maneka gandhi

ওয়েবডেস্ক: এনআরএস হাসপাতালে কুকুর-নিধনকাণ্ড নিয়ে অধ্যক্ষকে ফোন করলেন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী মানেকা গান্ধী। সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার অধ্যক্ষকে ফোন করে ধৃত দুই নার্সিং পড়ুয়ার বহিষ্কারের দাবি তোলেন তিনি। ওই দাবি না মানলে যে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে, তেমন হঁশিয়ারিও দিয়েছেন মানেকা।

১৭টি কুকুরছানাকে পিটিয়ে নৃশংস হত্যার ঘটনায় গর্জে উঠেছে সারা রাজ্য। এমন নৃশংস হত্যাকাণ্ডে স্তম্ভিত পশুপ্রেমীরা আওয়াজ তুললেন এই আমানুষিক কাজের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি। ধৃত দুই নার্সিং পড়ুয়ার এখনও জেলে। গতকাল তাঁদের আদালতে তোলা হলে বিচারকও তীব্র ভর্ৎসনা করেন। যদিও তাঁদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিত অবস্থান-বিক্ষোভও চলছে। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এই অবস্থান বিক্ষোভকে পাত্তা দিচ্ছে না।

জানা গিয়েছে, এ দিন এনআরএসের অধ্যক্ষকে ফোন করেন মানেকা। তিনি এ বিষয়ে আগেও এন্টালি থানায় ফোন করেছিলেন। এমনকী জাতীয় নার্সিং কাউন্সিলেও অভিযোগ জানিয়েছেন। তিনি এ দিন অধ্যক্ষকে বলেন, ধৃত ২ নার্সিং পড়ুয়াকে বহিষ্কার করতে হবে। এই  দাবি না মানলে নার্সিং স্কুলের লাইসেন্স বাতিলের হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, কুকুর-নিধনকাণ্ডের তদন্তে হাসপাতাল নিযুক্ত কমিটি রিপোর্ট জমা করতে পারে এ দিন। কমিটির প্রধান তথা এনআরএস হাসপাতালের ডেপুটি সুপার ডা. দ্বৈপায়ন বিশ্বাস জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার সুপার ডা. সৌরভ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে রিপোর্ট জমা দেওয়া হবে। সৌরভবাবু রিপোর্টটি নার্সিং কাউন্সিলের কাছে পাঠাবেন।

আরও পড়ুন: এনআরএস হাসপাতালে কুকুর নিধনকাণ্ডে আটক দুই পড়ুয়া, দোষ কবুল ]

এখন দেখার এক দিকে মানেকার হুঁশিয়ারি অন্য দিকে জাতীয় নার্সিং কাউন্সিলের কাছে জমা পড়া রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে ধৃত নার্সিং পড়ুয়াদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেন কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যেই দুই পড়ুয়ার হস্টেল চত্বরে ঢোকার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন কর্তৃপক্ষ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here