integration day organised by trinamul congress

ওয়েবডেস্ক: মেয়ো রোডে সংহতি দিবসের মঞ্চ থেকে বিভেদকামীদের উদ্দেশে কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২৫ বছর আগে আজকের দিনে অযোধ্যার বিতর্কিত সৌধ ধ্বংসের পরও কোনো কোনো সাম্প্রদায়িক শক্তি এখনও বিভেদের প্রতিযোগিতা চালিয়ে যাচ্ছে বলে তিনি মনে করেন। তিনি বলেন, “শুধু জাতি-বর্ণ নিয়ে সুড়সুড়ি দেওয়াই নয়, কে কী খাবে তাও ঠিক করে দেওয়া হচ্ছে। কাউকে কোনো স্বাধীন মত প্রকাশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। ভারতবৰ্ষে বহু ভাষাভাষীর বাস। কিন্তু একের সঙ্গে অন্যের মিল অনেক। সমস্ত ভারতবাসীর রক্তই এক।”

নাম না করেই তিনি মানুষের ধর্মীয় ভাবাবেগকে কাজে লাগিয়ে বিজেপির রাজনীতির সমালোচনা করতেও ছাড়েননি। তিনি বলেন, “গুজরাতে দলিতদের পেটানো হচ্ছে। আর এখানে এসে দলিতদের বাড়িতে খাচ্ছে। বাংলার মানুষ ধর্মনিরপেক্ষতার পক্ষে। আমরা রামকৃষ্ণ পরমহংসদেবের কাছে ধর্ম শিখব।”

সম্প্রতি মমতা অভিযোগ করেছিলেন, সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের স্টাইপেন্ডের টাকা কেন্দ্র আটকে দিয়েছে। এর পরই বিশেষ রাজনৈতিক মহল থেকে সমালোচনা শুরু হয়, তিনি কেন নির্দিষ্ট একটি সম্প্রদায়ের হয়ে কথা বলছেন? তাঁদের প্রশ্নের উত্তর দিতেও ভুলে যাননি মমতা। তিনি বলেন, “সংখ্যালঘুদের, আদিবাসীদের রক্ষা করাই আমার কাজ।”

বিতর্কিত সৌধ ধ্বংসের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, “এই দিনগুলো নিয়ে আমরা রাজনীতি করি না। মানুষের পাশে এসে দাঁড়াই। তৎকালীন বাম সরকারের নেতারা ভয়ে ঘরে ঢুকে পড়েছিল। আমি দিনরাত রাস্তায় থেকে মানুষের পাশে থেকেছি।”

বিজেপির উদ্দেশে তিনি বলেন, “কোনো কথা সঠিক বলছে না বিজেপি। অসহিষ্ণুতা সরকারের একটা বড় অস্ত্র। এই সরকারের পক্ষে দেশ চালানো সম্ভব নয়।”

বামেদের কালা দিবস

black day organised by left partiesএ দিন বাম দলগুলির পক্ষ থেকেও বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ২৫তম বার্ষিকী পালন করা হয়। তারা এই দিনটি কালা দিবস হিসাবে পালন করে।  এই উপলক্ষে ধর্মতলায় যৌথ মিছিলের আয়োজন করা হয়।

ছবি রাজীব বসু

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here