গোটা রাজ্যে পৌঁছোল বর্ষা, তবে আপাতত ভরসা বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিই

0
695

কলকাতা: তিন দিন থেমে থাকার পর আবার কিছুটা গতিপ্রাপ্ত হল বর্ষা। গোটা রাজ্যকেই নিজের গ্রাসে আনল মৌসুমি বায়ু। তবে ভারী নয়, বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিই ভরসা দক্ষিণবঙ্গের।

প্রসঙ্গত বঙ্গোপসাগরে গভীর নিম্নচাপের সৌজন্যে গত সোমবার বর্ষা পৌঁছে গিয়েছিল কলকাতায়। কিন্তু তারপরই ফের থেমে গিয়েছিল তার অগ্রগতি। সোমবারের পর সেভাবে বৃষ্টিও হয়নি কলকাতায়। অবশেষে দু’দিন শুকনো থাকার পর বৃহস্পতিবার সন্ধায় বৃষ্টির ভাগ্য খোলে কলকাতার। তবে এই বৃষ্টি মূলত সীমাবদ্ধ ছিল দক্ষিণ কলকাতাতেই, উত্তরের ভাগ্যে ছিটেফোঁটার বেশি কিছু জোটেনি। আলিপুর আবহাওয়া দফতরের মতে এই বৃষ্টি আদৌ বর্ষার স্বাভাবিক বৃষ্টি নয়। স্থানীয় ভাবে তৈরি হওয়া বজ্রগর্ভ মেঘ থেকেই এই বৃষ্টি হয়েছে।

আপাতত এরকম বৃষ্টিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হবে কলকাতাবাসীকে। এই মুহূর্তে দক্ষিণবঙ্গের ওপর মৌসুমি বায়ু দুর্বল। তার ওপর সমস্যা তৈরি করেছে নতুন একটি নিম্নচাপ। বৃহস্পতিবার তৈরি হওয়া ওই নিম্নচাপটি শুক্রবার দুপুরে চলে যায় বাংলাদেশে। সেই নিম্নচাপটি যদি বাংলাদেশ না গিয়ে পূর্ব ভারতের ওপর থাকত তাহলে প্রকৃত বর্ষার বৃষ্টি পেত দক্ষিণবঙ্গ। আবার কবে নিম্নচাপ তৈরি হবে, বা মৌসুমি বায়ু শক্তিলাভ করবে ততদিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে ঝমঝম বৃষ্টির জন্য। তবে স্থানীয় মেঘ থেকেও বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিও ভাসিয়ে দিতে পারে। প্রসঙ্গত গত দু’দিনে পশ্চিম বর্ধমানের পানাগড়ে ১১০ মিমি বৃষ্টি হয়েছে। সেই বৃষ্টির সঙ্গেও বর্ষার কোনো সম্পর্ক নেই।

সামনের সপ্তাহ থেকে দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি বাড়বে বলে আশাবাদী বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা, ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার, আবহাওয়া বিশেষজ্ঞ রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা। সেই সঙ্গে তিনি বলেন আগামী কয়েকদিনও ঝাড়খণ্ডের ছোটো নাগপুর মালভূমি অঞ্চল জন্ম দিতে পারে আরও কয়েকটি কালবৈশাখীর মতো ঝড়ের। সেই ঝড় থেকেও বৃষ্টি নামতে পারে কলকাতা তথা সমগ্র দক্ষিণবঙ্গে।

উত্তরবঙ্গে অবশ্য বিক্ষিপ্ত ভাবে ভারী বৃষ্টির সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে আবহাওয়া দফতরের তরফ থেকে।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here