিমবঙ্গে ত্রিপুরার ফর্মুলা  প্রয়োগের চেষ্টা করেছে বলে তিনি দাবি করেন। তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, আগামী দিনে বিজেপির এই অর্থ আর অস্ত্রের রাজনীতি বরদাস্ত করা হবে না।

এ দিন ঝিরঝিরে বৃষ্টিকে উপেক্ষা করেই সারা রাজ্য থেকে কয়েক লক্ষ তৃণমূল কর্মী-সমর্থক কলকাতার ধর্মতলার অনুষ্ঠানে যোগ দেন। সভাস্থলে ঢুকতে না পেরে অর্ধেক মানুষ ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছেন বলে তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি। তবে অনুষ্ঠানের জন্য কলকাতার রাস্থা যানজটমুক্ত রাখার জন্য তৃণমূলের তরফে কলকাতা পুলিশকে ধন্যবাদও জানানো হয়।

উল্লেখ্য, এ দিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন সদ্য বিজেপি থেকে পদত্যাগ করা প্রাক্তন সাংসদ চন্দন মিত্র এবং প্রাক্তন সিপিএম সাংসদ মইনুল হাসান।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here