mamata banerjee ram navami

পৈলান (দক্ষিণ ২৪ পরগণা): বাইরে থেকে গুন্ডা থেকে গণ্ডগোল পাকানোর চেষ্টা হচ্ছে, এটা কোনো ভাবেই বরদাস্ত করা হবে না। নাম না করে এ ভাবেই বিজেপি এবং আরএসএসকে হুঁশিয়ারি দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পুলিশ যদি দুষ্কৃতীদের সঙ্গে সমঝোতা করে তা হলে তারাও পার পাবে না বলে কড়া ভাষায় জানিয়ে দিলেন তিনি।

রামনবমীকে কেন্দ্র করে রবিবার পশ্চিমবঙ্গের কিছু এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এই সংঘর্ষে রাজ্যে এক জনের মৃত্যুও হয়েছে। এই সব ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই এই দিন কড়া ভাষায় হুঁশিয়ারি দেন মুখ্যমন্ত্রী।

সোমবার পৈলানে প্রশাসনিক বৈঠকে গিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে তিনি বলেন, “একটা রাজনৈতিক দল ফেট্টি বেঁধে গণ্ডগোল পাকাচ্ছে। এই করে তারা ভাবছে ভারতবর্ষ জয় করবে। কিন্তু বাইরে থেকে গুন্ডা এনে এ ধরনের ঝামেলা পাকানো চলবে না।”

হিন্দু ধর্ম যে কোনোভাবেই এই ধরণের হিংসার আবহকে সম্মতি দেয় না সেই বার্তা দিয়ে মমতা বলেন, “হিন্দু ধর্ম সর্বজনীন, এই ধর্ম সবাইকে ভালোবাসতে শিখিয়েছে।” সেই সঙ্গে রাম প্রসঙ্গে মমতা বলেন, “রাম কি অস্ত্র হাতে নিয়ে মিছিল করতে বলেছিল?” রামের নাম নিয়ে এ ভাবে বদনাম রটানো যে যাবে না সে কথাও বলেন মমতা।

পুরুলিয়ায় হত ১

উল্লেখ্য, রবিবার সব থেকে রক্তাক্ত ঘটনাটি ঘটেছে পুরুলিয়ায়। সেখানে রামনবমীর মিছিলকে কেন্দ্র করে এক ব্যক্তির মৃত্যুও হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে পুরুলিয়ার আরশা থানার অন্তর্বর্তী বেলদি গ্রামে। উল্লেখ্য, সংখ্যালঘু অধ্যুষিত ওই গ্রামে অস্ত্র নিয়ে মিছিল করার চেষ্টা করছিল বজরং দলের কর্মীরা। সেই মিছিলে বাধা দেয় পুলিশ। স্থানীয় কয়েক জন গ্রামবাসীও বাধা দিতে গেলে সংঘর্ষ শুরু হয়।

ওই সংঘর্ষে প্রাণ হারান এসকে শাহজাহান নামে ৫০ বছরের এক ব্যক্তি। আহত হয়েছেন পাঁচ জন পুলিশকর্মীও। বেলদি গ্রামের পরিস্থিতি এখনও থমথমে রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ, যদিও নতুন করে কোনো উত্তেজনা আর ছোড়ায়নি।

লকেটের বিরুদ্ধে এফআইআর

বীরভূমে ত্রিশূল নিয়ে মিছিল করার দায়ে বিজেপি মহিলা মোর্চার প্রেসিডেন্ট লকেট চ্যাটার্জির বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করল রাজ্য পুলিশ। তাঁর বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here