Bank employee
নিহত ব্যাঙ্ককর্মী পার্থ চক্রবর্তী

ওয়েবডেস্ক: ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই ডোমজুড়ে বন্ধন ব্যাঙ্কের কর্মী পার্থ চক্রবর্তীর হত্যার কিনারা করে ফেলল পুলিশ। খুনের অভিযোগে গ্রেফতার করা হল শেখ শামসুদ্দিন নামক এক অভিযুক্তকে।

বুধবার সকাল স্বনির্ভর গোষ্ঠীর ঋণের টাকা আদায়ের জন্য বেরিয়েছিলেন পার্থবাবু। চার জায়গা ঘুরে ৩ লক্ষ টাকা তুললেও পঞ্চম জায়গায় যাননি তিনি। বৃহস্পতিবার সকালে ডোমজুড়ের রাঘবপুর এলাকায় রক্তাক্ত বস্তা বন্দি হয়ে পড়ে থাকতে দেখা যায় ওই ব্যাঙ্ককর্মীর কাটা পা। তখনই জানা যায়, ওই কাটা পা দু’টি পার্থবাবুর। পার্থর দেহাংশের মধ্যে লেগে থাকা কাপড়ের টুকরোকে সম্বল করে তদন্ত শুরু করে পুলিশ।

প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশ জানিয়েছে, এই খুনের ঘটনায় অভিযুক্ত সামসুদ্দিনের স্ত্রী একটি স্বনির্ভর গোষ্ঠীর হয়ে কাজ করতেন। তিনি বন্ধন ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নিয়েছিলেন, কিন্তু টাকা শোধ করছিলেন না। ঋণের টাকা আদায়ের জন্য পার্থবাবু সামসুদ্দিনের সঙ্গে কথা বলতে যান। এর পরেই সামসুদ্দিনের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন পার্থবাবু। এই সময় রাগের বসে পার্থর মাথায় আঘাত করে সামসুদ্দিন। এর পর তথ্য প্রমাণ লোপাট করতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে পার্থর হাত, পা, মাথা কেটে ফেলা হয়। মুণ্ডহীন দেহ ফেলা হয় মাকড়দহ এলাকায়।

আরও পড়ুন ব্যাঙ্ককর্মীর নৃশংস খুনে উঠে এল এক রহস্যময়ী তরুণীর ভূমিকা

পুলিশ জানিয়েছে, পার্থ চক্রবর্তীর কাছে ঋণ বাবদ বিভিন্ন জায়গা থেকে পাওয়া তিন লক্ষ টাকা যা খোয়া গিয়েছিল, তা-ও উদ্ধার হয়েছে সামসুমদ্দিনের কাছ থেকে। তবে পার্থ চক্রবর্তীর খুনের ঘটনার সঙ্গে আরও কেউ জড়িত রয়েছে বলে সন্দেহ করছে ডোমজুড় থানার পুলিশ। আরও তথ্যের হদিস পেতে ধৃত সামসুমদ্দিনকে জেরা করা হচ্ছে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন