Connect with us

নদিয়া

মানুষের জীবনযন্ত্রণার ভাগিদার হতে চান করিমপুরের সিপিএম প্রার্থী

নদিয়ার করিমপুর বিধানসভা উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ আগামী ২৫ নভেম্বর। মূলত ত্রিমুখী লড়াইয়ে তৃণমূল, বিজেপি এবং বামফ্রন্ট-কংগ্রেসের প্রচার তুঙ্গে। প্রচার-ব্যস্ততার মাঝেই খবর অনলাইনের মুখোমুখি সিপিএম প্রার্থী গোলাম রাব্বি

২০১৬-র আগে করিমপুর ছিল বামফ্রন্টের দখলেই। এই আসন পুনরুদ্ধারে কী ভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছেন?

করিমপুর এলাকা দীর্ঘদিন ধরেই বামপন্থীদের গড় হিসাবে পরিচিত ছিল। মানুষ ইতিমধ্যেই তাদের ভুল বুঝতে পেরেছে এবং তৃণমূল কংগ্রেসের মুখোশ খসে পড়েছে। অন্য দিকে বিজেপির মুখোশও উন্মুক্ত হয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই মানুষ চাইছে পুরনো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে। প্রচারে বেরিয়ে সেটাই দেখছি। প্রচুর মানুষ আমাদের সঙ্গে আসছে। ফলে আমরা আশাবাদী, এই নির্বাচনে করিমপুর পুনরুদ্ধার করতে সফল হব আমরা।

এলাকার অধিকাংশ মানুষ কৃষিজীবী। তাদের জন্য বিশেষ কোনো দাবির কথা তুলে ধরছেন?

অবশ্যই। নিশ্চিত ভাবেই কৃষি আমাদের ভিত্তি। কিন্তু গত কয়েক বছরে দেখছি, সংবাদ মাধ্যমে কৃষকের উন্নয়নে যে ভাবে প্রচার করা হচ্ছে, তার কিছুই বাস্তবে হয়নি। কৃষকের ঘরে উন্নয়ন পৌঁছানোর ক্ষেত্রে যে ঘাটতি রয়ে যাচ্ছে, তা মানুষ তাদের বাস্তব অভিজ্ঞতাতেই বুঝতে পারছে। সে সব কথা তারা আমাদের কাছে বলছে। এখানে পান চাষিরা রয়েছে, তারা যে তিমিরে ছিল, সেখানেই রয়ে গিয়েছে। বিগত বিধানসভা বা লোকসভা ভোটে তৃণমূল যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, তা পালন করতে পারেনি। এবং মানুষের কাছে যে সমস্ত প্রতিশ্রুতি রাখা হয়েছিল, তা পালন না করায় করিমপুরের কৃষকের কোনো স্বার্থরক্ষা হয়নি।

এ ছাড়া নির্বাচনী প্রচারে আর কোন কোন ইস্যুর কথা তুলে ধরছেন?

করিমপুরের মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি রেলপথ। এখানকার কৃষক যে পান বা অন্যান্য সবজি উৎপাদন করছে, তা যদি সরাসরি কলকাতায় পৌঁছানো যায়,তা হলে সুবিধা সব দিক থেকেই বৃদ্ধি পাবে। একই ভাবে কলা চাষিরা নিজেদের পণ্যের সঠিক মূল্য পায় না। মাঝে ফড়েদের খপ্পরে পড়তে হয়। কিন্তু তা যদি সরাসরি কলকাতায় পৌঁছানো যায়, তারা উপকৃত হবে। এখানে রেলপথের দাবি দীর্ঘদিনের। বাম জমানাতেও রেলপথের দাবিতে আমরা সরব হয়েছিলাম। এখনও হচ্ছি। করিমপুর থেকে কৃষ্ণনগর পর্যন্ত রেলপথের দাবিতে যুব সংগঠনের তরফে আমরা রাস্তায় হেঁটেছিলাম। এমনই কিছু দাবি পূরণের কথা আমরা প্রচারে তুলে ধরছি। মানুষ আমাদের সঙ্গে থাকার আশ্বাস দিচ্ছে।

একশো দিনের কাজের প্রকল্পের গতিপ্রকৃতি কী রকম?

