সাবধান! এই কাজটি করলে ৫০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে মেট্রোকে

0
metro rail
প্রতীকী ছবি

কলকাতা: অনেক সময়ে দেখা গিয়েছে, মেট্রোর দরজার বন্ধ হওয়ার মুখে যাত্রীরা লাফিয়ে ট্রেনে ওঠার চেষ্টা করছেন। দরজা বন্ধ আটকাতে কেউ হাত, পা বা নিজের ব্যাগটা এগিয়ে দিচ্ছেন। এই ঘটনার যাতে আর না ঘটে, সে বিষয়ে এ বার কড়া পদক্ষেপ করল মেট্রো।

মেট্রোর দরজা বন্ধের সময়ে অবৈধ ভাবে তা বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলেই এ বার জরিমানা। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির কাছে ৫০০ টাকা জরিমানার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। কেউ নিয়ম ভাঙছেন কিনা, তা নজরে রাখতে স্টেশনে স্টেশনে কড়া নজরদারি চালাবে আরপিএফ। নজরদারি চলবে স্টেশন মাস্টারের ঘর থেকেও।

সাধারণত মেট্রোর দরজায় সেনসর থাকে। সেই কারণেই দরজা বন্ধ হওয়ার সময় কিছু দিয়ে তা আটকে দেওয়া হলে দরজা খুলে যায়। এই ‘সুবিধা’ কাজে লাগিয়েই বহু সময় বহু যাত্রীকে একদম শেষ মুহূর্তে দৌড়ে এসে ট্রেনে উঠতে দেখা গিয়েছে।

আরও পড়ুন বাস্তব অবস্থার ভিত্তিতে বর্ষার সময়সূচি নিয়ে বড়ো সিদ্ধান্ত নিতে পারে আবহাওয়া দফতর

সঞ্জয় কাঞ্জিলালের মর্মান্তিক মৃত্যুর পর যাত্রী সুরক্ষার এই দিকটিতে কড়া নজর দিচ্ছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। সে দিন পার্কস্ট্রিট স্টেশনে মেট্রোর দরজায় হাত আটকে যায় সঞ্জয় কাঞ্জিলালের। ওই অবস্থাতেই তাঁকে নিয়ে ছুটতে থাকে ট্রেন। প্রায় ৬০ মিটার দৌড়োনোর পর আচমকা এমার্জেন্সি ব্রেক কষেন ট্রেন চালক। সঙ্গে সঙ্গে লাইনে পড়ে যান সঞ্জয়বাবু এবং তাঁর মৃত্যু হয়।

উল্লেখ্য, মেট্রোর দরজায় হাত আটকে গেলে, আগেই টেনে বার করে নেওয়ার নিদান দিয়েছিল কর্তৃপক্ষ। এ বার একেবার জরিমানার পথে হাঁটল মেট্রো। পাশাপাশি এ বার থেকে মোটরম্যানের কেবিনের পাশে একটি আয়না লাগানো থাকবে। কোনো যাত্রী কোনো দরজায় আটকে রয়েছেন কি না, এই আয়না দিয়ে দেখতে পাবেন চালক। ফলে এটা বলাই যায় যে নিজের প্রাণ দিয়ে মেট্রো কর্তৃপক্ষ এবং সাধারণ মানুষকে অনেক শিক্ষা দিয়ে গেলেন সঞ্জয়বাবু।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here