খবরঅনলাইন ডেস্ক: মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদের সভাধিপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলেন একদা শুভেন্দু অধিকারী-ঘনিষ্ঠ মোশারফ হোসেন। শুভেন্দু অধিকারী তৃণমূল ছাড়ার সময়ে মোশারফও দল ছেড়েছিলেন। তবে শুভেন্দুর মতো বিজেপিতে না গিয়ে, কংগ্রেসে যোগ দেন তিনি।

এর পর বিধানসভা নির্বাচনে নওদা কেন্দ্রে কংগ্রেসের প্রার্থীও হয়েছিলেন তিনি। কিন্তু পরাজিত হন। এই ফলাফলের পরেই বুধবার তৃণমূল জেলা সভাপতি আবু তাহের খান ঘোষণা করেন, ২৪ মে মোশারফের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনা হবে। সেই ঘোষণার ২৪ ঘণ্টার ব্যবধানেই জেলা পরিষদের সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলেন মোশারফ।

Loading videos...

একদা কংগ্রেসের গড় হিসেবে পরিচিত মুর্শিদাবাদে এ বার ভরাডুবি হয়েছে দলের। জেলার যে কুড়িটি আসনে ভোটগ্রহণ হয়েছে, তার মধ্যে ১৮টিই জিতেছে তৃণমূল, বাকি দুটিতে বিজেপি। বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল জয়ের পরই মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদ পুনরুদ্ধারে তৎপরতা শুরু করে তৃণমূল।

কংগ্রেসে যোগ দেওয়া সভাধিপতি ও তাঁর সঙ্গীদের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনার কথাও ঘোষণা করে। কিন্তু সেই অনাস্থা আনার আগেই জেলা পরিষদের সভাধিপতি পদ থেকে ইস্তফা দিলেন মোশারফ হোসেন। তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘‘মানুষের রায় মাথা পেতে নিতে হবে। মুর্শিদাবাদ জেলায় কংগ্রেস অনেকটাই রাজনৈতিক জমি হারিয়েছে। সেই বাস্তবের কথা মাথায় রেখে আমার জেলা সভাধিপতির পদ ধরে রাখা উচিত নয় বলেই মনে করি। তাই আমি পদত্যাগপত্র বুধবারই পাঠিয়ে দিয়েছি।’’

তবে পুনরায় তৃণমূলে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা কথাও উড়িয়ে দেননি তিনি। এমন প্রশ্নের উত্তরে মোশারফ বলেন, ‘‘এই কথাটা (তৃণমূলে যোগ দেবেন কি না) বলা অসম্ভব। আমি যেখানে আছি, সেখানেই থাকব। শূন্য থেকে আমার রাজনৈতিক কেরিয়ার আবার শুরু করব।’’

আরও পড়তে পারেন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.