sonarpur rehab centre

সোনারপুর: রিহ্যাব সেন্টারে এক ব্যক্তির মৃত্যুকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল৷ মারধরের চোটে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ৷ ঘটনায় সেন্টারের মালিক-সহ দু’জন গ্রেফতার হয়েছেন।

গত সপ্তাহেই নেশা ছাড়ানোর জন্য রাজেশ চৌধুরী নামক ওই ব্যক্তিকে সেন্টারে ভর্তি করা হয়৷ পরিবারের অভিযোগ, এই ঘটনাটি চাপা দেওয়ার জন্য সেন্টারের পক্ষ থেকে টাকা দেওয়ার চেষ্টাও হয়েছে।

পরিবারের আরও অভিযোগ, এই ব্যাপারে পুলিশে অভিযোগ জানাতে গেলেও তাদের হেনস্থা করা হয়৷ প্রায় ছ’সাত ঘণ্টা বসিয়ে রাখার পর তাদের অভিযোগ নেওয়া হয়৷ সোমবার রাতে পুলিশ দেহ উদ্ধার করে সোনারপুর হাসপাতালে নিয়ে যায়৷ মঙ্গলবার তার দেহের ময়নাতদন্ত হওয়ার কথা৷

পরিবারের অভিযোগ, মারধরের চোটেই মৃত্যু হয়েছে ওই রাজেশবাবুর৷ অভিযোগ, রবিবার রাত থেকেই তাঁকে মারধর শুরু করেন রিহ্যাবের কর্মীরা৷ তাঁকে ঠিক করে খাবারও দেওয়া হয়নি৷ হাত পা বেঁধে দু-তিন জন মিলে তাঁকে ক্রমাগত মারেন বলে অভিযোগ৷ অন্যরা প্রতিবাদ করলেও তাঁরা কোনো কথা শোনেননি৷

তবে এটাই প্রথম নয়। ‘জীবনজ্যোতি’ নামক ওই রিহ্যাব সেন্টারের বিরুদ্ধে এর আগেও নেশা ছাড়ানোর নাম করে মারধর করার অভিযোগ উঠেছিল৷ ফের একই ঘটনা ঘটায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন মৃতের পরিবারের লোকজন৷

বৃহস্পতিবার ধৃতদের আদালতে তোলা হবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here