নবান্নের বৈঠকে লক্ষাধিক মানুষের কর্মসংস্থানের রূপরেখা প্রকাশ করলেন মমতা

0
mamata banerjee
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: তিন বছরের টানাপোড়েনের পর জট খুলতে চলেছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম কয়লা ব্লক থেকে কয়লা উত্তোলনে। দেউচা-পাঁচামি ব্লক থেকে কয়লা উত্তোলনের জট কাটাতে বুধবার নবান্নে বৈঠকে বসেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নবান্নের বৈঠকের শুরুতেই তিনি বলেন, “আগে পুনর্বাসন পরে প্রকল্পের কাজ”।

মমতা এ দিন বলেন, “তিন বছরের টানাপোড়েনের পর সিদ্ধান্ত প্রায় চূড়ান্ত পর্যায়ে। এখানে কাজ শুরু হলে লক্ষাধিক মানুষের কর্মসংস্থান হবে। স্থানীয়রাই কাজের ব্যাপারে অগ্রাধিকার পাবেন। ওই এলাকায় ৪০০ পরিবারের বাস। তার মধ্যে ৪০ শতাংশ আদিবাসী সম্প্রদায়ের। সাধারণ মানুষের সঙ্গে আলোচনা করেই কাজ শুরু হবে। দেউচা-পাঁচামিতে কাজ শুরু শুরু হলে বাংলায় ১০০ বছরেও কয়লার অভাব হবে না। অন্য দিকে কেন্দ্রীয় সরকারের আয় হবে, রাজ্য সরকারে আয় হবে, লক্ষাধিক মানুষের কর্মসংস্থান হবে”।

একই সঙ্গে তিনি বলেন, “কয়লার পাশাপাশি দেউচা-পাঁচামি থেকে পাথর উত্তোলন করা হবে। দেউচা-পাঁচামি বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম কয়লার ব্লক। এই প্রকল্প পূর্ণাঙ্গ আকার পেতে পাঁচ বছর সময় লাগতে পারে”।

প্রকল্পের বিস্তারিত রূপরেখার কথা ব্যক্ত করে মমতা বলেন, “এই প্রকল্পকে ঘিরে একটা কলোনি গড়ে উঠবে। সেটা স্থানীয় মানুষের সঙ্গে আলোচনা করেই হবে। এখানে বিভিন্ন যোগ্যতার মানুষ কাজ পাবেন। ইঞ্জিনিয়ার, কম্পিউটার অপারেটর থেকে সাধারণ শ্রমিকদের হাতেও কাজ আসবে। তবে বায়ুদূষণের বিষটিকে খেয়াল রেখেই কাজ করা হবে। এ ব্যাপারে দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদকে ১০০ কোটি টাকার তহবিল গড়তে বলা হয়েছে”।

আরও পড়ুন: কেন্দ্র গ্রামীণ কর্মসংস্থান প্রকল্পের টাকা দিতে দেরি করছে: মমতা

মমতা এ দিন জানান, “মুখ্যসচিবের নেতৃত্বে একটি কমিটি তৈরি করা হয়েছে। এর পর প্রকল্প তৈরির আগে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি গড়ে তোলা হবে। পাশাপাশি স্থানীয় মানুষের প্রতিনিধি, পুলিশ-প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের নিয়েও একটি কমিটি ভবিষ্যতে তৈরি করা হবে”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.