কলকাতা: আইনি জটিলতায় থমকে উচ্চ প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে শিক্ষক নিয়োগ। নিয়োগ হওয়ার কথা প্রায় ৩২ হাজার ৫০০ শিক্ষকের। দু-একদিন আগেই বিক্ষোভ ও মামলার জন্য সব বিরোধী দলকে দায়ী করেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। এদিন ফের পার্থ বলেন, আমরা তৈরি। ইচ্ছে করে নিয়োগ প্রক্রিয়াকে বিঘ্নিত করার জন্য মামলাগুলো করা হচ্ছে। “আমি জানি, কোন আইনজীবী, কী তার উদ্দেশ্য এবং কেন করছেন”। অর্থাৎ নাম না করে এদিন পার্থ বাম জমানার মেয়র বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্যকে আক্রমণ করেন।

অন্যদিকে এসএসসি-র চেয়ারম্যান সুবীরেশ ভট্টাচার্য এদিন বলেন, “আইনি জটিলতা মিটলেই আমরা সাতদিনের মধ্যে সমস্ত শিক্ষকদের নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করে দেব”।রাজ্যে উচ্চ মাধ্যমিকে শূন্য পদ রয়েছে ৭০০০। মাধ্যমিকে শূন্য পদ রয়েছে ১০,৫০০ এবং উচ্চ প্রাথমিক অর্থাৎ পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণিতে শূন্য পদ রয়েছে ১৫ হাজারের মতো। অর্থাৎ ৪২ হাজার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের পরও ৩২ হাজারেরও বেশি পদে শিক্ষক নিয়োগ বাকি।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে ২৭ নভেম্বর ও ৪ ডিসেম্বর পরীক্ষা হয়েছে। কিন্তু আইনি জটিলতার কারণে এখনও প্যানেল বের হয়নি। উচ্চ প্রাথমিকের টেটে হয়েছে গত ১১ আগস্ট। রেজাল্টও প্রকাশিত হয়েছে। পাশ করেছেন প্রায় ১ লক্ষ ২১ হাজার পরীক্ষার্থী। কিন্তু তাদের ইন্টারভিউ শুরু করতে পারেনি এসএসসি।  

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন