ছবি ইডির টুইটার থেকে নেওয়া।

বেলঘরিয়া: বৃহস্পতিবার ভোরে অবশেষে গণনা শেষ করলেন ব্যাঙ্ক কর্মীরা। প্রায় ১০ ঘণ্টা ধরে বেলঘরিয়ায় অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের ফ্ল্যাটে চলল উদ্ধার হওয়া টাকা গোনার কাজ। তবে শেষ পর্যন্ত কত টাকা ওই ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হল, তা নিয়ে ইডি খোলসা করে কিছু বলেনি এখনও পর্যন্ত।

টাকার পরিমাণ নিয়ে বিভিন্ন সূত্রে বিভিন্ন খবর আসছে। একটি সূত্রের যেমন দাবি, ২০ কোটি ছাড়িয়ে আরও কিছুদূর যেতে পারে ওই টাকার পরিমাণ। তবে ইডির তরফে আনুষ্ঠানিক বিবৃতি না-দেওয়া পর্যন্ত কোনও তথ্যই সমর্থনযোগ্য নয়। ইডি আপাতত জানিয়েছে যে উদ্ধার হওয়া টাকার পরিমাণ ২০ কোটি।

স্তূপীকৃত টাকার সঙ্গেই ওই ফ্ল্যাট থেকে মিলেছে প্রচুর সোনার বাট এবং অলঙ্কার। একটি সূত্রে দাবি, তিন কেজি সোনা উদ্ধার করা হয়েছে। আবার অন্য একটি সূত্রের দাবি, পাঁচ কেজি। এ ক্ষেত্রেও বৃহস্পতিবার ভোর পর্যন্ত ইডির তরফে কোনো আনুষ্ঠানিক বিবৃতি বা ‘সিজার লিস্ট’ দেওয়া হয়নি।

স্টেট ব্যাঙ্কের কর্মীদের ডেকে এনে মোট চারটি বৃহদাকার যন্ত্রে চলছিল টাকা গোনা। কলকাতার একটি শাখা থেকে যন্ত্রগুলি বেলঘরিয়ার ফ্ল্যাটে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল বলে ইডি সূত্রে খবর। সাধারণত ওই যন্ত্র ব্যবহার হয় ‘কারেন্সি চেস্ট’-এ। ইডির একটি সূত্রের দাবি, প্রথমে পাঁচটি সাধারণ যন্ত্র নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। কিন্তু টাকার পরিমাণ দেখে বড়ো মাপের যন্ত্র আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়

বুধবার দুপুরে বেলঘরিয়ার ওই ফ্ল্যাটের তালা ভেঙে সেখানে ঢোকেন ইডির তদন্তকারী অফিসারেরা। সেখানেও টাকার পাহাড় দেখে তাঁরা সিদ্ধান্ত নেন বিশেষ যন্ত্র আনানোর। অর্পিতাকে জেরা করেই তাঁরা ওই টাকার হদিস পান বলে সূত্রের বক্তব্য।

বুধবার সন্ধ্যা সওয়া ৬টা নাগাদ শুরু হয় টাকা গোনা। যা শেষ হতে হতে বৃহস্পতিবার ভোর চারটে হয়ে যায়। নোটগণনার সাক্ষী হিসেবে একজনকে উপরে নিয়ে গিয়েছিলেন তদন্তকারী অফিসারেরা। তার আগেই ২০টি ট্রাঙ্ক-সহ একটি বড়ো ট্রাক নিয়ে আসা হয়েছিল ওই আবাসনে। ওই ট্রাঙ্কে ভরেই উদ্ধার-করা টাকা নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

ইডি সূত্রের খবর, কোটি কোটি টাকার সঙ্গেই ফ্ল্যাটে পাওয়া গিয়েছে প্রচুর সোনার বাট এবং অলঙ্কার। উদ্ধার হয়েছে রৌপ্যমুদ্রাও। সব মিলিয়ে যার বাজারমূল্য তিন কোটি টাকা হতে পারে। ফ্ল্যাট থেকে বেশ কিছু দলিলও পাওয়া গিয়েছে বলে ইডি সূত্রে খবর। তবে ইডির তরফে দলিল বা নথি নিয়েও কোনো আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দেওয়া হয়নি।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার টালিগঞ্জের একটি আবাসনে অর্পিতার ফ্ল্যাট থেকে নগদ প্রায় ২২ কোটি টাকা, সোনার গয়না এবং বিদেশি মুদ্রা উদ্ধার করে ইডি। তার পর জানা যায়, বেলঘরিয়াতেও ফ্ল্যাট রয়েছে অর্পিতার। বুধবার সেখানেই অভিযান চালায় ইডি

তবে বিপুল পরিমাণ নগদ টাকা উদ্ধারের অভিযান বেলঘরিয়াতেই শেষ হয়ে যাবে কি না, তা নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না। অর্পিতার বা পার্থর আরও কোনো সম্পত্তি রয়েছে কি না, অর্পিতার মালিকানাধীন বিনোদন সংস্থায় তল্লাশি চালালে সেখানেও এমন টাকা পাওয়া যাবে কি না, তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে ইতিমধ্যেই কৌতূহল ছড়িয়েছে।

বুধবার বেলঘরিয়ার পশাপাশিই বালিগঞ্জ প্লেস এবং কসবার রাজডাঙা মেন রোডের দু’টি বাড়িতে তল্লাশি চালায় ইডি। সেখান থেকে প্রচুর পরিমাণ নথিপত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে খবর।

আরও পড়তে পারেন:

অর্পিতার বেলঘরিয়ার ফ্ল্যাটেও ‘টাকার পাহাড়’, সোনা-রুপো, জমির নথি

পার্থ-কাণ্ডে আর কোনো তদন্তের দরকার নেই, স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন শুভেন্দু অধিকারী

‘২১ জন তৃণমূল বিধায়ক আমার সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন’, কলকাতায় এসে দাবি মিঠুন চক্রবর্তীর

‘মহারাষ্ট্র ভেঙে বাংলায় নজর, অত সস্তা নয়’, বিজেপি-কে হুঁশিয়ারি মমতার

৩ দিনে ১২ ঘণ্টা! ১০০টি প্রশ্নের জবাব দিয়ে ইডি দফতর থেকে বেরোলেন সোনিয়া গান্ধী, নেই নতুন সমন

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন