Connect with us

মুর্শিদাবাদ

সৌদি আরব ফেরত মুর্শিদাবাদের যুবকের মৃত্যু কি করোনাভাইরাসে? এল রিপোর্ট

মুর্শিদাবাদ: শোকের আবহের মধ্যে একটাই স্বস্তির খবর। সৌদি আরব (Saudi Arabia) ফেরত মুর্শিদাবাদের যুবকের মৃত্যুর কারণ করোনাভাইরাস নয়। সোমবার সকালেই তাঁর রক্তপরীক্ষার রিপোর্ট এসেছে।

শনিবার জানারুল হক নামে ওই ব্যক্তিকে ভরতি করা হয় মুর্শিদাবাদ (Murshidabad) মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। যে হেতু তিনি সৌদি আরব থেকে ফিরেছিলেন তাই কোনো রকম ঝুঁকি না নিয়ে গতকাল বিকেলে তাঁকে আইসোলেশন বিভাগে ভরতি করা হয়। ওই আইসোলেশন বিভাগেই রবিবার মৃত্যু হয়েছে তাঁর।

নবগ্রামের পলাশপুর নারকেলবাড়ির বাসিন্দা জানারুল হক শনিবার রাতে নিজের গ্রামের বাড়িতে আচমকা অসুস্থ হয়ে পড়েন। ওই দিন সকালেই সৌদি আরব থেকে গ্রামে ফিরেছিলেন তিনি। এর পর তাঁকে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভরতি করা হয়।

শুরু হয় পরীক্ষানিরিক্ষা। তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কি না, তা দেখার জন্য নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। চলে কড়া নজরদারি। রবিবার তাঁর মৃত্যুর পর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

আরও পড়ুন করোনাভাইরাস আতঙ্ক দূরে সরিয়ে দোল উৎসবে মাতোয়ারা বাংলা

রাজ্যের স্বাস্থ্য অধিকর্তা অজয় চক্রবর্তী জানিয়েছেন, ওই ব্যক্তির ডায়াবেটিস (Diabetes) ছিল। ডায়াবেটিস আক্রান্ত রোগীদের যে সব নিয়ম মেনে চলতে হয়, সেটা না করার জন্যই মৃত্যু হয়েছে তাঁর।

অন্য দিকে এখনও বেলেঘাটা আইডিতে হাসপাতালে এমন ২ জন ভর্তি রয়েছেন যাঁদের আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। রবিবার সকালে সৌদি ফেরত এক ব্যক্তিতে কলকাতা বিমানবন্দর থেকে বেলেঘাটা আইডিতে পাঠানো হয়। ওই ব্যক্তি বিমানবন্দরে নামা মাত্রই থার্মাল স্ক্যানে ধরা পড়ে তাঁর জ্বর আছে। তার পরেই তাঁকে বেলেঘাটায় পাঠানো হয়।

পশ্চিম মেদিনীপুর

দিঘা থেকে হেঁটে মুর্শিদাবাদের পথে পরিযায়ী শ্রমিকের দল, আংশিক সুরাহা শালবনীতে

শালবনী: লকডাউনের (lockdown) জেরে কাজ বন্ধ এক মাসেরও বেশি হয়ে গেল। হাতে পয়সাকড়িও নিঃশেষ। শেষ পর্যন্ত উপায়ান্তর না দেখে হেঁটেই কর্মস্থান থেকে রওনা হল পরিযায়ী শ্রমিকের দল। গন্তব্য গ্রামের বাড়ি। দিঘা (Digha) থেকে মুর্শিদাবাদ (Murshidabad)। শেষ পর্যন্ত শালবনীতে (Shalbani) এসে তাঁদের পরিশ্রমের কিছুটা লাঘব হল।

বুধবার সকালে শালবনীর কালীমন্দিরের কাছে একদল মানুষকে হেঁটে যেতে দেখা যায়। এলাকার শিক্ষক তন্ময় সিংহ তাঁদের পরিচয় জানতে চান। তাঁরা জানান, তাঁরা পরিযায়ী শ্রমিক। আসছেন দিঘা থেকে, বাড়ি মুর্শিদাবাদ। সাত জনের দলে একটি ছয় বছরের শিশু এবং একজন শ্রমিকের মা-ও ছিলেন।

দলের শিশুটি।

তাঁরা জানান, আজ নিয়ে চার দিন তাঁরা ক্রমাগত হেঁটে চলেছেন। এঁদের কোনো ভাবে সাহায্য করা যায় কি না, সেই চিন্তা থেকেই তন্ময়বাবু যোগাযোগ করেন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার বন ও ভূমি কর্মাধ্যক্ষ নেপাল সিংহের সঙ্গে।

