masudur rahman

ওয়েবডেস্ক: স্বাভাবিক মৃত্য়ু, না কি মাসুদুর রহমান রহমান বৈদ্যকে খুন করা হয়েছিল বিষ খাইয়ে?

ইংলিশ চ্যানেল বিজয়ী সাঁতারু মাসুদুরের মৃত্যুর তিন বছর বাদে খুনের অভিযোগ দায়ের করেছেন বোন মাহজুরা। তাঁর দাবি, সে সময় দাদার কোনো অসুস্থতা ছিল না। হঠাৎ কেন তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লেন এবং অসুস্থ হওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই মারা গেলেন? এমনকী কারও সঙ্গে কোনো রকমের পরামর্শ দূরে থাক, কেন তাঁর মৃতদেহের ময়না তদন্তের দাবি করলেও তা মানা হয়নি?

২০১৫ সালের ২৬ এপ্রিল মৃত্যু হয় মাসুদুরের। বোনের দাবি, ওই দিন ফোন করে জানানো হয়, দাদা অসুস্থ। তাঁকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি হাসপাতালের দিকে রওনা হওয়ার পর পথেই খবর পান দাদা মারা গিয়েছেন। হাসপাতালে গিয়ে তিনি মৃতদেহের ময়না তদন্তের দাবিও তোলেন। সে সময় ওই হাসপাতালে দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক জিয়াউল হাসান চৌধুরি জানান মাসুদুরের মৃত্যু হয়েছে।  প্রাথমিক ভাবে জানা যায়, তিনি ব্লাড সুগারের রোগী ছিলেন। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়েছে।

পুলিশের কাছে দায়ের করা অভিযোগে মাজুরা সন্দেহ করেছেন, “দাদাকে বিষ খাইয়ে খুন করছে শ্বশুরবাড়ির লোকজন। সে সময় মাসুদুর কড়েয়ার একটি হাউজিংসে থাকতেন। তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোকজনও সেখানে থাকতে শুরু করেন”।  মাজুরারর দাবি, তিনি বারবার ময়না তদন্তের দাবি তুললেও শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাতে রাজি হননি।  এমনকী, দেরি না করে শীঘ্র মৃতদেহের সৎকার করে ফেলা হয়।

পুলিশের বক্তব্য, মাজুরা তাদের জানিয়েছেন, পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করার পরই তিনি মামলা দায়ের করেছেন।  এ ব্যাপারে পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। ঠিক কী ধরনের পরিস্থিতিতে মাসুদুরকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, তা জানতে পরিবারের অন্যান্যদের সঙ্গে কথা বলা হবে। পাশাপাশি যে চিকিৎসকের অধীনে তাঁর মৃত্যু হয়েছিল তাঁর সঙ্গেও কথা বলা হবে। এটা নিছক মৃত্যু, না কি এর পিছনে অন্য কারণ ছিল, তা খতিয়ে দেখবে পুলিশ।

পাশাপাশি এমন প্রশ্নও উঠতে শুরু করেছে, ৪৬ বছরের মাসুদুরের মৃত্যুর প্রায় তিন বছর বাদে কেন এমন অভিযোগ উঠছে।  এই প্রশ্নেরও উত্তর খোঁজার চেষ্টা করবে পুলিশ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here