Connect with us

রাজ্য

কাজে যোগ দিলেন সব কর্মী, আনলক ১-এর প্রথম দিনে স্বাভাবিক ছন্দে উত্তরের চা-বাগানগুলি

tea garden

খবর অনলাইনডেস্ক: চা-বাগানের ১০০ শতাংশ কর্মীই কাজে যোগ দিতে পারবেন। গত শনিবার এই নির্দেশ জারি করে রাজ্য। এই মতো সোমবার সকাল থেকেই পুরোপুরি স্বাভাবিক ছন্দে ফিরল উত্তরবঙ্গের (North Bengal) চা-বাগানগুলি।

দীর্ঘদিন পর কাজে ফিরতে পেরে স্বাভাবিক ভাবেই খুশি শ্রমিকরা। খুশি বাগান কর্তৃপক্ষও।

লকডাউন (Lockdown) শুরু হওয়ার সময়ে কিছু দিনের জন্য পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায় চা-বাগানের কর্মকাণ্ড। থমকে যায় সব কিছু। কিন্তু চায়ের মতো অত্যাবশ্যকীয় পণ্যকে বন্ধ রাখা যেত না। তাই এপ্রিলে ২৫ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ শুরু করার নির্দেশিকা জারি হয়।

গত মাসে ২৫ শতাংশের বদলে ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ শুরু করার নির্দেশিকা জারি হয়। এর পর ধীরে ধীরে স্বাভাবিক ছন্দে ফেরার চেষ্টা করছিল চা-বাগানগুলি। যদিও কর্মীর অভাবে বিস্তর অসুবিধা যে হচ্ছিলই তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

তবে ১ জুন থেকে নতুন নির্দেশিকা কার্যকর হওয়ায় স্বস্তিতে উত্তরের চা-বাগানগুলি। এ প্রসঙ্গে এক চা বাগানের ম্যানেজার বলেন, “সোমবার থেকে বাগানে পুরোদমে কাজ শুরু হল। তবে শারীরিক দুরত্বের বিধি মেনেই কাজ হচ্ছে। শ্রমিকদের মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে তার পরই কাজে যোগ দিচ্ছেন শ্রমিকরা।”

রাজ্য

ঘুমের মধ্যেই চলে গেলেন মহীনের অন্যতম ‘ঘোড়া’ রঞ্জন ঘোষাল

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বাংলা সাংস্কৃতিক জগতে আরও এক দুঃসংবাদ। ঘুমের মধ্যেই চলে গেলেন ‘মহীনের ঘোড়াগুলি’ খ্যাত রঞ্জন ঘোষাল (Ranjan Ghosal)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর।

বাংলার সংগীতের দিনবদলের অন্যতম কান্ডারি ছিলেন রঞ্জন ঘোষাল। ছিলেন বাংলা ব্যান্ডের এক পথিকৃৎও। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে বেঙ্গালুরুতে নিজের বাসভবনেই ঘুমের মধ্যে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন রঞ্জনবাবু।

বর্ধমান জেলার মেমারিতে রঞ্জন ঘোষালের জন্ম। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীনই সাংস্কৃতিক জগতের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন তিনি।

১৯৭৫ সালে ভারতের প্রথম বাংলা স্বাধীন রক ব্যান্ড ‘মহীনের ঘোড়াগুলি’ (Mohiner Ghoraguli) যখন প্রতিষ্ঠা হচ্ছে, রঞ্জন তখন উপস্থাপক হিসেবে যোগ দেন। বেশ কয়েকটি গান লেখেন তিনি, যা পরবর্তীকালে অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।

‘মহীনের ঘোড়াগুলি’র জনপ্রিয়তা ধরে রাখতে গৌতম চট্টোপাধ্যায়ের পাশাপাশি, রঞ্জন ঘোষালের ভূমিকাও বিশেষভাবে উল্লেখ্য। বেঙ্গালুরুতে ফার্স্ট রক কনসার্ট – ‘রিমেম্বারিং মহীনের ঘোড়াগুলি’ এবং কলকাতায় ‘আবার বছর ত্রিশ পরে’ শিরোনামে একটি কনসার্টের আয়োজন করেন তিনি নিজে।

প্রসঙ্গত, বেঙ্গালুরুতে দীর্ঘদিন তিনি থিয়েটারও করেছেন। স্ত্রী সঙ্গীতা ঘোষালের সঙ্গে যৌথ ভাবে গিরিশ কর্নাডের ‘হয়বদন’, অরুণ মুখোপাধ্যায়ের ‘মারিচ দ্যা লেজেন্ড’-এর মতো নাটকও মঞ্চস্থ করেছেন।

রঞ্জনবাবুর মৃত্যুতে বাংলার সংগীতজগৎ যে একজন মহীরুহকে হারাল, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

Continue Reading

রাজ্য

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অক্সফোর্ডে বক্তব্য রাখার আমন্ত্রণ

… বুধবার আমন্ত্রণপত্রটি এসেছে। এটা পুরো রাজ্যের জন্য সম্মানের বিষয়”।

Mamata Banerjee

ওয়েবডেস্ক: পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) লন্ডনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউনিয়নে (The Oxford Union Debate) বক্তৃতা দেওয়ার আমন্ত্রণ পেলেন। তিনিই প্রথম ভারতীয় নেত্রী এবং একজন প্রশাসনিক প্রধান, যিনি ১৮২৩ সালে যুক্তরাজ্যের এই বিতর্কসভা শুরুর পর থেকে আমন্ত্রণটি পেলেন। মমতা ওই বিতর্কসভায় প্রশাসনিক প্রধান হিসাবে বক্তব্য রাখতে আমন্ত্রিত হয়েছেন।

অক্সফোর্ড ইউনিয়নকে বিশ্বের অন্যতম নামী এবং বিশিষ্ট ছাত্র সমাজ হিসাবে বিবেচনা করা হয়। মমতা নিজেও ছাত্র রাজনীতির মাধ্যমেই তাঁর রাজনৈতিক জীবন শুরু করেছিলেন। এর আগে, রোনাল্ড রেগান, জিমি কার্টার, রিচার্ড নিকসন এবং বিল ক্লিনটন-সহ মার্কিন রাষ্ট্রপতিদের মতো রাষ্ট্রনেতারা অক্সফোর্ড ইউনিয়নের বিতর্কে অংশ নিয়েছিলেন। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিল, মার্গারেট থ্যাচার, ডেভিড ক্যামেরন এবং থেরেসা মে। অ্যালবার্ট আইনস্টাইন, মাইকেল জ্যাকসন এবং দালাই লামার মতো কিংবদন্তিরাও বিভিন্ন সময়ে ইউনিয়নের বিতর্কগুলিতে অংশ নিয়েছিলেন।

ইউনিয়নের ভার্চুয়াল সভায় বক্তৃতার আমন্ত্রণ চিঠি ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পৌঁছে গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী ওই সভায় অংশ নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন বলেও জানা গিয়েছে। মমতার এক ঘনিষ্ঠ সহযোগী জানিয়েছেন,
“হ্যাঁ, তিনি আমন্ত্রণটি পেয়েছেন। তিনি এতে সন্তুষ্ট। সব মিলিয়ে তিনি এই বিতর্কে অংশ নেবেন। বুধবার আমন্ত্রণপত্রটি এসেছে। এটা পুরো রাজ্যের জন্য সম্মানের বিষয়”।

সূত্র জানায়, আয়োজকরা পরের বছর একটি ধারাবাহিক সভা আয়োজন করতে চান। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে লেখা চিঠিতে, তারা তাঁর সুবিধা অনুযায়ী পছন্দসই তারিখগুলি আগামী বছরের জানুয়ারী ৯ থেকে ১৫ মার্চের মধ্যে রাখার অনুরোধ করেছেন। কোভিড সংকটের মধ্যেই ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মেই এই বিশ্বজনীন বিতর্কসভা হতে পারে।

ইউনিয়নের ডিবেটিং সোশ্যাইটির প্রেসিডেন্ট লিখেছেন, “আপনার সঙ্গে আলোচনার জন্য আমরা অত্যন্ত উৎসুক হয়ে রয়েছি। এখন আন্তর্জাতিক উড়ান বন্ধ। তাই আমাদের ঐতিহ্যবাহী ভাষণ পর্বের অনলাইন সম্প্রচারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আপনাকে ফের আমন্ত্রণ জানাতে চাই”।

প্রসঙ্গত, এই নিয়ে দ্বিতীয়বার যুক্তরাজ্য থেকে এ ধরনের আমন্ত্রণ পেলেন মমতা। এর আগে ২০১০ সালে কেন্দ্রের ইউপিএ সরকারের রেলমন্ত্রী থাকাকালীন কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন তিনি। তবে সে বার তিনি আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান করেন।

অন্য মাত্রা!

আগামী ২০২১ সালেই রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন। তৃতীয়বার রাজ্যে ক্ষমতায় ফিরে আসার জন্য বড়োসড়ো চ্যালেঞ্জ মমতার সামনে।

কেন্দ্রের বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের একাধিক নীতির বিরুদ্ধে গত কয়েক বছর ধরে প্রতিবাদের সামনের সারির মুখ হয়ে উঠেছেন মমতা। বিশেষত, করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর আগে নাগরিকত্ব বিলকে কেন্দ্র করে মমতার আন্দোলন সারা দেশেরই নজর কেড়েছে। এ বার অক্সফোর্ড ইউনিয়নের মতো বিশ্বজনীন প্ল্যাটফর্মে বক্তব্য রাখার সময়, তিনি এ ধরনের ইস্যুকে তুলে ধরেন কি না, সেটাই দেখার। যা সরাসরি রাজ্যের বিধানসভা ভোটে প্রভাব না ফেললেও, বিজেপি-বিরোধিতার সুর বেঁধে দিতে পারে বলে ধারণা ওয়াকিবহাল মহলের।

Continue Reading

ঝাড়গ্রাম

টানাপোড়েনের অবসান ঘটিয়ে, সক্রিয় রাজনীতিতে লালগড় আন্দোলনের মুখ ছত্রধর মাহাত

বুধবার গোপীবল্লভপুরের একটি অতিথিশালায় তৃণমূলের পক্ষে সভায় তাঁকে বক্তব্য রাখতে দেখা গেল।

সমীর মাহাত, ঝাড়গ্রাম: রাজনৈতিক মহলে একটা কানাঘুষো চলছিল-ই! ছত্রধর মাহাত কি শাসক তৃণমূলের হয়েই ময়দানে নামবেন? জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বুধবার গোপীবল্লভপুরের একটি অতিথিশালায় তৃণমূলের পক্ষে সভায় তাঁকে বক্তব্য রাখতে দেখা গেল।

তিনি বলেন, “২০১১ সালে বামফ্রন্টকে সরিয়ে তৃণমূল ক্ষমতায় এসেছে। তার আগের এখানকার ইতিহাস সবারই জানা। দীর্ঘদিন বাম জামানার অপশাসনের ফলে তা হয়েছিল। গোপীবল্লভপুর প্রতিবাদের মাটি। অনেক বিপ্লবী এখানে জন্মেছেন। নকশাল আন্দোলন এখানে সংগঠিত হয়েছিল।”

পরক্ষণেই তিনি বলেন, “তৃণমূল অনেকটা পিছিয়ে পড়েছে। মানুষই সব কিছুর পরিবর্তন ঘটাতে পারে। সেই মানুষের উপর ভরসা আছে। এখানে একটি সাম্প্রদায়িক দল জায়গা করছে। আমার কোনো দিন আশা করিনি এ রাজ্যে তারা ঘাঁটি গাড়বে। এ রাজ্যে কংগ্রেস, সিপিএ রাজত্ব করেছে, তৃণমূল সে ক্ষেত্রে প্রগতিশীল। এটা সবারই ভাবার দরকার যে, এমন একটা সাম্প্রদায়িক দল সামনে লড়াইয়ের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে।”

তিনি আরও বলেন,” নব্য তৃণমূল এবং বিধায়ক চূড়ামণিবাবুর মধ্য একটা সংঘাত চলছে বলে শুনেছি, আমি মনে করি তা কিছু নয়। পুরনো মানুষেরা কষ্ট করে পার্টিটাকে ধরে রেখেছে। নতুনেরা তাকে সমৃদ্ধশালী করছে। এলাকায় এর আগে ঝাড়খন্ডি দলগুলি বামেদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছে। নয়ের দশকের দিকে তারা ভালমতো প্রভাব বিস্তার করে। তাদের সম্মান দিতে হবে। কংগ্রেস, ঝাড়খণ্ডি সবাই মিলেই আন্দোলন করেছিল। তাই সবার সঙ্গে সমন্বয় করেই হাঁটতে হবে, তবেই ২০১১ সালের গৌরভ ফিরে পাব।”

এই সভা থেকে এলাকার সাতমা অঞ্চলের ৩০টি পরিবার বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করেছেন বলে দাবি তৃণমূলের।

বিজেপির প্রতিক্রিয়া

এ ব্যাপারে বিজেপির ঝাড়গ্রাম জেলা সাধারণ সম্পাদক সঞ্জিত মাহাত বলেন,” ছত্রধর মাহাতকে দিয়ে সুবিধা করতে পারবে না তৃণমূল। আর উনি যেটা বলেছেন, বিজেপি মোটেই সাম্প্রদায়িক দল নয়, কেন্দ্রীয় শীর্ষ নেতৃত্বে অনেকই মুসলিম রয়েছেন। বরং সাম্প্রদায়িকতা করছে তৃণমূল, ইমাম ভাতা, ৩০ শতাংশ সংরক্ষণ, শুধু ভোট ব্যাঙ্কের জন্য বেশি তোল্লা দেওয়া হচ্ছে:।

