অন্য বেঞ্চে সরতে পারে নন্দীগ্রাম মামলা, আশ্বাস কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতির

0
ভবানীপুরে উপনির্বাচন ৩০ সেপ্টেম্বর। কমিশনের হলফনামা চাইল হাইকোর্ট। প্রতীকী ছবি

খবর অনলাইন ডেস্ক: শেষ হওয়া বিধানসভা নির্বাচনে গণনায় কারচুপি-সহ একাধিক অভিযোগ তুলে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেছেন নন্দীগ্রামের তৃণমূল প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিচারপতি কৌশিক চন্দের বেঞ্চে সেই মামলার শুনানি শেষ হল শুক্রবার।

গত ১৮ জুন এই মামলার শুনানি শুরু হয়েছিল। জন প্রতিনিধি আইন অনুযায়ী নির্বাচনী মামলার আবেদনকারীকে আদালতে উপস্থিত থাকতে হবে বলে জানান বিচারপতি। ওই দিন শুনানি এক সপ্তাহের জন্য পিছিয়ে দেওয়া হয়। এ দিনের শুনানিতে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর হয়ে সওয়াল করেন অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি।

কলকাতা হাইকোর্টের আইনজীবীদের একাংশের দাবি, বিচারপতি কৌশিক চন্দ বিজেপির ‘সক্রিয় সদস্য’ ছিলেন। একই অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল। এ দিনের শুনানিতে অভিষেক বলেন, “আপনাকে অনুরোধ করব মামলা থেকে সরে যান”।

অন্য বেঞ্চে মামলা সরানোর আবেদনের বিষয়ে বিচারপতি এ দিন বলেন, “১৮ জুন শুনানির সময়ে আপনারা এ বিষয়ে কিছু উল্লেখ করলেন না। আমি বাড়ি ফেরার পর জানতে পারলাম আমার বিরুদ্ধে সংবাদ মাধ্যমে বিচার হয়ে গিয়েছে”।

একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে, বিজেপির লিগ্যাল সেলের কর্মসূচিতে উপস্থিত রয়েছেন বিচারপতি। সেখানে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং বিজেপিরই এক নেত্রী উপস্থিত রয়েছেন। এ ব্যাপারে বিচারপতি বলেন, “হ্যাঁ, লক্ষ্য করেছি। বিজেপি সদস্যদের সঙ্গে আমরা ছবি টুইট করা হয়েছে”। একই সঙ্গে তিনি অভিষেককে উদ্দেশ্য করে বলেন, “আপনাদেরও রাজনৈতিক যোগ রয়েছে। আপনি কংগ্রেসের। মুখোপাধ্যায় বিজেপি-র। তার পরও মুখ্যমন্ত্রীর হয়ে মামলা লড়ছেন। এখন বিচারপতির পূর্ব জীবন নিয়ে বলতেই পারেন”।

এর পরেও অভিষেক বলেন, “বিচারকের ভূমিকা পবিত্র। আইনজীবীর থেকে আলাদা”। প্রত্যুত্তরে বিচারপতি বলেন, “আচ্ছা। ঠিক আছে। আপনাদের দাবি বিবেচনা করছি। আপাতত এই নির্দেশ মুলতুবি থাকল”।

আরও পড়তে পারেন: ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে দ্বাদশ শ্রেণির ফল প্রকাশ করতে হবে সব রাজ্য বোর্ডকে, নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন