নেতাজি থাকলে সিএএ-এনআরসির কাগজ ছুড়ে ফেলে দিতেন: অধ্যাপক

0

ওয়েবডেস্ক: “আর কয়েক বছর পরেই ভারতের স্বাধীনতার প্ল্যাটিনাম জুবিলি মহাধুমধাম করে পালিত হবে, সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু প্রশ্ন উঠবে, নেতাজি যে স্বাধীন ভারতের স্বপ্ন দেখেছিলেন, তা কি সফল হয়েছে? উত্তর একটাই- না। কারণ, এমন সব মানুষের হাতে দেশের কেন্দ্রীয় এবং রাষ্ট্রীয় শাসন ভার চলে গিয়েছে, দেশের স্বাধীনতা নিয়ে যাঁদের পূর্বসূরিদের বিন্দুমাত্র আগ্রহ না থাকলেও তাঁরা বরাবর স্বাধীনতা সংগ্রামের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকা করে গিয়েছেন”, বললেন রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের প্রধান অধ্যাপক সুস্নাত দাশ।

অধ্যাপক বলেন, “সংবিধানের একাধিক ধারা মানুষকে সমাধিকার দিয়েছে, সেই জায়গায় নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের মতো বেশ কিছু আইন নিয়ে এসে আজ শাসক দেশকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। এই আইনের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করছে। প্রশ্ন উঠছে কে নাগরিক? তা হলে কাদের নাগরিকত্ব রয়েছে? তা হলে যে সব ভারতীয় এ মুহূর্তে পাশপোর্টের নিরিখে লন্ডন, ইউরোপ, আমেরিকায় বাস করছেন, তাঁরাও কি ভারতীয় নাগরিক নন । এগুলো মনে হয় পাগলের প্রলাপ। কিন্তু এগুলি আসলে পাগলের প্রলাপ নয়। এগুলির নেপথ্যে অত্যন্ত সুকৌশলি রাজনৈতিক অভিসন্ধি রয়েছে বলে আমি এবং কোটি কোটি ভারতবাসীও মনে করেন”।

বর্তমান পরিস্থিতি কীসের ইঙ্গিত দিচ্ছে উল্লেখ করে অধ্যাপকের স্পষ্ট মন্তব্য, “এ সব জিনিস সুভাষচন্দ্র থাকলে ছুড়ে ফেলে দিতেন। এবং যে সব ক্রিমিনালরা এই সব কর্মকাণ্ড ঘটাচ্ছে, তাতে আগামী দিনে ভারতবর্ষ একটা গণবিপ্লবের দিকে পৌঁছে যাবে। শুধু সুভাষচন্দ্র বসু নন, তাঁর পথ অনসরণ করে যে সমস্ত নেতৃত্ব চলতেন, যাঁদের একটা রাজনৈতিক প্রজ্ঞা ছিল, দূরদৃষ্টি ছিল, তাঁদের অবর্তমানে অতিনিম্নমানের রাজনৈতিকরা ভারতকে সর্বনাশের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তবে সমাজের সর্বস্তরের মানুষের এর প্রতিরোধে সচেষ্ট। আগামী দিনে আর রক্তপাতেরও সম্মুখীন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু ইতিহাস এ ভাবেই এগিয়ে চলে”। দেখুন নীচের ভিডিওয়-

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.