north bengal heatwave

ওয়েবডেস্ক: এ যেন একদম উলটপুরাণ। কোথায় বর্ষায় মনোরম আবহাওয়ায় মেতে উঠবেন উত্তরবঙ্গের মানুষ, তা না এখন তীব্র গরমে পুড়ে যাচ্ছেন সবাই। পাহাড় থেকে সমতল, উত্তরবঙ্গের সব জেলাতেই এখন চলছে তীব্র দহন। পারদ উঠে গিয়েছে ৪০-এর কাছাকাছি।

অথচ সপ্তাহ দুয়েক আগে পরিস্থিতিটা একদম অন্য রকম ছিল। বন্যার ভ্রূকুটি ছিল উত্তরের পাহাড় লাগোয়া পাঁচ জেলায়। কিন্তু বৃষ্টি কমতেই চড়তে শুরু করেছে তাপমাত্রা। বর্ষায় এই গরম থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য এখন হাপিত্যেশ করে বৃষ্টি চাইছেন উত্তরবঙ্গবাসী।

আরও পড়ুন  ক্রমশ শক্তি বাড়াচ্ছে নিম্নচাপ, আগামী ২৪ ঘণ্টায় জোর বৃষ্টির সতর্কতা দক্ষিণবঙ্গে

শুক্রবার জলপাইগুড়ি, শিলিগুড়ি, কোচবিহারে পারদ পারদ উঠে গিয়েছিল জথাক্রমে ৩৮.৪, ৩৯ এবং ৩৮.২ ডিগ্রিতে। তাপমাত্রাগুলি স্বাভাবিকের থেকে ৬-৭ ডিগ্রি করে বেশি। শুধু সমতল নয়, পাহাড়েও আবহাওয়া ছিল গরম। দার্জিলিং-এর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, স্বাভাবিকের থেকে পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। কালিম্পং-এ তিরিশ ছাড়িয়েছে পারদ, মিরিকেও তাপমাত্রা তিরিশের কাছাকাছি।

মিরিকের বাসিন্দা সাবিহা রাফিকের কথায়, “শুক্রবার রোদ এতটা চড়া ছিল যে সবাই ছাতা নিয়ে বেরিয়েছিল। রোদের জন্য কাউকে আগে ছাতা নিয়ে আগে বেরোতে দেখিনি।” তবে শুক্রবার বিকেল থেকে ঝড়বৃষ্টির ফলে অনেকটাই স্বস্তি ফিরেছে পাহাড়ে। শনিবার সকালেও বৃষ্টি চলছে বলে জানান সাবিহাদেবী।

হঠাৎ করে এ ভাবে বদলে গেল কী করে উত্তরবঙ্গের আবহাওয়া?

আবহাওয়া দফতরের কথায়, উত্তরবঙ্গের ওপর থেকে মৌসুমী অক্ষরেখা সরে যাওয়াতেই বর্ষা দুর্বল হয়ে গিয়েছে সেখানে। অন্য দিকে বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা জানিয়েছে, মৌসুমী অক্ষরেখা সরে যাওয়ার পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের ওপরে এখন কোনো ঘূর্ণাবর্তও নেই যা থেকে বৃষ্টি হবে। সেই সঙ্গে বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের জন্য যাবতীয় মেঘ এখন দক্ষিণবঙ্গের ওপরে চলে এসেছে।

এই পরিস্থিতিতে মুক্তি পাবে কবে উত্তরবঙ্গ। ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা কিছুটা আশার আলো দেখিয়েছেন। তিনি বলেছেন, “স্থানীয় ভাবে ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হওয়ার একটা ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। এর ফলে আগামী চার দিন উত্তরবঙ্গে বৃষ্টি কিছুটা বাড়বে। ফলে কমবে তাপমাত্রা।” তবে বৃষ্টি শুরু হওয়ার ইঙ্গিত দিলেও, এখনই ভারী বৃষ্টির কোনো সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছেন তিনি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here