kolkata rain

কলকাতা: এক দিকে যখন প্রবল বৃষ্টিতে কার্যত বন্যা পরিস্থিতির মুখোমুখি উত্তরবঙ্গ ঠিক তখনই ঘেমে নেয়ে একশা দক্ষিণবঙ্গ। বিক্ষিপ্ত ভাবে কোথাও কোথাও ঝড়বৃষ্টি হচ্ছে ঠিকই, কিন্তু তাতে স্বস্তি দূরঅস্ত। আগামী কয়েক দিন এই আবহাওয়ার বিশেষ পরিবর্তনের সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছে বেসরকারি আবহাওয়া সংস্থা ওয়েদার আল্টিমা। তবে সপ্তাহের শেষে একটু স্বস্তির বার্তা শোনানো হয়েছে।

তবে আগামী কয়েক দিন স্বস্তি যে একেবারেই আসবে না তা অবশ্য নয়। বরং মাঝেমধ্যেই বিকেল অথবা সন্ধ্যার দিকে ধেয়ে আসতে পারে ঝড়। সোমবারও রাতের দিকে ঝড়বৃষ্টির একটা ক্ষীণ সম্ভাবনা রয়েছে। সেই সম্ভাবনা সত্যি হয় কি না সেটা অবশ্য সময়ই বলবে।

এই মুহূর্তে ঝাড়খণ্ডের ছোটোনাগপুর মালভূমি অঞ্চলে একটি ঘূর্ণাবর্ত রয়েছে। তার প্রভাবে বঙ্গোপসাগর থেকে জলীয় বাষ্প দক্ষিণবঙ্গের বায়ুমণ্ডলে ঢুকছে বলে জানিয়েছেন ওয়েদার আল্টিমার কর্ণধার রবীন্দ্র গোয়েঙ্কা। এর ফলেই এক দিকে যেমন ঘর্মাক্ত পরিবেশের সৃষ্টি হবে, তেমনই বিকেলের পরে হতে পারে ঝড়বৃষ্টি। আগামী কয়েক দিন কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪ থেকে ৩৭ ডিগ্রির আশেপাশে ঘোরাফেরা করবেন বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু। অন্য দিকে পশ্চিমাঞ্চলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছুঁতে পারে চল্লিশ ডিগ্রি।

তবে এই সপ্তাহের শেষের দিকেই দক্ষিণবঙ্গে প্রাক বর্ষার বৃষ্টি শুরু হয়ে যেতে পারে বলে আশা প্রকাশ করেছেন রবীন্দ্রবাবু। এর নেপথ্যে রয়েছে বঙ্গোপসাগরের ওপরে সৃষ্টি হওয়া নিম্নচাপ, ক্রমেই যা শক্তি বাড়াচ্ছে। নিম্নচাপটির অভিমুখ বাংলাদেশের চট্টগ্রাম উপকূলের দিকে। তবে তার প্রভাবে প্রচুর পরিমাণে জলীয় বাষ্প দক্ষিণবঙ্গের বায়ুমণ্ডলে ঢুকবে বলে জানিয়েছেন রবীন্দ্রবাবু। এর প্রভাবেই বৃষ্টি শুরু হয়ে যাবে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায়।

২৪ ঘণ্টার মধ্যে কেরলে বর্ষা

আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই কেরলে দক্ষিণপশ্চিম মৌসুমী বায়ু ঢুকে যাবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। ইতিমধ্যে পুরো আন্দামান দ্বীপপুঞ্জকে নিজের গ্রাসে এনে ফেলেছে বর্ষা। শ্রীলঙ্কার অধিকাংশ এলাকাতেও শুরু হয়ে গিয়েছে বর্ষার বৃষ্টি।

প্রাক বর্ষার প্রবল বৃষ্টিতে ভিজছে কেরল। এই বৃষ্টির হাত ধরেই মঙ্গলবার কেরলে বর্ষার পদার্পণের কথা ঘোষণা করে দিতে পারে মৌসম ভবন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here