গোবরডাঙায় অনুষ্ঠিত হল প্রথম পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য না-ধার্মিক মানব সম্মেলন

0

গোবরডাঙা (উত্তর ২৪ পরগনা): যুক্তিবাদী-বিজ্ঞানমনস্ক-মানবিক জীবনভাবনার লক্ষ্যে রবিবার প্রথম পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য না-ধার্মিক মানব সম্মেলন অনুষ্ঠিত হল। সম্মেলনের আয়োজন করা হয় গোবরডাঙার দীপান্বিতা অনুষ্ঠানগৃহের গৌরীলঙ্কেশ সভাকক্ষে।

কল্পনা পালের উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশনার মাধ্যমে সম্মেলনের সূচনা হয়। স্বাগত ভাষণ দেন দীপক কুমার দাঁ। শোক প্রস্তাব পাঠ করেন ডাক্তার  কমল সরকার। সম্মেলনে উদ্বোধনী ভাষণ দেন কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সব্যসাচী চট্টোপাধ্যায়। সম্মেলনের লক্ষ্য সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন সুকুমার মিত্র।

সম্মেলনে যোগদানকারী প্রতিনিধিদের একাংশ।

রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ১৬২ জন প্রতিনিধি এই সম্মেলনে যোগ দেন। এমনকি প্রতিবেশী রাজ্য অসম এবং প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশ থেকেও বিভিন্ন বিজ্ঞান ও পরিবেশ সংগঠনের প্রতিনিধিরা সম্মেলনে যোগ দেন। ছিলেন অধ্যাপক, শিক্ষক ও ছাত্র-ছাত্রীরা।

সম্মেলনের খসড়া প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, “প্রাতিষ্ঠানিক ধর্ম, ঈশ্বর বা সর্বশক্তিমান উপরওয়ালার ভাবনা, ভাববাদী চিন্তা ও অধ্যাত্মবাদে বিশ্বাসী নন এমন, বৈজ্ঞানিক বস্তুবাদে বিশ্বাসী বিজ্ঞানমনস্ক, কু-সংস্কারমুক্ত, যুক্তিবাদী মানবিক গুণসম্পন্ন মানুষদের মঞ্চ বা নেটওয়ার্ক তৈরির লক্ষ্যেন না-ধার্মিক মানব সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। এ ছাড়া ‘রাখে হরি মারে কে?’, আর ‘জীব দিয়েছেন যিনি আহার দেবেন তিনি’- এই দু’টি অন্ধ বিশ্বাস আমাদের দেশের অধিকাংশ মানুষকে আজও আচ্ছন্ন করে রেখেছে। এই দুই ভাবনার মূলে কুঠারাঘাত করে মানুষকে সচেতন ও সক্রিয় করাও সম্মেলনের অন্যতম লক্ষ্য।”

আরও পড়ুন: শিল্পাঞ্চলে বাস্তুতন্ত্র রক্ষার ব্যাপারে দ্য বেঙ্গল চেম্বারের আলোচনাসভা হলদিয়ায়

খসড়া প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, “ভারতীয় সংবিধানের ধর্মনিরপেক্ষ‌, ব্যক্তিস্বাতন্ত্র্যবাদ, বাকস্বাধীনতার মৌল বিষয়গুলি পদে পদে ভূ-লুণ্ঠিত। আজ ভয়ংকর হয়ে মাথা তুলছে, তা হল রাষ্ট্রীয় ধর্মসন্ত্রাসের বিভীষিকা। এর বিরুদ্ধে শুভবুদ্ধিসম্পন্ন মানুষের দ্বারা সমাজ জাগরণ প্রয়াস সংগঠিত করা একান্ত ভাবে জরুরি।”

সম্মেলনে বইপত্র ও পত্রিকার স্টল।

প্রত্যেক বক্তার যুক্তিনির্ভর বক্তব্যের মধ্য দিয়ে এ দিনের সম্মেলন প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে। যে সময়ে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের জন্মের দ্বিশতবার্ষিকী পালিত হচ্ছে, ঠিক সেই সময়ে এই না-ধার্মিক মানব সম্মেলন আয়োজন করায় এর গুরুত্ব অনেক বেশি বেড়েছে।

সম্মেলনকে কেন্দ্র করে যুক্তিবাদী-বিজ্ঞানমনস্ক-না-ধার্মিক বিষয়ক বইপত্র ও পত্রিকা প্রর্দশনীর আয়োজন করা হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.