একশো দিনের কাজের গতিপ্রকৃতি দুর্বিষহ। গোটা রাজ্যে একশো দিনের কাজের অবস্থা যে রকম,করিমপুরও তার বাইরে নয়। বুথের অভ্যন্তরে একশো দিনের টাকা লুঠ করা হচ্ছে। পুরো টাকাটাই দশজন মিলে লুঠপাট করে খাচ্ছে। রাস্তাঘাটের উন্নয়নের জন্য, মানুষের উন্নয়নের জন্য তা খরচ করা হচ্ছে না। আমরা অন্তত গ্রামগঞ্জের দিকে তেমন কিছু দেখছি না।

এনআরসির প্রভাব ভোটবাক্সে পড়বে?

আমরা বাম-গণতান্ত্রিক জোটের পক্ষ থেকে বলছি, এ রাজ্যে এনআরসি হতে দেব না। শরীরে এক বিন্দু রক্ত থাকা পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গে আমরা এনআরসি হতে দেব না। এনআরসির বিরুদ্ধে তৃণমূলের যে লড়াই সেটা মেকি। তাদের মুখের কথার সঙ্গে কাজের কোনো মিল নেই। মানুষে-মানুষে ভাগ করার রাজনীতি পশ্চিমবঙ্গে বেশি দিন চলতে পারে না।

অনেকেই বলছেন, করিমপুরে বামপন্থীরা নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছেন?

যাঁরা বলছেন, বামপন্থীরা নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছেন, তাঁরা সঠিক জানেন না। কারণ বামপন্থার মৃত্যু নেই। আমাদের সমাজব্যবস্থায় যতদিন অনাহার, দারিদ্র, অশিক্ষা, নিপীড়ন থাকবে, ততদিন বামপন্থাও থাকবে। সারা পৃথিবীর ক্ষেত্রেই এ কথা প্রযোজ্য। কিন্তু রাজ্য অথবা কেন্দ্রের যে দল মানুষের বিরুদ্ধে সরকার পরিচালনা করছে, মানুষের জীবনযন্ত্রণা যাদের লাঘব করার কথা, তার বদলে তারা বাড়িয়ে তুলেছে। তাদের বিরুদ্ধেই আমাদের লড়াই। সেই লড়াইয়ে মানুষ জয়ী হবে। করিমপুরের মানুষও আজ সে কারণেই জোটবদ্ধ। নিপীড়িত মানুষ ঐক্যবদ্ধ তাদের বিরুদ্ধে জবাব দেবে।

golam-rabbi
দরজায় দরজায় বাম-কংগ্রেস জোট প্রার্থী

করিমপুরের ভোটারদের উদ্দেশে কী বলবেন?

মানুষের সঙ্গে আছি। করিমপুর বিধানসভা এলাকার মানুষ তাদের সুখে-দুখে আমাকে পাবে। মানুষের জীবনযন্ত্রণা ভাগিদার হতে চাই আমি। তাদের উদ্দেশে এ কথা বলতে চাই, তারা যদি আমাকে ডাকে, আমি তাদের সঙ্গে রয়েছি।

নিজের জয়ের ব্যাপারে কতটা আশাবাদী?

জয়ের ব্যাপারে আমরা নিশ্চিত। মানুষ যে ভাবে স্বত‌ঃস্ফূর্ত ভাবে এগিয়ে আসছে, মানুষের জয় হবেই।

বিস্তারিত দেখুন নীচের ভিডিয়োয়-

নদিয়া

দু’সপ্তাহ করোনাশূন্য থেকে কেন্দ্রের তালিকায় স্থান পাওয়ার পরেই ফের করোনারোগীর সন্ধান নদিয়ায়

চাপড়া (নদিয়া): গত ১৪ দিন কোনো করোনারোগীর (Coronavirus) সন্ধান পাওয়া যায়নি, এমন জেলাগুলি নিয়ে তৈরি কেন্দ্রের একটি তালিকায় বৃহস্পতিবারই জায়গা করে নিয়েছিল নদিয়া (Nadia)। তার ঠিক পরেই ওই জেলা থেকেই নতুন এক করোনারোগীর সন্ধান পাওয়া গেল। ফলে আশার আলো দেখতে শুরু করলেও, ফের হতাশা গ্রাস করেছে নদিয়ায়।

তবে ওই ব্যক্তি নদিয়া থেকে নয়, কলকাতা থকেই করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ নদিয়া জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, চাপড়ার বাসিন্দা ওই প্রৌঢ় বিএসএফ (BSF) থেকে অবসর নিয়ে খিদিরপুরে (Khidirpore) পোর্ট ট্রাস্টে রক্ষী হিসাবে কাজ করছিলেন। 

