Connect with us

ভ্রমণের খবর

বাড়ুক বাস, তৈরি হোক শৌচাগার, তা হলে পর্যটক বাড়বে ডেলোয়, দাবি স্থানীয়দের

নিজস্ব সংবাদদাতা, ডেলো (কালিম্পং): শিলিগুড়ি থেকে দার্জিলিং এবং কালিম্পং-এর বাসের কোনো অভাব নেই। পর্যটকরা সকালে শিলিগুড়ি থেকে এই সব জায়গায় গিয়ে বিকেলের মধ্যেই ফিরে আসতে পারেন। কিন্তু ডেলোর সঙ্গে শিলিগুড়ির সরাসরি কোনো যোগাযোগ ব্যবস্থা নেই। ফলে ইচ্ছে করলেও কেউ এক দিনে ডেলোয় গিয়ে ফিরে আসতে পারবেন না।

সমস্যা আরও আছে। ডেলোয় কোনো শৌচাগার নেই। ফলে গাড়ি নিয়ে যাঁরা ছুটির দিনে যান তাঁরাও সমস্যায় পড়েন। ট্যুর অপারেটর সংগঠনের দাবি পর্যটকদের স্বার্থে অবিলম্বে এই ব্যবস্থাগুলি চালু করতে হবে।

এখন শিলিগুড়ি থেকে ডেলোর মধ্যে একটি মাত্র সরকারি বাস চলাচল করে। সকাল সাড়ে ছটায় শিলিগুড়ি থেকে ছেড়ে বেলা সাড়ে নটার মধ্যে বাসটি ডেলোয় পৌঁছোয়। আবার বেলা সাড়ে এগারোটার সময় ডেলো থেকে ছেড়ে বাসটি বেলা তিনটের মধ্যে শিলিগুড়িতে ফিরে আসে। কেউ যদি মনে করেন সকালে গিয়ে ডেলোয় সারা দিন কাটিয়ে বিকেলে ফিরবেন তার উপায় নেই। উত্তরবঙ্গের ট্যুর আপারেটরদের সংগঠনের সদস্যরা মনে করেন, সকালে গিয়ে বিকেলে ফেরার ব্যবস্থা থাকলে ডেলোয় পর্যটকদের ভিড় বাড়বে।

জলপাইগুড়ি জেলা ট্যুর অপারেটর ওয়েলফেয়ার অ্যাসোশিয়েশনের সম্পাদক সব্যসাচী রায় বলেন, “আমাদের কাছে বহু পর্যটক এক দিনে ডেলোয় গিয়ে ফিরে আসা যায় কিনা জানতে আসেন। আমরা না বলে দিই। ডেলোয় যাওয়ার জন্য যদি আরও একটি বাস চালু করা যায় তা হলে পর্যটকদের সংখ্যা বাড়বে। ডেলোয় কোনো শৌচাগার নেই। এটাও একটা বড়ো সমস্যা।”

ভোরের কাঞ্চনজঙ্ঘায় পড়া সূর্যের আলো শুধু টাইগার হিল থেকেই দেখা যায় না, কালিম্পং-এর এই ডেলো থেকেও দেখা যায়। তবে টাইগার হিলে যেমন কাঞ্চনজঙ্ঘার পাশাপাশি সূর্যকেও দেখা যায়, ডেলোয় সে রকম নয়। কাঞ্চনজঙ্ঘার চূড়ায় পড়া সুর্যের আলো এবং তার ফলে কাঞ্চনজঙ্ঘার রঙ পাল্টানো দেখা যায়। ডেলোয় যাঁরা রাত কাটান, তাঁরাই এই দৃশ্য উপভোগ করেন।

কিন্তু আকাশ পরিষ্কার থাকলে এখানে দিনভর আপনার মন ভুলিয়ে দেবে কাঞ্চনজঙ্ঘা। সেটাই বা কম কি? ৫ হাজার ৫৯০ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত ডেলোয় পার্কের মধ্যে ছাউনিতে ঢাকা বসার জায়গা আছে। সেখানে বসে দিনভর কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখা একটা দারুণ অভিজ্ঞতা। কুয়াশায় ঢাকা ডেলোরও একটা আলাদা সৌন্দর্য্য আছে।

