এনআরএস কাণ্ডের প্রতিবাদে সকাল থেকে বন্ধ হাসপাতালগুলির বহির্বিভাগ

NRS paribaha mukherjee
আহত পরিবহ মুখোপাধ্যায়

কলকাতা: এনআরএস কাণ্ডের প্রতিবাদে সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকদের ডাকা কর্মবিরতি শুরু হয়েছে বুধবার সকাল থেকে। এর ফলে চূড়ান্ত দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে রোগী ও তাদের পরিজনদের।

সোমবার রাতে এনআরএসে রোগীমৃত্যুর পর চিকিৎসায় গাফিলতির অভিযোগ তুলে হাসপাতালে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়। ইটের আঘাতে গুরুতর জখম হন ইন্টার্ন চিকিৎসক পরিবহ মুখোপাধ্যায়। এই মুহূর্তে তিনি ইনস্টিটিউট অফ নিউরোসায়েন্সে চিকিৎসাধীন। অপারেশনের পর তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল হলেও, পর্যবেক্ষণে থাকতে হবে। তবে এখন তিনি বিপন্মুক্ত।

গত কয়েক বছর ধরেই রোগীর পরিজনদের হাতে নিগৃহীত হচ্ছেন চিকিৎসকরা। কোনো রোগীর মৃত্যু হলেও গাফিলতির অভিযোগ তুলে চিকিৎসকদের ওপরে হামলার একাধিক ঘটনা ঘটেছে রাজ্যে। মাঝে একবার এক চিকিৎসককে বিষ্ঠা খাওয়ানোরও ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু কখনোই এই পর্যায়ের বিক্ষোভ দেখাননি চিকিৎসকরা। কিন্তু ধৈর্যের বাঁধ ভেঙেছে সোমবার রাতের ঘটনায়। যে ভাবে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ওপরে হামলা চালানো হয়েছে, তাতে তাঁরা শিহরিত। মঙ্গলবার এনআরএস তো বটেই, রাজ্যের সমস্ত মেডিক্যাল কলেজে কর্মবিরতি চলেছে। বুধবার আরও বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দিয়ে সমস্ত আউটডোর পরিষেবাই বন্ধ করার কথা ঘোষণা করে জয়েন্ট প্ল্যাটফর্ম অফ ডক্টরস৷

আরও পড়ুন ইতিহাসের সব থেকে ভয়বাহ তাপপ্রবাহের কবলে ভারত!

তবে এর উলটো দিকটাও আছে। এই সিদ্ধান্তের জেরে সব চেয়ে বেশি ভুক্তভোগী হচ্ছেন রাজ্যের সাধারণ মানুষ। সকাল থেকেই হাসপাতালে গিয়ে শূন্য হাতে ফিরছেন রোগীরা। বিভিন্ন হাসপাতালের আউটডোর গেট রীতিমতো তালাবন্ধ অবস্থায় রয়েছে। একমাত্র মিলছে জরুরি পরিষেবা। কয়েক জনের জন্য সবাইকে কেন ভুগতে হবে সেই প্রশ্ন তুলছেন রোগীর পরিজনরা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.