খবর যায় শালবনী পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ সন্দীপ সিংহের কাছে। সন্দীপবাবু তাঁদের দেখা পান আড়াবাড়ি বন সংলগ্ন একটি টেলিফোন কোম্পানির অফিসের সামনে। পরিযায়ী শ্রমিকদলের হেঁটে মুর্শিদাবাদ যাওয়ার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়তেই ওই এলাকাতেই তাঁদের খাবারের ব্যবস্থা করা হয়। এবং  পথের জন্য শুকনো খাবারের ব্যাবস্থা করে দেন অতনু সিংহ ও সুদীপ সিংহ।

ইতিমধ্যে সন্দীপবাবু যোগাযোগ করেন চন্দ্রকোনা রোড ফাঁড়ি, শালবনী থানা, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সভাধিপতি উত্তরা সিংহ হাজরা ও শালবনীর বিডিও সঞ্জয় মালাকারের সঙ্গেও। পরিযায়ী শ্রমিকেরা জানান, তাঁরা মুর্শিদাবাদের সুতি ও ধুলিয়ান থানার বাসিন্দা। তাঁদের আবেদন, তাঁদের কোয়ারান্টাইনে না রেখে অন্তত অন্তত বর্ধমান জেলার সীমানার কাছাকাছি এগিয়ে দেওয়া হোক। ওখান থেকে তাঁদের বাড়ির লোকেরা তাঁদের নিয়ে যাবে বলে জানান তাঁরা।

আরও পড়ুন: ১০ জুনের পর উচ্চমাধ্যমিকের বাকি পরীক্ষা, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

ওই আবেদনে সাড়া দিয়ে তাঁদের বর্ধমান জেলার সীমানার কাছাকাছি পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। এখন দেখার এই পরিযায়ী শ্রমিকরা কখন তাঁদের বাড়ি পৌঁছোতে পারেন।

Continue Reading

মুর্শিদাবাদ

করোনাভাইরাস সন্দেহে হাসপাতালে ভরতি হওয়ার পর দিনই মুর্শিদাবাদে মৃত যুবক

murshidabad medical

নবগ্রাম: রবিবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হল মুর্শিদাবাদের এক যুবকের। করোনাভাইরাস (Coronavirus) সংক্রমণের সন্দেহে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসাধীন থাকাকালীন রবিবার ওই যুবকের মৃত্যু হয়।

নবগ্রামের পলাশপুর নারকেলবেড়িয়ার বাসিন্দা জানারুল হক কর্মসূত্রে প্রায় পাঁচ বছর ধরে সৌদি আরবে ছিলেন। গত শনিবার তিনি দেশে ফিরে আসেন। ওই দিনই জ্বর এবং শ্বাসকষ্ট নিয়ে তাঁকে ভরতি করা হয় হাসপাতালে। তাঁকে রাখা হয় আইসোলেশন ওয়ার্ডে।

মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ জানারুলের রক্তের নমুনা বেলেঘাটা নাইসেডে পাঠান পরীক্ষা করানোর জন্য। কিন্তু তারই মধ্যে জানারুলের মৃত্যু হয় এ দিন।

স্বাভাবিক ভাবেই তাঁর মৃত্যুর কারণ এখনও পর্যন্ত স্পষ্ট নয়। আগামী সোমবার তাঁর রক্ত পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পাওয়া গেলে তবেই জানা যাবে, তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন কি না। যদিও মৃতের আত্মীয়রা জানিয়েছেন, তাঁর আগে থেকেই উচ্চ রক্তচাপ এবং সুগারের রোগ ছিল।

আরও পড়ুন: আজ থেকে আবহাওয়ার উন্নতি, দোল পেরিয়ে ফের ঝড়বৃষ্টি?

জানারুলের মৃত্যুসংবাদ জানাজানি হতেই করোনা-আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বেলেঘাটা আইডির আইসোলেশন ওয়ার্ডে জ্বর-সর্দিকাশি নিয়ে ভরতি রয়েছেন আরও এক যুবক। জানা গিয়েছে, তিনিও সৌদি আরবে ছিলেন। বিমানবন্দরে থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের পর তাঁকে বেলেঘাটা আইডি-তে পাঠানো হয়। সব মিলিয়ে করোনা সন্দেহে আইডি হাসপাতালে দু’জন ভরতি রয়েছেন। তাঁর রক্তের নমুনা পাঠানো হয়েছে পুনের ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজিতে।

Continue Reading

মুর্শিদাবাদ

সংশোধিত ভোটার কার্ডে নিজের মুখের জায়গায় কুকুরের ছবি, মানহানির মামলা করছেন ফরাক্কার বাসিন্দা

ফরাক্কা: ভোটার কার্ডে ভুল তথ্য অথবা অন্য কারও মুখের ছবি ঢুকে যাওয়ার ঘটনা নতুন নয়। তাই বলে কুকুরের ছবি!