ডেলো থেকে দেখা যাচ্ছে তিস্তা।

ডেলোয় সরকারি ট্যুরিষ্ট লজ সংলগ্ন এলাকায় যে পার্ক আছে তার গা বেয়ে এঁকেবেঁকে পাথরে তৈরি পায়ে চলা পথ আছে। পার্কে ঘুরতে গিয়েও এক দিকে সঙ্গী হবে কাঞ্চনজঙ্ঘা। অনেক দূরে নীচে দিয়ে বয়ে চলেছে সরু ধারার তিস্তা। পার্কে গাছগাছালি, বাচ্চাদের খেলার জায়গা, বসার জায়গা সবই আছে। পরিষ্কার দিনে এখানে কাঞ্চনজঙ্ঘার উপস্থিতি অন্য দিকে তাকাতেই দেবে না। সূর্য মধ্যগগন থেকে যখন পশ্চিমে হেলতে শুরু করবে কাঞ্চনজঙ্ঘার আর এক দিকে তখন আলো পড়বে।

তবে সমস্যা রয়েছে ডেলোয়। শৌচাগারের অভাব ছাড়াও এখানে ভালো কোনো রেস্তোঁরা নেই। এক দিনে গিয়ে ফিরে আসতে চাইলে খাবারদবার নিয়ে যাওয়াই ভালো। স্থানীয় বাসিন্দা বুধন রাই, দোকানের মালিক মেনকা ছেত্রী বলেন, “এই তো পিকনিকের দিন শুরু হচ্ছে। এখন রোজই গাড়ি নিয়ে প্রচুর পর্যটক আসবেন। তাঁরা সারা দিন এখানে কাটিয়ে খাওয়া দাওয়া করে ফিরে যান। নিজেরাই খাবার নিয়ে আসেন। এখানে স্ন্যাক্স কিনতে হলে আমাদের কাছে আসেন।”

কিন্তু প্রকৃতি ডাক দিলে তখনই সমস্যা হয়। রাজ্য সরকারি এবং ডেলো পার্কের তত্ত্বাবধায়ক গোর্খাল্যান্ড টেরিটোরিয়াল অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (জিটিএ) কাছে তাঁদের আবেদন এখানে কয়েকটি শৌচাগার হোক। বাসের সংখ্যাও বাড়ুক। তা হলে সাধারণ পর্যটকের আরও আনাগোনা বাড়বে।

দেশ

‘করোনা ছড়াতে পারেন পর্যটকরা,’ সোমবার খুলছে না তাজমহল

আগরা: দেশের বিভিন্ন প্রান্তে সোমবার থেকে তাদের দায়িত্বে থাকা সৌধগুলির দরজা খুলে দিচ্ছে আর্কিওলজিকাল সার্ভে অব ইন্ডিয়া (Archeological Survey of India)। সেই মতো তাজমহলের (Taj Mahal) দরজা খুলে যাওয়ারও আশা করা হচ্ছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে বেঁকে বসেছে প্রশাসন।

নতুন নির্দেশিকায় জেলা প্রশাসন জানিয়ে দিয়েছে, সোমবার তাজমহল-সহ আগরার বিভিন্ন সৌধের দরজা খোলা হবে না। তাদের আশঙ্কা, পর্যটকের সমাগম বাড়লে আগরা করোনা-পরিস্থিতি উদ্বেগজনক হয়ে যেতে পারে।

শুধু তাজ মহলই নয়, এ দিন খুলবে না আগরা ফোর্ট, আকবরের সমাধি-সহ ওই অঞ্চলের আরও বেশ কয়েকটি সৌধ।

আগরার করোনা-পরিস্থিতি, বিশেষ ভালো নয়। গত চার দিনে শহরে ৫৫ জনের শরীরে করোনার হদিশ মিলেছে। শহর এবং তার আশেপাশে ৭১টি কনটেনমেন্ট জোন রয়েছে। জেলা প্রশাসনের আশঙ্কা, পর্যটকদের সমাগম বাড়লে স্থানীয়দের মধ্যে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কাও থেকে যায়।

তবে তাজমহল বন্ধ থাকলেও দেশের অন্য প্রান্তে এএসআইয়ের সৌধগুলিই সোমবারই খুলছে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

Continue Reading

দেশ

নতুন নিয়মে খুলছে তাজমহল!