জ্বর নিয়ে গত ৮ এপ্রিল তিনি বাড়ি ফেরেন। জ্বর না কমায় বুধবার তাঁকে চাপড়া গ্রামীণ হাসপাতালের আউটডোরে আনা হয়। সেখানে থেকে শক্তিনগর জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। সেখান থেকে তাঁর লালারসের নমুনা কলকাতায় পাঠানো হলে করোনা-রিপোর্ট পজিটিভ আসে। রাতেই তাঁকে বেলেঘাটা আইডিতে স্থানান্তরিত করা হয়।

জেলা স্বাস্থ্য দফতরের এক কর্তা জানান, আক্রান্তের পরিবারের আড়াই বছরের শিশু-সহ ছ’ জনকে বুধবারই কৃষ্ণনগর কর্মতীর্থে কোয়ারান্টিন করা হয়েছে। পাশাপাশি গ্রামীণ আর জেলা হাসপাতাল মিলিয়ে কত জন স্বাস্থ্যকর্মী ওই প্রৌঢ়ের সংস্পর্শে এসেছিলেন সেই তালিকাও তৈরি করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন নতুন সংক্রমিতের সংখ্যা ফের হাজারের গণ্ডি পেরোলেও সুস্থ আরও ২৬০, মৃত্যুও তুলনামূলক কম

উল্লেখ্য, মার্চের শেষে এই নদিয়া থেকেই পাঁচ জন কোভিড ১৯ আক্রান্তের খোঁজ মিলেছিল। তখনই নদিয়াকে ‘হটস্পট’ হিসেবে চিহ্নিত করে স্বাস্থ্য দফতর। কিন্তু গত ১৪ দিন ওই জেলায় নতুন করে কোনো সংক্রমণের খোঁজ পাওয়া যায়নি বলেই ‘হিটলিস্ট’ থেকে কার্যত নিজেদের নাম সরিয়ে ফেলেছিল নদিয়া।

কিন্তু নতুন করে করোনারোগীর সন্ধান মেলায় নদিয়া নিয়ে যে কড়াকড়ি বাড়বে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

Continue Reading

নদিয়া

একই পরিবারের ৫ জন সংক্রমিত, রাজ্যে করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১৫

খবর অনলাইন ডেস্ক: একই পরিবারের ৫ জন করোনাভাইরাসে (coronavirus) আক্রান্ত হওয়ায় রাজ্যে (West Bengal) করোনা-আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ১৫। সংক্রমিতদের মধ্যে দু’টি শিশু ও এক জন কিশোরও রয়েছে।  

আক্রান্তদের বাড়ি নদিয়া জেলার তেহট্টে। দু’টি আক্রান্ত শিশুর বয়স যথাক্রমে ছ’ বছর এবং ন’ মাস। দু’টি শিশুই কন্যাসন্তান। আক্রান্ত কিশোরের বয়স ১১ বছর। বাকি দু’ জন ৪৫ বছর ও ২৭ বছরের। এঁরা দু’ জনেই মহিলা।   

রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, আক্রান্ত ওই পরিবারের আরও চার জনের লালারসের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। আপাতত পরিবারের সকলকে বাড়িতেই কোয়ারান্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে।

এ দিকে ওই পরিবারের সংস্পর্শে যাঁরা এসেছেন, তাঁদের চিহ্নিত করার কাজ শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে স্বাস্থ্য দফতরের প্রতিনিধিদল আগামীকাল শনিবার তেহট্টে যাচ্ছেন বলে জানা গিয়েছে।   

স্বাস্থ্য দফতরের খবর, সম্প্রতি দিল্লিতে ওই পরিবারের সদস্যরা ইংল্যান্ড থেকে আসা এক ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছিলেন। ইংল্যান্ড-ফেরত ওই ব্যক্তিও কোভিড-১৯-এ (COVID-19) সংক্রমিত। তিনি দিল্লির এক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ওই ব্যক্তির কাছ থেকেই তেহট্টের পরিবারে সংক্রমণ ছড়িয়েছে বলে স্বাস্থ্য আধিকারিকরা অনুমান করছেন।  

আরও পড়ুন: কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন

স্বাস্থ্য আধিকারিকরা জানান, দিল্লিতে তাঁরা যে ইংল্যান্ড থেকে আসা এক ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছিলেন, সে কথা জানাননি। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে স্বাস্থ্য আধিকারিকরাই তাঁদের হোম কোয়ারান্টাইনে রেখে তাঁদের লালরসের নমুনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করেন এবং তা পজিটিভ আসে। তেহট্টের ওই পরিবারের আশপাশের বাসিন্দাদেরও হোম আইসোলেশনে থাকতে বলা হয়েছে।

