প্রতীকী ছবি

মালদা: প্রাকৃতিক গ্যাসের সন্ধান পাওয়া গেল মালদার রতুয়া ব্লকে। এই খবর নিশ্চিত করেছে ওএনজিসি।

প্রাকৃতিক গ্যাসের ভাণ্ডার রয়েছে, এই আন্দাজ করেই রতুয়ার কাহালা গ্রাম পঞ্চায়েতের নরোত্তমপুরে মঙ্গলবার রাত থেকে পরীক্ষা শুরু করে ওএনজিসির প্রতিনিধি দল। রাতেই কেন্দ্রীয় এই সংস্থা নিশ্চিত হয়ে যায়, নরোত্তমপুরে রক্ষিত রয়েছে প্রাকৃতিক গ্যাসের ভাণ্ডার। প্রাকৃতিক গ্যাসের সন্ধান মেলায় উচ্ছ্বসিত এলাকার মানুষজনের সঙ্গে ব্লক প্রশাসনিক কর্তারাও।

উল্লেখ্য, নভেম্বর মাসেই নরোত্তমপুর গ্রামে কয়েক দিন ধরেই অজানা গ্যাসের গন্ধে আতঙ্ক ছড়াতে শুরু করে। নরোত্তমপুর কাহালা হাইস্কুলের পাশে বিশাল মাঠ। স্থানীয়রা জানান, খেলাচ্ছলে স্কুলের মাঠে একটি গর্ত খোঁড়ে গ্রামের ছোটো ছোটো ছেলেরা। সেই গর্ত থেকেই গ্যাসের ঝাঁঝালো গন্ধ উঠতে শুরু করে। গ্যাসের গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে ১০০ মিটার এলাকা জুড়ে। যে মাঠ থেকে গন্ধের উৎপত্তি, সেই জমিটি সৌমিত্র সেন নামে স্থানীয় এক ব্যক্তির। গন্ধ ধীরে ধীরে বাড়তে থাকায় তাঁরা বিষয়টি প্রশাসনের নজরে নিয়ে আসেন।

আরও পড়ুন ‘সব টাকা ফেরত দেওয়ার’ আবেদন বিজয় মাল্যর

এর পরেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়। আন্দামান থেকে ওএনজিসির একটি প্রতিনিধি দল রতুয়ায় এসে পৌঁছোয়। দলের নেতৃত্বে ছিলেন সংস্থার চিফ জিওলজিস্ট ভি সত্যমূর্তি। তাঁরা মঙ্গলবার অনেক রাত পর্যন্ত ওই জায়গায় গর্ত খুঁড়ে পরীক্ষা চালান। পরে সত্যমূর্তি জানান, নরোত্তমপুরে হাইড্রোকার্বনের উপস্থিতি টের পাওয়া গিয়েছে। তবে এটা কী ধরনের গ্যাস সেই বিষয়ে তাঁরা এখনও নিশ্চিত নন। তার জন্য তাঁদের আরও পরীক্ষা চালাতে হবে। মাটির আরও গভীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করতে হবে। তবে তার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমোদন প্রয়োজন। তাঁরা এর জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানাচ্ছেন।

তবে এই ঘটনায় রীতিমতো উচ্ছ্বসিত এলাকার মানুষজন। এই প্রাকৃতিক গ্যাসকে কেন্দ্র করে আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নতির স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন বাসিন্দারা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here