দিঘা: একটা তো নয়, দু’টোও নয়। ভুয়ো পরিচয় দিয়ে পর পর চারটি বিয়ে করে ধরা পড়ল এক ব্যক্তি। ধৃতের নাম অভিজিৎ মণ্ডল ওরফে শেখ মুজিবর রহমান। রীতিমতো বিজ্ঞাপন দিয়ে বিয়ের পরিকল্পনা করছিল সে।

তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, বিয়ে করার জন্য পরিচয় গোপন করেছিল অভিজিৎ। ভুয়ো পরিচয় দেওয়াই শুধু নয়, জাল ভোটার কার্ড ও আধার কার্ডও বানিয়েছিল সে।

তিন মাস ধরে তার গতিবিধির উপর নজর রাখছিল পুলিশ। তিন মাস ধরে তার ওপরে নজর রাখার পর শেষ পর্যন্ত সোমবার রাতে দিঘার একটি হোটেল থেকে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে বেহালার সরশুনা থানার পুলিশ। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, অভিজিৎ মণ্ডল নাম ব্যবহার করে প্রথমে এক বার বিয়ে করে সে। প্রথম বিয়ের পর আরও তিন বার বিয়ে করেছে ওই যুবক। কিন্তু, তখন আর অভিজিৎ মণ্ডল নয়, নিজেকে শেখ মুজিবর রহমান হিসেবে পরিচয় দিয়েছে ওই কীর্তিমান। পাশাপাশি আরও তিনটে বিয়ে করারও প্রস্তুতি নিচ্ছিল সে।

আরও পড়ুন চোলাইয়ে নজরদারির জন্য দায়িত্ব দেওয়া হল স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলিকে

এই ঘটনায় স্তম্ভিত পুলিশ। তাঁদের বক্তব্য, সাম্প্রতিককালে এমন ঘটনা তাঁদের নজরে আসেনি। প্রায় তিন মাস ধরে ওই যুবকের উপর নজরদারি চালানো হয়েছিল। তার পরই বিশেষ তদন্তকারী দল তাকে পাকড়াও করে।

তবে শুধু বিয়েই নয়, আরও একটি অভিযোগ রয়েছে ধৃতের বিরুদ্ধে। সিআরপিএফে চাকরি দেওয়ার নামে অভিজিৎ বেকার যুবক-যুবতীদের কাছ থেকে প্রায় ২ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলেও অভিযোগ। সেই অভিযোগেরও তদন্ত করছে পুলিশ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here