রাজ্য স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, এখনও পর্যন্ত রাজ্যে ৩৩০ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। তার মধ্যে ৩১৫ জনেরই নেগেটিভ এসেছে। হোম কোয়ারান্টাইনে আছেন ২৫০৮০ জন। ১৮১৯ জনের ১৪ দিনের নজরদারির মেয়াদ শেষ হয়েছে। বিভিন্ন হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি রয়েছেন ২০৮ জন।

রাজ্যের সরকারি হাসপাতালগুলিতে ১০৭১টি আইসোলেশন বেড তৈরি করা হয়েছে। আরও বেড বাড়ানো হচ্ছে। পাশাপাশি বেসরকারি হাসপাতালগুলিকেও আইসোলেশন বেড তৈরির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Continue Reading

নদিয়া

দোলের দিন মর্মান্তিক ঘটনা, পুকুরে স্নান করতে নেমে তলিয়ে গেল চার স্কুল পড়ুয়া

তাহেরপুর (নদিয়া): সকালে মজা করে দোল খেলেছিল চার জন। এর পরেই পুকুরে নামার সিদ্ধান্ত নেয় তারা। যদিও কেউই সাঁতার জানত না। আর সেটাই কাল হল।

দোল খেলার পর স্নান করতে গিয়ে ডুবে মৃত্যু হল ওই ৪ জনের। তাদের সকলের বয়স ১১ থেকে ১৪ বছরের মধ্যে। সোমবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটে নদিয়ার তাহেরপুর (Taherpur) থানা এলাকার ঝামালডাঙা গ্রামে। পুলিশ সূত্রে খবর, মৃতের নাম সানি প্রামাণিক, স্নেহা প্রামাণিক, রাখি হালদার ও শুভ হালদার।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, রাখি ও শুভ ভাইবোন। দুপুর বেলা স্নান করতে নেমে পুকুরে গামছা ভাসতে দেখেন এক বাসিন্দা। এর পর তাঁর সন্দেহ হয়। অন্য দিকে ওই কিশোর-কিশোরীরা বাড়ি না ফেরায় তাদের পরিবারের লোকজন খুঁজতে বেরিয়ে পড়েন।

এর পর ওই পুকুরে খোঁজাখুঁজি শুরু হয়। প্রথমে শুভর দেহ উদ্ধার হয়। এর পর একে একে সকলের দেহ উদ্ধার হয়। তাদের সকলকে তড়িঘড়ি আড়ংঘাটা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে যাওয়ার পর চিকিৎসকরা তাদের মৃত বলে ঘোষণা করেন।

আরও পড়ুন চিৎপুরে নয়া লেভেল ক্রসিং দিয়ে শুরু গাড়ি চলাচল, যানবাহনের চাপ কমাতে নতুন বিকল্প বাতলে দিল পুলিশ

দোলের দিন এমন মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে গোটা গ্রামে।

Continue Reading
Advertisement
কেনাকাটা7 hours ago

শুরু হচ্ছে অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল, জেনে নিন কোন জিনিসে কত ছাড়?

বাংলাদেশ8 hours ago

হত্যা মামলা করলেন মেজর সিনহার বড়ো বোন শারমিন, সেনাপ্রধান ও আইজিপি-র ঘটনাস্থল পরিদর্শন

রাজ্য10 hours ago

রেকর্ড সংখ্যক টেস্টের দিন আক্রান্তের সংখ্যায় রেকর্ড, তবে সংক্রমণের হার কিছুটা কম

দেশ11 hours ago

রামমন্দির ইস্যু নিয়ে রাজনীতি তবে কি শেষ?

বাংলাদেশ11 hours ago

বেইরুটের বিস্ফোরণে ৩ বাংলাদেশি মৃত, ২১ নৌসেনা-সহ আহত ৭৮

শরীরস্বাস্থ্য12 hours ago

৬টি ভিন্ন পথে কোভিড-১৯ সংক্রমণ, দেখে নিন কোন পর্যায়ে কী

প্রযুক্তি13 hours ago

শাওমি, বাইডু-সহ আরও বেশ কয়েকটি চিনা সংস্থার অ্যাপ নিষিদ্ধ করল কেন্দ্র

দেশ13 hours ago

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী ‘আদিত্য যোগীনাথ’, টুইটারে হাসির রোল!

