Mangrove
ঘটনাস্থলে বন দফতরের আধিকারিক, এপিডিআর কর্মী ও স্থানীয় মানুষ।

উজ্জ্বল বন্দ্যোপাধ্যায়, কুলতলি: আবার সুন্দরবনের ম্যানগ্রোভ কেটে ফিসারি করার অভিযোগ উঠল এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। স্থানীয় বাসিন্দাদের উদ্যোগে ম্যানগ্রোভ কাটা বন্ধ হলেও পলাতক অভিযুক্ত।

Mangrove

ঘটনায় প্রকাশ, বুধবার সকাল থেকে কুলতলির দক্ষিণ চুপড়িঝাড়া গ্রামের আদিবাসি পাড়ার ৮৮০ বিঘা জমির ৪-৫ বিঘার ম্যানগ্রোভ কেটে ফিসারি বানানোর কাজ চলছিল। কুমিরমারি নদীর চরের এই ম্যানগ্রোভ কাটা হচ্ছিল জেসিবি মেশিন দিয়ে। স্থানীয় বাসিন্দা স্বপন বর এই কাজ করছিলেন বলে অভিযোগ তুলেছে স্থানীয়রা। তাঁরা এপিডিআর ও বন দফতরে এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ জানায়। তাদের গণ আবেদনে নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। গাছ কাটা বন্ধ হয়ে যায়।

Mangrove

কুলতলি বন দফতরের ডেপুটি রেঞ্জার বিবেকানন্দ বেরা ঘটনাস্থলে যান। গ্রামবাসীদের সঙ্গে তিনি কথা বলেন। তাদের এই প্রচেষ্টাকে সাধুবাদও জানান। অভিযুক্ত স্বপন বেরার নামে কুলতলি থানায় এফআইআর করেছেন বন দফতরের আধিকারিক। তবে অভিযুক্ত ব্যক্তি পলাতক। তাঁর খোজ করছে পুলিশ। এপিডিআরের দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা সহ-সম্পাদক মিঠুন মণ্ডল বলেন, “সুন্দরবনকে বাঁচাতে ম্যানগ্রোভ চোরদের আটকাতে হবে আমাদের। এর জন্য আমরা রাজ্য বন দফতরেও মাস পিটিশন দেব”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here