উত্তর যখন বিপর্যস্ত তখন স্বস্তির খবর দক্ষিণবঙ্গে, শুক্রবার থেকে শুরু প্রাক শীত

0

কলকাতা: এ বার গোটা বর্ষায় উত্তরবঙ্গের থেকে অনেক বেশি বৃষ্টি হয়েছিল দক্ষিণবঙ্গে। কিন্তু অক্টোবর পড়তেই পরিস্থিতি বদলে গেল। একটা নিম্নচাপ বৃষ্টি নামাল গোটা পশ্চিমবঙ্গ। কিন্তু দক্ষিণবঙ্গে যা বৃষ্টি হল, তার তুলনায় বহুগুণ বেশি বৃষ্টি হল উত্তরে। যার ফলে উত্তরবঙ্গের জনজীবন পুরোপুরি বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে।

উত্তরবঙ্গে বৃষ্টি এখনও থামছে না। কিন্তু এরই মধ্যে স্বস্তির খবর দক্ষিণবঙ্গের জন্য। রাজ্যের এই অংশে ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা আর কার্যত নেই। বরং আকাশ পরিষ্কার হয়ে যাওয়ায় শুক্রবার থেকেই শুরু হয়ে যাবে প্রাক শীতের মরশুম। দেখা দেবে হেমন্তের আবহাওয়া।

বুধবার সকালে ঘণ্টাখানেক বৃষ্টি হয়েছে কলকাতা এবং তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে। অল্প সময়ের এই বৃষ্টির তীব্রতা ভালোই ছিল। কিন্তু তা বেশিক্ষণ হয়নি বলে জল জমার মতো পরিস্থিতি কোথাও তৈরি হয়নি। আসলে, উত্তরবঙ্গের ওপরে অবস্থানরত নিম্নচাপটি এখনও বঙ্গোপসাগর থেকে জলীয় বাষ্প টানছে। ওই জলীয় বাষ্প দক্ষিণবঙ্গের ওপর দিয়ে যাচ্ছে বলে এই বৃষ্টিটা হচ্ছে।

নিম্নচাপটি এ বার পূর্ব দিকে এগোবে, অর্থাৎ অসমের দিকে সরে যাবে। এর ফলে সে জলীয় বাষ্প টানলেও তা দক্ষিণবঙ্গের ওপর দিয়ে নয়, যাবে বাংলাদেশের ওপর দিয়ে। সে কারণেই বুধবার দুপুরের পর থেকে ধীরে ধীরে পরিষ্কার হতে শুরু করবে দক্ষিণবঙ্গের আবহাওয়া।

আবহাওয়া পরিষ্কার হলেও রাজ্যের বায়ুমণ্ডলে ঢুকে পড়বে উত্তুরে বাতাস। উল্লেখ্য, রবিবার থেকে মঙ্গলবার পর্যন্ত উত্তরাখণ্ডের এই বিপর্যয় সৃষ্টিকারী বৃষ্টি হয়েছে, তারই প্রভাবে তুষারপাত হয়েছে উঁচু এলাকাগুলিতে। কেদারনাথ, বদরীনাথ, গঙ্গোত্রী বরফের চাদরে ঢুকেছে। তেমনই হিমাচল প্রদেশের লাহুল-স্পিতি অঞ্চলেও ভালোই তুষারপাত হয়েছে।

এর প্রভাবে উত্তুরে হাওয়া এখন যথেষ্ট শীতল হয়ে গিয়েছে। রাজস্থান, পঞ্জাবে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৭-১৮ ডিগ্রিতে নেমে গিয়েছে। আগামী দিনে তা আরও কমবে বলে মনে করা হচ্ছে। এর প্রভাব এ বার দক্ষিণবঙ্গেও পড়বে।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে হাওয়ার গতিপথে পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাবে। দক্ষিণা হাওয়াকে সরিয়ে উত্তুরে হাওয়া যে ঢুকে পড়বে, সেটা ভালোই করেই টের পাওয়া যাবে। হাওয়াটা শুষ্ক হওয়ায় চামড়ায় হালকা টান ধরার অনুভূতিও হতে পারে। এরই প্রভাব পড়বে শুক্রবার সকাল থেকে।

কলকাতা এবং পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে শুক্রবার সকাল থেকে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২২ ডিগ্রির কাছাকাছি নেমে যেতে পারে। রাজ্যের পশ্চিমাঞ্চল তথা বাঁকুড়া, পুরুলিয়াতে সর্বনিম্ন তপামাত্রা কুড়ি ডিগ্রির নীচেও নেমে যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। ফলে বৃহস্পতিবার থেকেই হেমন্তের আবহাওয়া শুরু হয়ে যাবে দক্ষিণবঙ্গে।

আজকের আরও কিছু উল্লেখযোগ্য খবর পড়ুন এখানে:

তিস্তার জলে ডুবে গেল জাতীয় সড়ক, প্রচুর জায়গায় ধস, বৃষ্টি থামছে না উত্তরবঙ্গে

টেস্ট বৃদ্ধির ফলে সংক্রমণ সামান্য বাড়লেও তা থাকল ১৫ হাজারের নীচেই, আরও কমল সক্রিয় রোগী

বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত উত্তরাখণ্ডের মৃত ৩৪, নিরাপদে উদ্ধার করা হল বাঙালি পর্যটকদের

নাইট কার্ফু-সহ বেশ কিছু বিধিনিষেধ বৃহস্পতিবার থেকে ফিরছে পশ্চিমবঙ্গে

নতুন দল তৈরির ঘোষণা, বিজেপির সঙ্গে জোটেও যেতে চান অমরিন্দর সিংহ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন