কোর কমিটির বৈঠকে একাধিক সাংগঠনিক রদবদল মমতার

ওয়েবডেস্ক: বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে দলীয় নেতা-কর্মীদের কাজে নেমে পড়ার বার্তা দিলেন তৃণমূলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ ব্যাপারে একাধিক সাংগঠনিক রদবদলের সঙ্গেই নতুন দু’টি দলীয় সংগঠনের নেতৃত্বও স্থির করে দিলেন তিনি।

লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার শপথ নিয়ে ফেলেছে নতুন মন্ত্রিসভা। তবে ভোটে ব্যবহৃত ইভিএম নিয়ে বিতর্ক রয়ে গিয়েছে এখনও। শুক্রবার দলের কোর কমিটির বৈঠকে ফের ইভিএম কারচুপির অভিযোগ তুললেন তৃণমূলনেত্রী।

এ দিন মমতা বলেন, ইভিএম প্রোগ্রামিং আগে থেকেই করা ছিল। তা না হলে ভোটের পরই কী ভাবে বিজেপি বলে দিল, তারা ৩০০ আসন পার করছে। ভোটের ফলাফলেও দেখা গেল প্রায় বর্ণে বর্ণে মিলে গেল তাদের দাবি।

তবে এ ভাবে ক্ষমতাগ্রাস করে যে তৃণমূলকে ঠেকিয়ে রাখা যাবে না, সে কথা সজোরে বলেন মমতা। দলীয় কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, চিন্তা করবেন না। আবার ঘুরে দাঁড়াব। এখন থেকেই কাজে নেমে পড়ুন। আগামী ৭ জুন থেকেই তৃণমূলের জেলা ভিত্তিক কর্মিসভা শুরু হবে। এখন থেকে ভোটার তালিকা নিয়ে কাজ শুরু করবে দল।

এ দিনের বৈঠকে একাধিক সাংগঠিনক রদবদল করেন মমতা। মালদহের দায়িত্ব দেওয়া হয় সাধন পাণ্ডে এবং গোলাম রব্বানিকে। নদিয়া জেলার পর্যবেক্ষক করা হয় রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে। একই সঙ্গে জয় হিন্দ বাহিনীর চেয়ারম্যান করা হয় ব্রাত্য বসুকে। নবগঠিত বঙ্গ জননীর প্রধান হিসাবে মনোনীত করা হয় কাকলি ঘোষদস্তিদারকে। একই সঙ্গে সংখ্যালঘু সেলের দায়িত্ব দেওয়া হয় সিদ্দিকুল্লা চৌধুরির হাতে।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন