নৈশ কার্ফুকে আরও কঠোর করতে কড়া নির্দেশ দিল নবান্ন

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: করোনার সংক্রমণ অনেকটা কমে আসায় ধীরে ধীরে উঠে যাচ্ছে বিধিনিষেধ। কিন্তু এখনও রাত ৯টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত অপ্রয়োজনে মানুষের রাস্তায় বেরোনো নিষিদ্ধ। পশ্চিমবঙ্গ সরকার এটাকে সরকারি ভাবে নৈশ কার্ফু না বললেও, ব্যাপারটা কার্যত নৈশ কার্ফুর আওতাতেই পড়ে।

কিন্তু এই নৈশ কারফিউ ভেঙে কলকাতার নামীদামি রেস্তরাঁ, হোটেলে ভরপুর পার্টি করার মতো ঘটনা প্রকাশ্যে এসেছে। সে সব ঘটনায় কড়া পদক্ষেপও নিয়েছে কলকাতা পুলিশ। বেড়েছে নজরদারি। তবে তাতেও রাজ্যের বাসিন্দাদের একাংশ এবং হোটেল রেস্তরাঁগুলোর একাংশের কতটা হুঁশ ফিরেছে, সে সংশয় থেকেউ যাচ্ছে।

Loading videos...

তাই নাইট কারফিউ নিয়ে আরও কড়া হচ্ছে নবান্ন। সূত্রের খবর, জেলাগুলিতে নজরদারি বাড়ানোর জন্য নতুন করে নির্দেশিকা জারি করেছেন মুখ্যসচিব হরেকৃষ্ণ দ্বিবেদী। বিধি ভাঙলে এ বার কড়া শাস্তির নিদান দেওয়া হয়েছে নির্দেশিকায়।

উল্লেখ্য, নৈশ কার্ফু ভেঙে নৈশকালীন পার্টির অভিযোগ উঠেছে কলকাতা ও শিলিগুড়ি থেকে। পুলিশের নজরে পড়ামাত্রাই অবশ্য কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। শহর জুড়ে এ নিয়ে প্রায় ১০০টি মামলা রুজু করেছে পুলিশ। কিন্তু এ সব ঘটনায় যথেষ্ট চিন্তায় প্রশাসন।

এ বার তাই শহর এবং জেলাগুলিতে আরও কঠোর হচ্ছে কোভিডবিধি। বিশেষত রাত্রিকালীন নিয়মকানুন। সূত্রের খবর, মুখ্যসচিব নির্দেশ দিয়েছেন, রাতের রাস্তায় জেলা প্রশাসনের নজরদারি আরও বাড়াতে হবে। নাকা চেকিংই শুধু নয়, সিসিটিভি ক্যামেরায় বাড়তি নজর প্রয়োজন।

সীমান্ত লাগোয়া জেলাগুলির বিভিন্ন জায়গায় আরও সতর্কতার সঙ্গে নজরদারি চালাতে হবে। প্রয়োজনে আবগারি দফতরের কর্মীদেরও নাইট কারফিউ চলাকালীন নজরদারির কাজে মোতায়েন করা যেতে পারে। এমনই একগুচ্ছ নির্দেশিকা দিয়ে জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারদের (SP) চিঠি পাঠিয়েছেন মুখ্যসচিব।

আরও পড়তে পারেন আগস্ট থেকে শিশুদের টিকাকরণের সম্ভাবনা, জানালেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন