এক মাসেরও বেশি পলাতক জীবনের পর কোয়েম্বাটোর থেকে গ্রেফতার বিচারপতি কারনান

0
438

কোয়েম্বাটোর: সুপ্রিম কোর্ট তাঁকে ৬ মাসের কারাদণ্ডের সাজা দেওয়ার পর গত ১০ মে থেকে পলাতক ছিলেন তিনি। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি সি এস কারনান। পলাতক অবস্থাতেই গত ১২ জুন অবসর নেন তিনি। ভারতের ইতিহাসে এই প্রথম কোনো বিচারপতি পলাতক অবস্থায় অবসর নেন। মঙ্গলবার সেই পলাতক জীবন শেষ হল তাঁর।

আরও পড়ুন: ইতিহাসে প্রথম, পলাতক অবস্থায় হাইকোর্টের বিচারপতি পদ থেকে অবসর নিলেন সিএস কারনান

তামিলনাডুর কোয়েম্বাটোরের একটি বেসরকারি কলেজ(কারপাগাম কলেজ)-এর গেস্ট হাউজ থেকে তাঁকে গ্রেফতার করল পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ। গত তিন দিন ধরে ওই কলেজের দিকে নজর রেখেছিল পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের তিনটি দল। পশ্চিমবঙ্গ পুলিশকে প্রযুক্তিগতগত সাহায্য দেয় তামিলনাডু পুলিশ। প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে বিচারপতি কারনানের মোবাইল ফোনের টাওয়ার অনুসরণ করেই তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতার করার সময় বাধাও দেন এই অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি।

আরও পড়ুন: কে চিন্নাস্বামী স্বামিনাথন কারনান?

সুপ্রিম কোর্ট এবং কয়েকটি হাইকোর্টের বিচারপতি দুর্নীতিগ্রস্ত বলে অভিযোগ জানিয়ে গত জানুয়ারি মাসে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছিলেন বিচারপতি কারনান। সেই ঘটনার জেরে তাঁর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনে শীর্ষ আদালত। তাঁর বিচারবিভাগীয় দায়িত্ব কেড়ে নেওয়া হয়। কারনান অভিযোগ করেন, তিনি দলিত বলেই তাঁর সঙ্গে এমন আচরণ করা হচ্ছে। এরপর তাঁর মানসিক স্বাস্থ্য পরীক্ষারও নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট। কিন্তু তাতে রাজি হননি বিচারপতি কারনান। তারপরই তাঁকে ৬ মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। তারপর থেকেই নিখোঁজ হয়ে যান কারনান। তাঁর চেন্নাইয়ের বাড়িতে পাওয়া যায়নি তাঁকে।

বুধবার তাঁকে কলকাতায় নিয়ে আসা হবে। তারপর সম্ভবত তাঁকে প্রেসিডেন্সি জেলে পাঠানো হবে।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here