কলকাতা: ‘প্রেস্টিজ ফাইট’ না কি সংগঠনকে মজবুত করা। এই ইস্যুতেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ব্রিগেড সভাকে ঘিরে বিজেপির কেন্দ্রীয় এবং রাজ্য নেতৃত্বের মতান্তর দেখা দিল। শেষে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের সিদ্ধান্তে স্থগিত হয়ে গেল তাঁর ব্রিগেডের সভা। বদলে রাজ্যে চারটে জনসভা করানো হবে তাঁকে দিয়ে।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ডে নরেন্দ্র মোদীর জনসভা করার কথা ছিল। তার আগে রাজ্যে এমনিতেই দু’টো জনসভা করার কথা ছিল তাঁর। রাজ্য বিজেপির লক্ষ্য ছিল তৃণমূলের ব্রিগেড সমাবেশকে টেক্কা দেওয়া। সেই কারণে বাকি দু’টি জনসভার ব্যাপারে বিশেষ আগ্রহ দেখায়নি রাজ্য নেতৃত্ব। অন্য দিকে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের লক্ষ্য ছিল রাজ্যে নিজেদের সংগঠনকে আরও চাঙ্গা করা। তার জন্য রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের জনসভার দিকেই ভোট ছিল তাদের।

 আরও পড়ুন মমতার ব্রিগেড মোদীর কালবেলা, কংগ্রেসের সঙ্কেত – মন মিলুক না মিলুক হাত তো মেলান

এই বিষয়ে রবিবার রাত পর্যন্ত রাজ্য এবং কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের মধ্যে মতান্তর হওয়ার পরে, সিদ্ধান্তের ভার দেওয়া হয় সভাপতি অমিত শাহের ওপরে।

সোমবার সকালে অমিত শাহের সিদ্ধান্তের পর বাতিল হয় ব্রিগেডের সভা। পরিবর্তে রাজ্যে যে চারটি সভার সিদ্ধান্ত হয়েছে সেটা শুরু হবে ২৮ জানুয়ারি থেকে। ওই দিন শিলিগুড়িতে সভা। ৩১ তারিখ মোদীর সভা উত্তর ২৪ পরগনার ঠাকুরনগরে। ৮ ফেব্রুয়ারি ব্রিগেডের বদলে আসানসোলে মোদী সভা করবেন বলে ঠিক হয়েছে। পণ্য একটি সভার তারিখ এবং সভাস্থলের ব্যাপারে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। মার্চের শেষে রাজ্যে পরীক্ষা পর্ব মিটলে, তার পর ব্রিগেডের সভা নিয়ে নতুন করে ভাবা হতে পারে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here