রাজ্য এসএসসি আয়োজিত পরীক্ষার ফল শীঘ্রই প্রকাশ করবে পিএসসি; কর্তৃপক্ষের আশ্বাস

0

ওয়েবডেস্ক: রাজ্যের যাবতীয় কর্মচারী নিয়োগের পরীক্ষা দীর্ঘদিন ধরে আয়োজন করত পশ্চিমবঙ্গ পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি)। বর্তমান সরকারের আমলেই বছর কয়েক আগে রাজ্যস্তরের সমস্ত দফতরে কর্মচারী নিয়োগের জন্য এ রাজ্যে গঠিত হয়েছিল স্টাফ সিলেকশন কমিশন (এসএসসি)। চলতি বছরের মে মাসে এসএসসিকে পিএসসি-র সাথে যুক্ত করার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। সেই মতো সেপ্টেম্বরের শুরু থেকেই পশ্চিমবঙ্গ স্টাফ সিলেকশন কমিশন-এর স্বতন্ত্র কোনও অস্তিত্বই আর নেই। তবে এই নিয়ে ধোঁয়াশায় ছিলেন রাজ্যের চাকরিপ্রার্থীদের একাংশ। পূর্বনির্ধারিত পরিকল্পনা অনুযায়ী সোমবার শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জি রোডের পিএসসি দফতরে দেখা করেন তাঁরা। পশ্চিমবঙ্গ এসএসসি আয়োজিত যেসব পরীক্ষার ফল এখনও প্রকাশিত হয়নি, খুব শিগগির তা প্রকাশ করবে পিএসসি, এমনই আশ্বাস দিলেন পিএসসি-র ডেপুটি চেয়ারম্যান শ্রী গৌতম বসাক।

দীর্ঘদিন ধরেই রাজ্য এসএসসি আয়োজিত এলডিসি এবং কেপিসি পরীক্ষার ফল প্রকাশের অপেক্ষায় ছিলেন পরীক্ষার্থীরা। এমন সময় সামনে আসে এসএসসি এবং পিএসসি যুক্ত হওয়ার খবর। স্বাভাবিক ভাবেই ওই দুই পরীক্ষার ফল নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হয় পরীক্ষার্থীদের মধ্যে। নিয়ম অনুযায়ী, এক সরকারি দফতর অন্য কোনও দফতরকে অধিগ্রহণ করলে অথবা অন্য কোনও দফতরকে নিজের সঙ্গে যুক্ত করলে যুক্ত হওয়া দফতরের সমস্ত বিষয়কে নিয়ন্ত্রণ করার দায়িত্বও পড়ে ওই দফতরের ওপরেই। কিন্তু এক্ষেত্রে পিএসসি এবং এসএসসি কর্মীদের কাছে এই সংক্রান্ত সঠিক তথ্য না থাকায় নিশ্চিন্ত হতে পারছিলেন না পরীক্ষার্থীরা। গত বুধবার পরীক্ষার্থীদের তরফ থেকে আয়োজন করা হয়েছিল নবান্ন অভিযান। মুখ্যমন্ত্রীর কাছেও লিখিত ভাবে আবেদন করেছিলেন পরীক্ষার্থীরা।

পিএসসির দফতর থেকে বুধবার জানানো হয়েছিল কর্তৃপক্ষ সোমবার দেখা করবে পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে। সেই মতো পিএসসির ডেপুটি চেয়ারম্যান এ দিন পরীক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, “এ বছরের শেষ অথবা পরের বছরের শুরুতেই যাতে পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা যায়, তার চেষ্টা করছে পিএসসি”। পিএসসি আয়োজিত পরীক্ষার ফল প্রকাশের চাপ থাকায় একটু দেরি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন গৌতমবাবু। তিনি আরও বলেন, সোমবার সকালেই নাকি পিএসসির চেয়ারম্যান শ্রী দীপঙ্কর দাসগুপ্ত এসএসসি আয়োজিত যাবতীয় পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণার কাজ শুরু করার নির্দেশ দিয়েছেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here