ফের সংবাদ শিরোনামে উঠে আসছেন মুকুল-পুত্র শুভ্রাংশু

0

কলকাতা: পিতা-পুত্রের সম্পর্কে কোনও দাগ কাটেনি তাঁদের রাজনৈতিক মতাদর্শ। বাবা বিজেপি হলেও একই ছাদের তলায় তৃণমূলি ছেলের নেই কোনো সমস্যা। কিন্তু সমস্যাটা অন্য জায়গায়। রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে দু’জনকেই মুখোমুখি হতে হয় উটকো প্রশ্নের। কখনও প্রকাশ্যে বা কখনও আড়ালে চলে দু’জনকে নিয়ে ঠাট্টা-তামাশা। তবে এ সবকে আর বেশি দিন তোয়াক্কা করতে চান না বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের বিধায়ক পুত্র শুভ্রাংশু রায়। আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে যে তিনি স্বমহিমায় মাঠে নামছেন, তা জানিয়েও দিলেন।

সম্প্রতি বারাসতে আয়োজিত উত্তর ২৪ পরগনা জেলার প্রশাসনিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যা্য়। যেহেতু জেলার প্রশাসনিক-উন্নয়মূলক বিষয়েই ওই আলোচনা, স্বাভাবিক ভাবে শুধু সরকারি দল নয়, বিরোধী দলের যে কোনো বিধায়কের সেই বৈঠকে প্রবেশ অবাধ। কিন্তু শাসক দলের বিধায়ক হয়েও সেখানে দেখা যায়নি শুভ্রাংশুকে। বিধানসভার অধিবেশনেও মুখ্যমন্ত্রী তাঁকে জি়জ্ঞাসা করেন, ‘বারাসতে কেন যাওনি।’

উত্তরে শুভ্রাংশু বলেন, ‘কেউ ডাকেননি।’ কিন্তু সেই তিনিই এখন বলছেন, ‘গিয়েছিলাম। কিন্তু আমাকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।’ এর আগেও দলের কর্মসূচিতে নিরবচ্ছিন্ন ভাবে অংশ নেওয়ার সময় তাঁকে তৃণমূলের কোনো নেতা বারণ করেছিলেন বলেও তিনি অভিযোগ করেছেন। কিন্তু জানাতে চাননি সেই নেতার নাম।

আরও পড়ুন: শুভ্রাংশুর বরাতে কী আছে, কপালে চিন্তার ভাঁজ মুকুলের!

আপাতত শুভ্রাংশু স্থির করেছেন, শারীরিক অসুস্থতা কাটিয়ে উঠে তিন ফের কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছেন। আগামী পঞ্চায়েত এবং লোকসভা ভোটে তিনি আগের মতোই উদ্যোমের সঙ্গে ময়দানে নামবেন। যে কারণে দলের জেলা পঞ্চায়েত সম্মেলনেও তিনি উপস্থিত ছিলেন।

Shyamsundar

শুভ্রাংশুর এই নতুন করে রাজনৈতিক আন্দোলনে ফিরে আ্সার ঘটনাকে বীজপুরের তৃণমূলের একাংশ ভালো চোখেই দেখছে। তাদের মতে, রাজনীতিতে সবই সম্ভব। পিতা-পুত্রের ভিন্ন মতাদর্শ নিয়ে ভিন্ন রাজনীতি করাটাও এই প্রথম নয়। তবে বীজপুরে এখন তৃণমূলের যা পরিস্থিতি, তাতে শুভ্রাংশু আবার আগের মতো কর্মসূচিতে ফিরে এলে আখেরে লাভ হবে উভয়েরই।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন