ভিলেন ‘বায়ু,’ দক্ষিণবঙ্গে আরও পিছতে পারে বর্ষার আগমন

0
el nino

ওয়েবডেস্ক: এ বছর নানা কারণে দেরি করার কথা ছিল বর্ষার। সেই ভাবে তৈরিও ছিলেন সাধারণ মানুষ। কিন্তু মোক্ষম সময়েই তৈরি হল ঘূর্ণিঝড় বায়ু। গুজরাত উপকূলের কাছে তার বিভিন্ন রকম ভেলকির জেরে দক্ষিণবঙ্গে আরও দেরি করে ফেলল বর্ষা।

রবিবার উত্তরবঙ্গের কিছু অঞ্চলে ঢুকেছে বর্ষা। তখন মনে করা হচ্ছিল হয়তো ২-৩ দিনের মধ্যেই দক্ষিণবঙ্গে আগমন ঘটতে পারে তার। কারণ হিসেবমতো উত্তর থেকে দক্ষিণবঙ্গে আসতে বর্ষা সময় নেয় তিন দিন। কিন্তু রবিবার রাতে পরিস্থিতি বিচার করে দেখা গিয়েছে, বর্ষার আগমন পিছিয়ে এই সপ্তাহের শেষে চলে যেতে পারে।

আর এর জন্য পুরোপুরি ভিলেন বায়ু। কারণ সে এখনও সমুদ্রে রয়েছে। সোমবার সেটি গুজরাতের কচ্ছ উপকূল দিয়ে স্থলভাগে প্রবেশ করবে। তবে তখন সে শক্তিক্ষয় করে গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে।

কী ভাবে বর্ষার আগমনে প্রভাব ফেলছে বায়ু?

সাধারণত দক্ষিণবঙ্গে মৌসুমী বায়ু ঢোকায় উত্তর আরব সাগর। উত্তর আরব সাগরেই অবস্থান করছে বায়ু। ফলে সমস্ত জলীয় বাষ্প বায়ু নিজের কাছে টেনে রেখেছে। এমনই বলছেন বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার আবহাওয়া বিশেষজ্ঞ রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা। তবে কিছুটা খুশির খবর এই যে আগামী ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে বায়ুর সমস্ত দাপট শেষ হয়ে যাবে।

রবীন্দ্রবাবুর কথায়, “বায়ু বিলীন হয়ে গেলেই, তার জলীয় বাস্প ধীরে ধীরে উত্তর আরব সাগর থেকে মধ্যে ভারত হয়ে বঙ্গোপসাগরের দিকে আসবে। পাশাপাশি আগামী ৪-৫ দিনের মধ্যে উত্তর বঙ্গোপসাগরে একটি নিম্নচাপ তৈরি হতে পারে। ফলে ওই নিম্নচাপের টানেও বর্ষার বায়ু এগিয়ে আসবে দক্ষিণবঙ্গের দিকে।”

আরও পড়ুন নীলকণ্ঠ অভিযাত্রী সংঘের সমাবর্তন অনুষ্ঠান, বিশেষ সম্মাননা বিখ্যাত পর্বতারোহীকে

যদিও বঙ্গোপসাগরের আসন্ন সেই নিম্নচাপটির বেশি প্রভাবটাই বাংলাদেশ এবং উত্তরপূর্ব ভারতের দিকে থাকবে, কিন্তু তার পরোক্ষ প্রভাবে ঝাড়খণ্ডেও একটি ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হতে পারে বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু। সেই ঘূর্ণাবর্তের টানে দক্ষিণবঙ্গে ঢুকে পড়বে বর্ষা। তবে আগামী শনিবার, অর্থাৎ ২২ জুনের আগে বর্ষার আগমন সম্ভব নয়ই বলে মনে করছেন রবীন্দ্রবাবু।

এর পরেই স্বাভাবিক ভাবে যে প্রশ্নটা আসে, তা হল আগামী কয়েক দিন দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া কেমন থাকবে?

আরও অন্তত ২টো দিন দক্ষিণবঙ্গের জোরদার গরম, এমনকি তাপপ্রবাহের পরিস্তিতি থাকবে। কলকাতায় পারদ ৩৮-৩৯ এবং পশ্চিমাঞ্চলে পারদ পৌঁছোতে পারে ৪২-৪৩ ডিগ্রি। তবে বৃষ্টির সম্ভাবনা রোজই রয়েছে। সোমবার বিকেলেও বিক্ষিপ্ত ভাবে ঝড়বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। আপাতত বর্ষার অপেক্ষা ছাড়া আরও কোনো উপায় নেই দক্ষিণবঙ্গবাসীর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here