Durgapur Rain

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রেকর্ড ভাঙা বর্ষণে বিপর্যস্ত রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চলের তিন জেলা। অবিরাম বর্ষণে জলমগ্ন হয়ে পড়েছে পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূম আর পুরুলিয়ার একাধিক জায়গা। সব থেকে বেশি নাজেহাল অবস্থা হয়েছে দুর্গাপুরের (Durgapur)।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে আবহাওয়া ভালোই ছিল। দুপুরের পর থেকে আচমকা পরিস্থিতি বদলে যায়। তৈরি হয় একের পর এক বজ্রগর্ভ মেঘ। সেই থেকেই নামে প্রবল বৃষ্টি। বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত বৃষ্টি চলতে থাকে।

Loading videos...

জানা গিয়েছে, আট ঘণ্টার মধ্যে একশো মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে দুর্গাপুরে। এর জেরে শহরের সমস্ত নিকাশিনালা কানায় কানায় ভরতি হয়ে যায়। শহরের একাধিক নিচু জায়গা জলমগ্ন।

দুর্গাপুর শিল্পাঞ্চলের মেন গেট সংলগ্ন এলাকাটি সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানা যায়। মেনগেট বস্তির পাশ দিয়ে বয়ে চলা তামলা নালার জল উপচে গিয়ে আশেপাশের অঞ্চল ভাসিয়ে দেয়। এর ফলে বহু মানুষকে উঁচু জায়গায় আশ্রয় নিয়েছেন।

https://www.facebook.com/Durgapurinfo/posts/3071384872970407

বৃহস্পতিবার বিশ্বকর্মা পুজোয় মেতে থাকার কথা ছিল শিল্পাঞ্চলের। কিন্তু দুপুর পর থেকে সেটা আর সম্ভব হয়নি।

তবে গত ২৪ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গে সব থেকে বেশি বৃষ্টি হয়েছে পশ্চিম বর্ধমানের মাইথনে। সেখানে দেড়শো মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়। এর পর রয়েছে পুরুলিয়া। সেখানে ১৪০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। বীরভূমের রামপুরহাটে ১২০ আর হেতমপুরে ১১০ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে।

একশো মিলিমিটারের কম হলেও গত ২৪ ঘণ্টায় জোর বৃষ্টি হয়েছে বাঁকুড়া, পশ্চিম মেদিনীপুরেও। এই প্রবল বর্ষণের ফলে দক্ষিণবঙ্গে কত কয়েক দিন ধরে বৃষ্টির যে ঘাটতি চলছিল, তা অনেকটাই কমেছে।

এ দিকে বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়ার নিম্নচাপের ফলে রবিবার সন্ধ্যা থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত দক্ষিণবঙ্গের ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

৬ মাস বন্ধ থাকার পর খুলছে পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত চিড়িয়াখানা ও জঙ্গল পর্যটন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.