jagaddal shootout

ওয়েবডেস্ক: প্রায় সপ্তাহ তিনেক স্বাভাবিক থাকার পর ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠল ভাটপাড়া-জগদ্দল এলাকা। গত বৃহস্পতিবার রাতে রাজু চক্রবর্তী নামে এক দুষ্কৃতীর মৃত্যুর পর শুক্রবারও ফিল্মি কায়দায় পুলিশ-দুষ্কৃতী গুলির লড়াই দেখল জগদ্দল। এ দিন গুলিতে নিহত হয় প্রভু সাউ নামে এক যুবক। পুলিশের দাবি, নিহত এলাকার কুখ্যাত দুষ্কৃতী।

এলাকার মানুষ আগেই জানিয়েছিল, পুলিশের গুলিতেই মৃত্যু হয়েছে ২৮ বছরের প্রভু সাউয়ের। সন্ধ্যায় ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার স্বীকার করলেন, পুলিশকে লক্ষ্য করে বোমা ছুড়েছিল দুষ্কৃতীরা। তার পরই পুলিশ গুলি চালায়।

শুক্রবার ভরদুপুরে গুলিতে নিহত হন প্রভু। তার মাথার পিছনের দিকে গুলি লাগে। ব্যারাকপুর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়। চিকিৎসকরা জানান, অধিক রক্তক্ষরণেই তার মৃত্যু হয়েছে।

এ দিন সন্ধ্যায় ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা ভাটপাড়া থানায় সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, ” ভাটপাড়া এলাকার আইনশৃঙ্খলা বজায় রাখতে তৎপরতা নিয়েছে পুলিশ। এ দিন ২২ নম্বর সুখিয়া পাড়া গলিতে প্রথম বোমাবাজি করে দুষ্কৃতীরা। প্রভু পুলিশকে চ্যালেঞ্জ করে বলে, মেরে দেব। পুলিশের কাছে আগে থেকেই খবর ছিল, ওখানে ওরা আগ্নেয়াস্ত্র মজুত করেছিল। স্থানীয় মানুষই বলেছিল, এখানে এসব চলবে না। এই তথ্য আজ পুলিশের কাছে আসে। এর পরই দুষ্কৃতীদের তল্লাশিতে যায় পুলিশ”।

“পুলিশ দেখেশুনে পরিস্থিতি বুঝে গুলি চালিয়েছে। আরএ একজন দুষ্কৃতী ছিল। সে পালিয়ে গিয়েছে। প্রভু নামে এক জন একটি বাড়ির অ্যাসবেস্টসের ছাদ ভেঙে পড়ে যায়”, বলেন মনোজ।

পুলিশ কমিশনার জানান, প্রভু আগেই জেল খেটেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here