লালগড় আন্দোলনের মুখ ছত্রধরকে নিশানা করে বিজেপি নেতা বলেন, “ছত্রধরবাবু তো নিজে একজন মাহাত – কুড়মি সম্প্রদায়ের মানুষ, নিজেদের জাতি-সমাজের জন্য কিছু বলছেন না কেন? ছত্রধরের আন্দোলনের সময় সবচেয়ে বিপর্যস্ত হয়েছেন এই এলাকার মাহাত আদিবাসীরা। যাঁরা মাওবাদীদের হাতে খুন হল, তাদের পরিবার কিছুই পেল না, অভিযুক্ত তারাকে সরকার চাকরি দিল। ছত্রধরের ছেলেকেও চাকরি দেওয়া হয়েছে। মানুষ সবই মনে রেখেছে।”

ছত্রধরে আগ্রহ দেখিয়েছিলেন মুকুল!

বছর দুয়েক আগে লালগড়ে একটি সভা শেষ করেই ছত্রধর মাহাতর স্ত্রী মিনতিদেবীর সঙ্গে দেখা করতে যান বর্তমানে বিজেপি নেতা মুকুল রায়। এমন সংবাদে গোটা জঙ্গলমহলের রাজনীতিতে তোলপাড় শুরু হয়ে যায়।

শোনা গিয়েছিল, ইউএপিএ আইনে গ্রেফতার হওয়া এবং যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ পাওয়ার পর বেশ কয়েক জন স্থানীয় তৃণমূল নেতা সহযোগিতার আশ্বাস দিলেও তা জঙ্গল মহলের বাতাসে মিলিয়ে যায়। এমন পরিস্থিতিতে ছত্রধরকে নিয়ে মুকুলবাবুর সক্রিয়তা নতুন করে ভাবাতে শুরু করে রাজ্য রাজনীতিকে।

Continue Reading
Advertisement
কলকাতা50 mins ago

করোনার পাশাপাশি কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে শুরু হচ্ছে অন্যান্য রোগের চিকিৎসা

দেশ1 hour ago

লকডাউন সফল করতে কম্যান্ডো মোতায়েন হল কেরলের গ্রামে

দেশ1 hour ago

অর্থনীতির ঘুরে দাঁড়ানোর ‘সবুজ সংকেত’ দেখছেন নরেন্দ্র মোদী

বিনোদন2 hours ago

‘তারক মেহতা…’ বাদে সোমবার থেকে হিন্দি বিনোদনের চ্যানেলগুলোয় ফিরছে নতুন এপিসোড

দেশ2 hours ago

বলিউড ছবির ধাঁচে কী ভাবে রচিত হয় বিকাশ দুবের ধরা দেওয়ার চিত্রনাট্য?

রাজ্য2 hours ago

ঘুমের মধ্যেই চলে গেলেন মহীনের অন্যতম ‘ঘোড়া’ রঞ্জন ঘোষাল

দেশ3 hours ago

সক্রিয় করোনা রোগীর ৯০ শতাংশই আটটি রাজ্যে!

বিদেশ3 hours ago

বিদেশি ছাত্রদের বিতাড়ন সংক্রান্ত নয়া মার্কিন নির্দেশিকার বিরুদ্ধে মামলা হার্ভার্ড ও এমআইটির

দেশ10 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৪৮৭৯, সুস্থ ১৯৫৪৭

কলকাতা1 day ago

কলকাতায় লকডাউনের আওতায় পড়া এলাকাগুলির পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশিত

রাজ্য2 days ago

পশ্চিমবঙ্গের বেশ কিছু জায়গায় ফের কড়া লকডাউনের জল্পনা

দেশ2 days ago

দ্রুত গতিতে বাড়ছে সুস্থতা, ভারতে এক সপ্তাহেই করোনামুক্ত লক্ষাধিক

বিদেশ2 days ago

অনলাইনে ক্লাস করা ভিনদেশি পড়ুয়াদের আমেরিকা ছাড়তে হবে, নির্দেশ ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকারের

রাজ্য2 days ago

বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটা থেকে রাজ্যের কনটেনমেন্ট জোনগুলিতে কড়া লকডাউন

রাজ্য3 days ago

নতুন সংক্রমণ কিছুটা কম, রাজ্যে করোনামুক্ত হলেন ১৫ হাজার

প্রযুক্তি3 days ago

নতুন অ্যাপ ‘সেল্‌ফ স্ক্যান’ নিয়ে এল রাজ্য সরকার! এর কাজ কী?

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা3 days ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা4 days ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

DIY DIY
কেনাকাটা1 week ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

খবর অনলাইন ডেস্ক :  এক ঘেয়ে সময় কাটছে না? ঘরে বসে করতে পারেন ডিআইওয়াই অর্থাৎ ডু ইট ইওরসেলফ। বাড়িতে পড়ে...

নজরে