মুর্শিদাবাদ জেলার ফরাক্কার বেওয়া-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের ৪০ নম্বর বুথের রামনগরের বাসিন্দা সুনীল কর্মকার নিজের নতুন ভোটার কার্ড হাতে পেয়ে তাজ্জব বনে গেলেন। সংশোধিত ওই ভোটার কার্ডে তাঁর মুখের জায়গায় রয়েছে একটি কুকুরের ছবি।

সংবাদ মাধ্যমের কাছে ক্ষোভ উগরে দিয়ে সুনীলবাবু বলেন, মানুষ হিসাবে আমাকে এ ভাবে অপমান করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশন আমাকে পশু হিসাবে স্বীকৃতি দিয়েছে। আমি নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করব।

এই মারাত্মক ভুলের বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের স্থানীয় কর্মকর্তারা। বিষয়টি জানার পরে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ফরাক্কার বিডিও রাজর্ষি চক্রবর্তী। একই সঙ্গে তিনি আশ্বাস দিয়ে জানিয়েছেন, এটা ডিসেম্বর মাসে আবেদন করা ভোটার কার্ড। আগামী এপ্রিলে যে নতুন ভোটার কার্ড দেওয়া হবে, তাতে এই ত্রুটি থাকবে না।

আরও পড়ুন: উত্তরবঙ্গ সফর শেষে কলকাতায় ফিরলেই মুখ্যসচিবকে পুরভোটের নোটিশ পাঠাবে নির্বাচন কমিশন

অন্য দিকে ৪০ নম্বর বুথের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিএলও বিনয়চন্দ্র রায় জানিয়েছেন, সুনীল কর্মকার গত ৬ জানুয়ারি সংশোধনের জন্য ফর্ম জমা দিয়েছিলেন। ৮ জানুয়ারি সেই ফর্ম তিনি জমা দেন ফরাক্কা ব্লকের দায়িত্বপ্রাপ্ত জুনিয়ার ইঞ্চিনিয়ার রাজা মৈত্রের কাছে। সেখানে দেখা যায় খসড়া ভোটার তালিকায় সুনীল কর্মকারের ছবির জায়গায় কুকুরের ছবি ছাপা আছে।

Continue Reading
Advertisement
football2
ফুটবল4 hours ago

কোভিড-পরিস্থিতিতে আসন্ন আই লিগের সব ম্যাচই কলকাতায় করার ভাবনা

দেশ5 hours ago

বিজেপিতে যাচ্ছি না, বললেন সচিন পায়লট

দেশ5 hours ago

প্রবল বর্ষণে সিকিমে ভয়াল রূপ তিস্তার, হুড়মুড় করে ভেঙে পড়ল প্রাক্তন সাংসদের বাড়ি

উঃ দিনাজপুর5 hours ago

বিজেপি বিধায়কের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার, পরিবারের দাবি খুন

রাজ্য6 hours ago

উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমলেও স্বস্তি দিচ্ছে না আগামী তিন দিনের পূর্বাভাস

দেশ6 hours ago

দেশে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যায় রেকর্ড, তবে মৃত্যুহারে উল্লেখযোগ্য পতন

দেশ6 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৮৭০১, সুস্থ ১৮৮৪৯

বিদেশ7 hours ago

কমদামী ও সহজলভ্য দুই ওষুধের সংমিশ্রণেই কমছে করোনার মারণ ক্ষমতা?

দেশ6 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৮৭০১, সুস্থ ১৮৮৪৯

দুর্গা পার্বণ2 days ago

আজও ভিয়েন বসিয়ে হরেক রকম মিষ্টি তৈরি হয় চুঁচড়ার আঢ্যবাড়ির দুর্গাপুজোয়

ফুটবল3 days ago

এটিকে-মোহনবাগানের নতুন লোগো প্রকাশিত, জার্সির রঙ সবুজমেরুনই

কলকাতা2 days ago

সক্রিয় রোগীর নিরিখে এই মুহূর্তে কলকাতার অবস্থান কত নম্বরে?

শিক্ষা ও কেরিয়ার3 days ago

প্রকাশিত হল আইসিএসই এবং আইএসসি ফলাফল, মিলল না মেধা তালিকা!

দেশ3 days ago

শারীরিক দুরত্ব ভেঙে মানবিক দায়িত্ব পালন

Shaktikanta Das
দেশ2 days ago

কোভিড-১৯ স্বাস্থ্য এবং অর্থনীতির সামনে শেষ একশো বছরের সব থেকে বড়ো সংকট: আরবিআই গভর্নর

Harsh Vardhan
দেশ3 days ago

করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় আমরা উদ্বিগ্ন নই: কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী

কেনাকাটা

কেনাকাটা22 hours ago

হ্যান্ডওয়াশ কিনবেন? নামী ব্র্যান্ডগুলিতে ৩৮% ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯ এর সঙ্গে লড়াই এখনও জারি আছে। তাই অবশ্যই চাই মাস্ক, স্যানিটাইজার ও হ্যান্ডওয়াশ।...

কেনাকাটা4 days ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা6 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা7 days ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

নজরে