দেশ22 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৫২৫০৯, সুস্থ ৫১৭০৬

গাড়ি ও বাইক16 hours ago

পেট্রোলচালিত গাড়ি ‘এস-ক্রস’ বাজারে নিয়ে এল মারুতি সুজুকি

দেশ20 hours ago

রুপোর ইট দিয়ে রামমন্দিরের শিলান্যাস করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

ক্রিকেট2 days ago

বিতর্কের মধ্যেই আইপিএলের সঙ্গত্যাগ করল চিনা সংস্থা ভিভো

ক্রিকেট20 hours ago

আইপিএলের নিয়মাবলি: গুচ্ছের টেস্টিং, চলা-ফেরায় নিয়ন্ত্রণ, একটি দলের জন্য একটি হোটেল

রাজ্য3 days ago

লকডাউনের সূচি ফের বদলাল রাজ্যে

দেশ3 days ago

কমল নতুন আক্রান্তের সংখ্যা, বাড়ল সুস্থতার হার, রোগীবৃদ্ধির হারও সর্বনিম্ন স্তরে

ক্রিকেট23 hours ago

অঘটন! ৩২৯ তাড়া করে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের হারাল আয়ারল্যান্ড

রবিবারের খবর অনলাইন

কেনাকাটা

কেনাকাটা7 hours ago

শুরু হচ্ছে অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল, জেনে নিন কোন জিনিসে কত ছাড়?

খবরঅনলাইন ডেস্ক : মাঝে আরমাত্র ক’টা ঘণ্টা, শুরু হচ্ছে অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল। চলবে ২ দিন। চলতি মাসের ৬ ও...

things things
কেনাকাটা6 days ago

করোনা আতঙ্ক? ঘরে বাইরে এই ১০টি জিনিস আপনাকে সুবিধে দেবেই দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতিতে ঘরে এবং বাইরে নানাবিধ সাবধানতা অবলম্বন করতেই হচ্ছে। আগামী বেশ কয়েক মাস এই নিয়মই অব্যাহত...

কেনাকাটা1 week ago

মশার জ্বালায় জেরবার? এই ১৪টি যন্ত্র রুখে দিতে পারে মশাকে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: একে করোনা তায় আবার ডেঙ্গুর প্রকোপ শুরু হয়েছে। এই সময় প্রতি বারই মশার উৎপাত খুবই বাড়ে। এই বারেও...

rakhi rakhi
কেনাকাটা2 weeks ago

লকডাউন! রাখির দারুণ এই উপহারগুলি কিন্তু বাড়ি বসেই কিনতে পারেন

সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে মনের মতো উপহার কেনা একটা বড়ো ঝক্কি। কিন্তু সেই সমস্যা সমাধান করতে পারে অ্যামাজন। অ্যামাজনের...

কেনাকাটা2 weeks ago

অনলাইনে পড়াশুনা চলছে? ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ৪০ হাজার টাকার নীচে ৬টি ল্যাপটপ

ইনটেল প্রসেসর সহ কোন ল্যাপটপ আপনার অনলাইন পড়াশুনার কাজে লাগবে জেনে নিন।

কেনাকাটা2 weeks ago

করোনা-কালে ঘরে রাখতে পারেন ডিজিটাল অক্সিমিটার, এই ১০টির মধ্যে থেকে একটি বেছে নিতে পারেন

শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বুঝতে সাহায্য করে এই অক্সিমিটার।

কেনাকাটা3 weeks ago

লকডাউনে সামনেই রাখি, কোথা থেকে কিনবেন? অ্যামাজন দিচ্ছে দারুণ গিফট কম্বো অফার

খবরঅনলাইন ডেস্ক : সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে দোকানে গিয়ে রাখি, উপহার কেনা খুবই সমস্যার কথা। কিন্তু তা হলে উপায়...

laptop laptop
কেনাকাটা3 weeks ago

ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ২৫ হাজার টাকার মধ্যে এই ৫টি ল্যাপটপ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : কোভিভ ১৯ অতিমারির প্রকোপে বিশ্ব জুড়ে চলছে লকডাউন ও ওয়ার্ক ফ্রম হোম। অনেকেই অফিস থেকে ল্যাপটপ পেয়েছেন।...

কেনাকাটা4 weeks ago

হ্যান্ডওয়াশ কিনবেন? নামী ব্র্যান্ডগুলিতে ৩৮% ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯ এর সঙ্গে লড়াই এখনও জারি আছে। তাই অবশ্যই চাই মাস্ক, স্যানিটাইজার ও হ্যান্ডওয়াশ।...

কেনাকাটা4 weeks ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

নজরে

Click To Expand