mukul roy

কলকাতা: পঞ্চায়েত ভোটের জন্য নির্বাচন কমিশন নির্দিষ্ট ১৪ মে ভোট গ্রহণ হবে কি না, তা হয়তো স্থির হতে পারে আগামী শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্টের শুনানিতে। তবে তার আগেই পঞ্চায়েত ভোট নিয়ে রাজ্য সরকারের কাছে একটি প্রশ্নের উত্তর চাইলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়।

তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশনের প্রথম ভোট বিজ্ঞপ্তিতে ঘোষণা করা হয়েছিল, ১,৩ ও ৫ মে ভোট গ্রহণ করা হবে। মোট তিন দফায় ভোটগ্রহণের সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত করার পরে সাময়িক আইনি জটিলতা কাটিয়ে হাইকোর্টের রায়ে ফের জারি করা নতুন বিজ্ঞপ্তিতে বলা হল, তিন নয় এক দিনেই গোটা রাজ্যের ভোটগ্রহণ সম্পূর্ণ হবে। রাজ্যের মানুষ জানতে চায়, মাত্র কয়েক দিনের মধ্যে সমগ্র পরিস্থিতির এমনকী বদল ঘটে গেল যে, তিন দিনের ভোট এক দিনে করানোর সিদ্ধান্ত নিতে সমর্থ হল রাজ্য সরকার?

মুকুলবাবু একই সঙ্গে অভিযোগ করেন, মনোনয়ন পেশের সময় থেকেই তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মী এবং আশ্রিত দুষ্কৃতীরা রাজ্যের ৩২০টি বিডিও ও প্রায় ৬২টি এসডিও-র দখল নিয়ে ফেলেছ। ভোটের আগেই যে কারণে শাসক দল ৩৪.২ শতাংশ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করেছে। এমন পরিস্থিতিতে এক দিনে ভোট হলে গোটা রাজ্যকে বিরোধী শূন্য করার তৃণমূলের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হলেও হতে পারে।

আরও পড়ুন: ১৪ মে ভোট হলেও মতদান করতে পারবেন না রাজ্যের প্রায় পৌনে দু’ কোটি ভোটার

পুরনো কথার রেশ ধরেই তিনি বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুঝতে পারছেন এ বারের পঞ্চায়েত ভোট তৃণমূল সরকারের পতনের সূচনা করবে। যে কারণে তিনি রাজ্যকে বিরোধী শূন্য করতে এতটা মরিয়া হয়ে উঠেছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here