পার্থর হুঁশিয়ারি, আরও বেশ জেদি অনশনরত প্রাথমিক শিক্ষকেরা

0
Primary teachers

ওয়েবডেস্ক: রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের হুঁশিয়ারিতে যেন আরও বেশি জেদ বেড়ে গেল সল্টলেকের উন্নয়ন ভবনের সামনে অনশনে বসা প্রাথমিক শিক্ষকদের।

পিআরটি স্কেল আদায়ের দাবি এবং ১৪ জন প্রাথমিক শিক্ষককে বদলির প্রতিবাদে গত শনিবার থেকে আমরণ অনশনে বসেছেন উস্তি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা। অনশন চার দিনে পড়লেও সরকারি ভাবে কোনো আশ্বাস মেলেনি। উল্টো দিক শিক্ষামন্ত্রী হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, স্কুলে উপস্থিত না-হয়ে যাঁরা অনশনে অংশ নিয়েছেন, নির্ধারিত ছু‌টির দিন থেকেই তা বাদ দেওয়া হবে। এর পরে আরও বেশি অদমনীয় মনোভাব দেখাচ্ছেন অনশনকারীরা।

এই দাবি নিয়ে গত ২৪ জুন বিধানসভা অভিযান করে ওই সংগঠন। পিআরটি স্কেলের দাবি তোলে তারা। তাদের অভিযোগ, যে ১৪ জন প্রাথমিক শিক্ষককে অনৈতিক ভাবে বদলি করা হয়েছে, তাঁদের অবিলম্বে নিজেদের পুরনো স্কুলে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে হবে। একই সঙ্গে বেতন বিশেষজ্ঞ কমিটি গঠন করে অবিলম্বে তাঁদের সঙ্গে আলোচনা করে প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন নির্ধারণ করতে হবে।

তবে অনশনকারীদের উদ্দেশে হুঁশিয়ারি দিলেও তাঁদের দাবি-দাওয়াগুলি সমাধানের পথ নির্ণয়ের আশ্বাসও দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেন, ছাত্রদের সঙ্গে অবিচার করে অনশনে অংশ নেওয়া যাবে না। ধর্মঘটের সময় যেমন করা হয়, তেমনটা করা যায় কি না, তা কাগজপত্র খতিয়ে দেখে তিনি ব্যবস্থা নেবেন।

অন্য দিকে বলেন, আগামী ২১ জুলাই তৃণমূলের শহিদ দিবস মিটে গেলে কলকাতার নজরুল মঞ্চে রাজ্যের প্রাথমিক শিক্ষকদের নিয়ে একটি বৈঠক হবে। সেখানে নতুন কিছু ঘোষণা হতে পারে। একই সঙ্গে তিনি দাবি করেন, অনশনকারী সংগঠনের সদস্য ছাড়াও অন্যান্য প্রাথমিক শিক্ষক সংগঠনের কাছে তিনি এই পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন। তিনি বিস্ময়ের সুরে বলেন, “আলোচনায় না গিয়ে এ ভাবে রাস্তায় পড়ে থেকে তাঁরা কী পাচ্ছেন”?

এ ব্যাপারে এক অনশনকারী শিক্ষক জানান, রাজ্যের তরফে দৃষ্টি ঘোরানোর জন্য নজরুল মঞ্চের বৈঠকের কথা বলা হচ্ছে। সরকার লিখিত ভাবে প্রতিশ্রুতি না দেওয়া পর্যন্ত তাঁদের অনশন চলবে।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here