সৌধগুলিতে প্রবেশের জন্য প্রত্যেক দর্শনার্থীকে অবশ্যই মাস্ক পরতে হবে। প্রবেশ পথে থাকবে থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা।

ওয়েবডেস্ক: প্রায় সাড়ে তিন মাস বন্ধ থাকার পর ফের খুলছে তাজমহল। সূত্রের খবর, কোভিড-১৯ মহামারির (Covid-19 pandemic) মধ্যেই আগামী ৬ জুলাই থেকে ফের দর্শনার্থীদের প্রবেশাধিকার দেওয়া হতে পারে।

আগরার (Agra) পর্যটন শিল্পের বৃহত্তম অংশ নির্ভরশীল তাজমহলের (Taj Mahal) উপরেই। ফলে তা খুলে দেওয়া হলে এই শিল্পে নতুন করে প্রাণসঞ্চার হতে পারে।

আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়ার (ASI) একটি সূত্র জানাচ্ছে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধের যাবতীয় পদক্ষেপ বজায় রেখেই আনলক-২ পর্বেই তাজমহল খুলে দেওয়ার আশা করা হচ্ছে। তবে এ ব্যাপারে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে বিশেষ পদ্ধতি অবলম্বন করা হবে।

কী ভাবে খোলা হবে?

দু’টি শিফটে খোলা হতে পারে তাজমহল। প্রত্যেক শিফটে সর্বাধিক পাঁচ হাজার এবং আড়াই হাজার করে দর্শনার্থীকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হতে পারে।

একই ভাবে আগরা দুর্গেও সকালের শিফটে ১২০০ এবং দুপুরের শিফটে ১৩০০ দর্শনার্থীকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হতে পারে।

সৌধগুলিতে প্রবেশের জন্য প্রত্যেক দর্শনার্থীকে অবশ্য়ই মাস্ক পরতে হবে। প্রবেশ পথে থাকবে থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা। ভিতরের ঢোকার পরেও শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। আপাতত হাতে-হাতে টিকিটের পরিবর্তে ই-টিকিটিং ব্যবস্থাকেই বেছে নেওয়া হতে পারে বলে সূত্রটি জানিয়েছে।

বন্ধ হওয়ার আগে

গত ১৭ মার্চ থেকে দর্শনার্থীদের জন্য পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায় তাজমহল।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের জেরে দর্শনার্থীর সংখ্যা হু হু করে কমতে শুরু করে। লকডাউনে ধর্মীয়, পর্যটনস্থানগুলি বন্ধ হয়ে যায়। পাশাপাশি দর্শনার্থীর সংখ্য়া হ্রাসও একটা বড়ো কারণ।

বিদেশি পর্যটকদের ভিসার উপর কড়াকড়ি শুরু হওয়ার পর তাঁরা আর আগের মতো ভিড় জমাতেন না।

বন্ধ হওয়ার সপ্তাহে সার্বিক দর্শনার্থীর সংখ্যায় উল্লেখ্য়নীয় পতন ঘটে। রবিবার ছুটির দিনে যেখানে ২৫ হাজারের বেশি দর্শনার্থীর সমাগম হতো, সেখানে ওই সপ্তাহে দর্শনার্থীর সংখ্যা ঠেকে ১৩ হাজারে। অথচ শনিবার তা ছিল ১৫ হাজারের বেশি, বৃহস্পতিবার ১৬ হাজারের বেশি। অন্য দিকে রবিবার বিদেশি দর্শনার্থীদের সংখ্যা স্বাভাবিক সময়ে তিন হাজারের কম-বেশি থাকলেও ওই সপ্তাহে তা হয় মাত্র ১২০০।

এক দিকে মারণ ভাইরাস নিয়ে দর্শনার্থীদের মনে সংশয় এবং অন্য দিকে বেশ কিছু কড়াকড়ি দর্শনার্থী সংখ্য়ায় ভাটার সৃষ্টি করে।

পর্যটনে খুশির খবর

টানা কয়েক মাস বন্ধ থাকার পর ফের তাজমহল খোলার খবর শুনে আগরা টুরিস্ট ওয়েলফেয়ার চেম্বারের প্রেসিডেন্ট প্রহ্লাদ আগরওয়াল উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন। তিনি বলেন, “আগরা পর্যটন শিল্পের সঙ্গে জড়িত প্রায় চার লক্ষ মানুষ স্বস্তি পাবেন। আশা করা হচ্ছে, আন্তর্জাতিক বিমান পরিষেবা চালু হওয়ার পর পরিস্থিতি ধীরে হলেও আবার আগের অবস্থায় ফিরে আসবে”।

