নিজস্ব সংবাদদাতা, বাঁকুড়া: জুনিয়র ডাক্তারদের লাগাতার কর্মবিরতি ও অবস্থান বিক্ষোভের ফলে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে চরম অব্যবস্থা অব্যাহত। চিকিৎসা পরিষেবা ব্যাহত।

এই পরিস্থিতির প্রতিবাদে সকালে হাসপাতালের সামনের রাস্তায় পথ অবরোধ করলেন রোগীদের আত্মীয়রা। ফলে শহরের গোবিন্দনগর বাসস্ট্যান্ডে ঢোকার মুখে আটকে পড়ে বহু যাত্রীবাহী বাস ও অন্যান্য যানবাহন। তীব্র গরমে সমস্যায় পড়েন সাধারণ মানুষ।

উল্লেখ্য, একই অভিযোগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই জায়গায় রোগীর আত্মীয়রা পথ অবরোধ করলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে অবরোধ তুলে দেয়। এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়। জুনিয়র ডাক্তারদের অবস্থান না তুলে কেন সাধারণ মানুষের উপর পুলিশ লাঠিচার্জ করা হল তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করে। পথ অবরোধ শুরুর সঙ্গে সঙ্গে বিশাল পুলিশবাহিনী হাসপাতাল চত্ত্বরে পৌঁছেছে।

আরও পড়ুন লন্ডনে ঝালমুড়ি বিক্রি করেন কলকাতাপ্রেমী ব্রিটিশ প্রৌঢ়, দেখুন ভিডিও

রাজ্যের অন্যান্য অংশের সঙ্গে বাঁকুড়া সম্মিলনী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালেও এ দিন ‘আউটডোর’ পরিষেবা বন্ধ থাকায় চরম সমস্যায় দূরদূরান্ত থেকে আসা রোগী ও তাঁদের আত্মীয়রা। এ বিষয়ে আগাম কিছুই জানানো হয়নি বলে অভিযোগ।

সাতসকালে এই হাসপাতালের আউটডোরে চিকিৎসা করাতে আসা কল্পনা মণ্ডল বলেন, “এ বিষয়ে আগাম কোনো নোটিশ দেওয়া হয়নি। কী করব ভেবে পাচ্ছি না।” একই অভিযোগ সনাতন দাস-সহ অন্যদেরও। সনাতনবাবুর কথায়, “রাত থাকতে বাড়ি থেকে বেরিয়ে ভোর থেকে হাসপাতালে লাইনে দাঁড়িয়েছি। পরে আউটডোর বন্ধের খবর শুনি। প্রচণ্ড গরমের মধ্যে দীর্ঘক্ষণ দাড়িয়েও ডাক্তার দেখানো হল না বাড়ি ফিরে যেতে হবে।”

কয়েক জনের ঘৃণ্য নক্কারজনক আচরণের ফল সবাইকে কেন ভুগতে হবে, সেই প্রশ্ন তুলছেন সাধারণ মানুষ।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here