কোচবিহার: বাংলাদেশের সঙ্গে তিস্তার জল ভাগাভাগির ব্যাপারে তিনি যে তাঁর অবস্থান থেকে নড়বেন না, তা আর এক বার বুঝিয়ে দিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি পরিষ্কার জানিয়ে দিলেন, রাজ্যের স্বার্থই তিনি আগে দেখবেন।

সোমবার কোচবিহারে প্রশাসনিক বৈঠক করার পর মুখ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, “তিস্তার বদলে তোর্সা ও মানশাই নদীর জল ভাগাভাগির প্রস্তাব আমি ইতিমধ্যেই দিয়েছি। এ নিয়ে আলোচনা চলতে পারে। তিনি বলেন, বাংলার জনগণের কথা ভুলে গেলে চলবে না। “যে সব বিষয়ে আমি কথা বলি তাতে আমি খুব পরিষ্কার।… আমরা সবাইকে ভালোবাসি। আমরা বাংলাদেশকে খুব ভালোবাসি। ফারাক্কা ব্যারেজ থেকে জল দিয়ে আমরা বাংলাদেশকে আগেও সাহায্য করেছি।”

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “বাংলার মানুষের প্রয়োজন মেটানোর পর যদি জল থাকে আমরা নিশ্চয়ই সেই জল ভাগাভাগি করব। কিন্তু এখন রাজ্যেরই মানুষ যদি যথেষ্ট জল না পায়, তা হলে কী করব?”

চলতি মাসে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সামনেই তিস্তা নিয়ে তাঁর আপত্তির কথা জানান মমতা। তিস্তার বদলে মমতা তোর্সা-সহ উত্তরবঙ্গের বাকি নদীগুলি থেকে জল দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন। বলেছিলেন, “একটা বিকল্প প্রস্তাব সবাইকে ভেবে দেখতে বলেছি। তোর্সা, মানসাই, ধানসাই, ধলরা এই ছোটো ছোটো নদী বাংলাদেশের সঙ্গে মেশে। আমরা চাই বাংলাদেশ জল পাক।”
এ দিন কোচবিহারের নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে প্রশাসনিক সভা করেন মুখ্যমন্ত্রী। জেলা প্রশাসনের কর্তারা ছাড়াও বৈঠকে হাজির ছিলেন জেলার ব্যবসায়ীদের প্রতিনিধি, ছোটোবড়ো শিল্পপতি এবং বেসরকারি নার্সিংহোমের মালিকরা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here