অন্য দিকে টুরিজম গিল্ড অব আগরার চেয়ারম্যান হরি সুকুমার বলেন, “এই সিদ্ধান্ত সারা বিশ্বকে ইতিবাচক বার্তা দেবে-আগরা পর্যটকদের জন্য নিরাপদ”।

Continue Reading

ভ্রমণের খবর

খুলে গেল পশ্চিমবঙ্গ পর্যটন আর বনোন্নয়ন নিগমের আরও কয়েকটি লজ

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আনলক পর্বে ধাপে ধাপে রাজ্যের পর্যটনস্থলগুলি খোলা হচ্ছে। প্রথম দফার আনলকে গত ১ জুলাই থেকে বেশ কিছু পর্যটনস্থল খোলা হয়েছে। এ বার দ্বিতীয় দফায় আনলকে, অর্থাৎ বুধবার থেকে রাজ্যের আরও কয়েকটি পর্যটনকেন্দ্রও খুলে দেওয়া হয়েছে।

বুধবার থেকেই পর্যটকদের জন্য খুলে গিয়েছে দিঘা, ডুয়ার্স আর পাহাড়। সেই সিদ্ধান্তের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বেশ কিছু জায়গায় রাজ্য পর্যটন আর বনোন্নয়ন নিগমের লজগুলিও খুলে দেওয়া হয়েছে।

বুধবার দিঘা, বকখালি, ব্যারাকপুর, কালিম্পং (মর্গ্যান হাউজ) আর ঝাড়গ্রামে অবস্থিত রাজ্য পর্যটন উন্নয়ন নিগমের লজগুলির দরজা পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে। আপাতত আগামী এক মাসের অনলাইন বুকিং করা যাবে নিগমের ওয়েবসাইট (wbtdcl.com) থেকে।

গত ৮ জুন, মাইথন, বিষ্ণুপুর, ডায়মন্ড হারবার, লাটাগুড়ি (টিলাবাড়ি) আর রাঙাবিতান (শান্তিনিকেতন) লজগুলি খুলে দেওয়া হয়েছিল।

একই ভাবে বুধবার থেকে রাজ্যের বনোন্নয়ন নিগমের অন্তর্গত আরও কয়েকটি রিসর্টের দরজা খুলে দেওয়া হয়েছে। সেগুলি হল মূর্তি, বড়োদাবরি (লাটাগুড়ি), ঝালং, পারেন আর মংপং। নিগমের ওয়েবসাইট (wbfdc.net) থেকে অনলাইনে বুক করে এই রিসর্টগুলিতে যেতে পারবেন পর্যটকরা।

উল্লেখ্য, করোনার আতঙ্কের মধ্যেও লকডাউনের প্রতিবন্ধকতা (Lockdown) ঝেড়ে ফেলতে ইতিমধ্যেই ধীরে ধীরে মানুষ বেরিয়ে পড়ছেন বিভিন্ন পর্যটনকেন্দ্রে। ফলে, অন্য রাজ্যের থেকেও পশ্চিমবঙ্গে পর্যটন শিল্প ধীরে ধীরে ঘুরে দাঁড়াচ্ছে।

আশা করা হচ্ছে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে পারলে রাজ্যের পর্যটনে নতুন দিক খুলে যেতে পারে আগামী কয়েক মাসে।

Continue Reading
Advertisement
দেশ3 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৭১১৪, সুস্থ ১৯৮৭৩

কলকাতা3 days ago

কলকাতায় লকডাউনের আওতায় পড়া এলাকাগুলির পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশিত

ক্রিকেট3 days ago

১১৬ দিন পর শুরু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট, হাঁটু গেড়ে বসে জর্জ ফ্লয়েডকে স্মরণ ক্রিকেটারদের

দেশ2 days ago

সক্রিয় করোনা রোগীর ৯০ শতাংশই আটটি রাজ্যে!

রাজ্য2 days ago

ঘুমের মধ্যেই চলে গেলেন মহীনের অন্যতম ‘ঘোড়া’ রঞ্জন ঘোষাল

LPG
দেশ3 days ago

উজ্জ্বলা যোজনায় বিনামূল্যের এলপিজি সিলিন্ডার পাওয়ার মেয়াদ বাড়ল আরও তিন মাস

কলকাতা2 days ago

করোনার পাশাপাশি কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে শুরু হচ্ছে অন্যান্য রোগের চিকিৎসা

শিক্ষা ও কেরিয়ার2 days ago

শুক্রবার আইসিএসই, আইএসসি-র ফল

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 days ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা4 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা5 days ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা6 days ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

নজরে