কলকাতা: মাধ্যমিক পরীক্ষা নির্বিঘ্নে করতে এবং প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনার এড়াতে নতুন নিয়ম আনল মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। প্রধান শিক্ষকের ঘরে নয়, ২০১৯-এ পরীক্ষা শুরুর পাঁচ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের সামনেই খোলা হবে প্রশ্নপত্রের সিল। এই খবর দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গ মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়।

উল্লেখ্য, পরীক্ষার দেড় ঘণ্টা আগে প্রশ্নপত্র খুলে ফেলেছিলেন ময়নাগুড়ির সুভাষনগর হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক। সেই ঘটনা থেকেই শিক্ষা নিয়ে এই নিয়ম। কল্যাণময়বাবু বলেন, “ময়নাগুড়ির ঘটনা যাতে আর না ঘটে তার জন্য এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।”

উল্লেখ্য, ২০১৮-এর মাধ্যমিক পরীক্ষার আগে পর্ষদ নির্দেশিকা জারি করেছিল যে, সিল খোলার পর প্রধান শিক্ষকের ঘর থেকে মুখবন্ধ খামে পরীক্ষার্থীদের ঘরে প্রশ্নপত্র নিতে যেতে হবে। এমনকি, পরীক্ষা শুরুর ঠিক কুড়ি মিনিট আগে রাজ্যের সমস্ত স্কুলে এক সঙ্গে খুলতে হবে মাধ্যমিকের প্রশ্নপত্র। কিন্তু লাভ হয়নি। পরীক্ষার দেড় ঘণ্টা আগেই প্রধান শিক্ষক প্রশ্নপত্র খুলে ফেলেছিলেন বলে অভিযোগ। এই ঘটনা নিয়ে বিস্তর জলঘোলাও হয়। অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষককে সাসপেন্ড করা হয়।

সাধারণ ভাবে পরীক্ষা শুরুর কয়েক ঘণ্টা আগে সংশ্লিষ্ট পরীক্ষাকেন্দ্রে সিল করা বান্ডিলে মাধ্যমিকের প্রশ্নপত্র পাঠিয়ে দেয় পর্ষদ। প্রশ্নপত্রের বান্ডিল খোলা হয় প্রধান শিক্ষকের ঘরে। তার পর প্রশ্নপত্র খোলা অবস্থায় হাতে নিয়ে পরীক্ষার্থীদের ক্লাসে যেতেন পরীক্ষকরা। ২০১৮ সালে মুখবন্ধ খামে পরীক্ষার্থীদের ঘরে প্রশ্নপত্র নিয়ে যাওয়ার নির্দেশিকা জারি করেছিল মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। আর এ বার নিয়ম আরও কড়া। ২০১৯ সালে সিল করা বান্ডিলে মাধ্যমিকের প্রশ্নপত্র সরাসরি পৌঁছে যাবে পরীক্ষার্থীদের ঘরে। পরীক্ষার শুরুর ঠিক পাঁচ মিনিট আগে পড়ুয়াদের সামনেই খুলতে হবে প্রশ্নপত্র।

আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। পরীক্ষা সুষ্ঠু ভাবে চালানোর জন্য জেলাভিত্তিক বৈঠক শুরু হবে বুধবার থেকে। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের আশা, প্রশ্নপত্র খোলার নতুন নিয়মের ফলে মাধ্যমিক পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের মতো ঘটনা একদম বন্ধ করা যাবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here