প্রথম বার জিতলেন মুকুল রায়, গড় হাতছাড়া হল পুত্র শুভ্রাংশুর

0

খবর অনলাইন ডেস্ক: নদিয়ার কৃষ্ণনগর উত্তর কেন্দ্রে জয়ী হলেন বিজেপি প্রার্থী মকুল রায়। তবে তাঁর পুত্র এবং বিদায়ী বিধায়ক শুভ্রাংশু রায় হেরে গেলেন উত্তর ২৪ পরগনার বীজপুরে।

দু’দশক আগে উত্তর ২৪ পরগণার জগদ্দল থেকে তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন মুকুল। কিন্তু সে বার পরাজিত হওয়ার পর থেকে আর প্রার্থী হননি। রাজ্যসভার সাংসদ হয়েছেন একাধিক বার। হয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তবে এই প্রথম বার বিধানসভায় জয়ের স্বাদ পেলেন তুখোড় নেতা।

Loading videos...

এমনিতে ২০২১-এর ভোটযুদ্ধে সরাসরি ময়দানে অবতীর্ণ হতে চাননি বলেই শোনা গিয়েছিল। ফলে বিজেপির প্রার্থীতালিকায় তাঁর নাম দেখে অনেকেই অবাক হন। তবে তাঁর জয়ের ব্যাপারে আশ্বস্ত হওয়ার মতো কারণ ছিল একাধিক। তৃণমূলে থাকাকালীন নদিয়ার রাজনৈতিক পরিমণ্ডল ছিল তাঁর হাতের তালুর মতো চেনা। অন্যদিকে, গত ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিধানসভা ভিত্তিক ফলাফলে কৃষ্ণনগর উত্তরের বিজেপি প্রার্থী তৃণমূলের থেকে এগিয়ে ছিলেন প্রায় ৫০ হাজার ভোটে।

তৃণমূল এই আসনে প্রার্থী করেছিল অভিনেত্রী কৌশানি মুখোপাধ্যায়কে। যদিও বাজিমাত করলেন মুকুল-ই। তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়ে এ বার প্রার্থী হয়েছেন অনেকেই। তাঁদের মধ্যে গুটিকয় যে প্রার্থী জয়ী হয়েছেন, তাঁদের মধ্যে অন্যতম মুকুল রায়।

অন্যদিকে নিজের গড় হারাতে হয়েছে মুকুল-পুত্র শুভ্রাংশুকে। ২০১১ সালে রাজ্যের পরিবর্তনের ভোটে প্রথম বার জয়ী হন তরুণ তৃণমূল প্রার্থী শুভ্রাংশু। ২০১৬ সালের ভোটেও সেই ঘটনারই পুনরাবৃত্তি। তবে বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় তাঁর আর হ্যাট্রিক হল না।

তৃণমূল ছাড়ার আগে পর্যন্ত তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপর অগাধ আস্থা দেখিয়ে এসেছিলেন বীজপুরের বিধায়ক শুভ্রাংশু রায়। বাবা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর থেকেই তাঁকে নিয়েও কম জল্পনা ছড়ায়নি। লোকসভা ভোটের পর বলেছিলেন, “এ বারের লোকসভা ভোটে বিধানসভা ভিত্তিক ফলাফলে বীজপুর থেকে দলকে লিড দেব বলেছিলাম। কিন্তু পারিনি। ভুলে গিয়েছিলাম মুকুল রায়ও ভূমিপুত্র। মানুষ বাবার দলকেই বেছে নিয়েছেন। বিশ্বাস করেছেন। দল কি আমায় বিশ্বাস করে”?

তবে লোকসভায় লিড পাওয়া বীজপুরে, বিধানসভায় পদ্ম ফোটাতে পারলেন না মুকুল-পুত্র!

আরও পড়তে পারেন: Bengal Polls Live: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে রাজভবনে আমন্ত্রণ রাজ্যপালের

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন