old
Samir mahat
সমীর মাহাত

বিগত পাঁচ বছরে ঝাড়গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় ভুরি ভুরি উন্নয়ন হয়েছে বলে দাবি শাসক দলের। উন্নয়নের জঙ্গলমহলে বৃদ্ধা বুলকি মল্লিক লোধা-শবরের মাগন বৃত্তি দিয়েই জীবন অতিবাহিত করছেন। তা কি প্রশ্নের মুখে দাঁড় করায় না ওই উন্নয়নের কর্মযজ্ঞকে?

ভোট দিতে দিতে তিন কালে ঠেকেছে। নাতনির ছেলেমেয়েরা ডাকে বড়মা বলে। তা হলে বয়স কত? বার্ধক্য ভাতার আওতায় কি এখনও ঠেকেনি সে বয়স! বুলকি বলেন, “না, স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতের লোকজন জানিয়ে দিয়েছে আরও দু’বছর পরে বার্ধক্য ভাতা চালু হবে, এখনও বয়স হয়নি।” বয়সের প্রমাণ বলতে একমাত্র সম্বল ভোটার কার্ড। তাতে কি বয়স ভুল আছে? বৃদ্ধা বলেন, “আমার জন্যে কেউ তা নিয়ে মাথা ঘামায়নি।” অবশ্য প্রতিবেশীদের দাবি, বুলকিদেবীর বয়স না কি আশি পার করল বলে!

ঝাড়গ্রাম ব্লকের এক শাসকদলের নেতা বলেন, “বার্ধক্য ভাতা পাওয়ার জন্য প্রয়োজন বয়সের প্রমাণ, নিজস্ব ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর। বৃদ্ধার কেউ সম্ভবত ব্লক অফিসে যোগাযোগ করেননি।” বৃদ্ধার বক্তব্য, “যত বার অঞ্চল অফিসে গেছি, বলছে বয়স হয়নি। আরও দু’বছর লাগবে। ভোট দিতে দিতে তিন কুলে ঠেকেছি। আর দু’ বছর পরে হয়তো মরেই যাব, তখন কি ভাতা পাব!”

ঝাড়গ্রামের মানিকপাড়া সাত নম্বর অঞ্চলের পূর্বশোল-গুজিদাম এলাকার লোধা-শবর বৃদ্ধা বুলকি মল্লিকের দিন কাটছে এ ভাবেই মাগনবৃত্তি করে। তিনি জানান, “সপ্তাহে রেশন থেকে এক কেজি চাল ও একটি আটার প্যাকেট পাই, তা দিয়ে সারা সপ্তাহ চলে না। চার ছেলেমেয়ে সবাই আলাদা থাকে। আমি একা। সামান্য জমি আছে, আমার তো এই বয়স, চাষ কে করবে!”

প্বার্শবর্তী রাশুয়া, ইন্দ্রাবনী, বড়বাড়ি, লালগেড়িয়া, গোদারাস্তা ইত্যাদি গ্রাম থেকে দু’মাস অন্তর মাগন করেন এই বৃদ্ধা । তিনি বলেন, “একবার মাগন করলে, দু-আড়াই মাস চলে যায়।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here