কালনা: পর পর দুই কন্যাসন্তান হওয়ায় এক গৃহবধূর উপর চলছিল অকথ্য অত্যাচার। মাসখানেক ধরে বিবাহবিচ্ছেদের জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছিল তাঁকে। বিবাহবিচ্ছেদে রাজি না হওয়ায় শরীরে সিগারেটের ছ্যাঁকা-সহ বিভিন্ন জায়গায় মারধর করা হয়। শেষমেশ পাশবিক অত্যাচারের শিকার কালনার মহিলা সংকটজনক অবস্থায় ভরতি হাসপাতালে।

ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের কালনার বাঘনাপাড়ার বিজার গ্রামে। স্বামীর বিরুদ্ধেই এই নারকীয় অত্যাচারের অভিযোগ উঠেছে। তা হলে এত দিন কেন নীরব ছিলেন মহিলা? ঘটনায় প্রকাশ, এমন ভাবে মারধর করা হতো, যাতে সেই অত্যাচারের কথা যাতে বাইরের কাউকে না জানাতে পারেন। তা ছাড়়া বাইরের কারও সঙ্গে কথা বলতে দেওয়া হতো না তাঁকে।

এ ভাবেই চরম অসুস্থ হয়ে পড়েন ওই গৃহবধূ। সে কথা জানতে পেরে তাঁর বাপের বাড়ির লোকেরা নিজেদের কাছে নিয়ে চলে যান। তার পরই প্রকাশ্যে আসে গত কয়েক মাস ধরে তাঁর উপর কী ধরনের অত্যাচার চালিয়েছে স্বামী। আশংকাজনক অবস্থায় কালনা মহকুমা হাসপাতালে ভরতি ওই মহিলা। গুরুতর জখম মহিলার চিকিৎসা চলছে। বাপের বাড়ি সূত্রে জানা গিয়েছে, ঘটনার পর থানায় অভিযোগ জানিয়েছেন মহিলার বাবা ও ভাই।

জানা গিয়েছে, গত ২০১৬ সালে ডাঙা এলাকার এক তরুণীর সঙ্গে বিয়ে হয় বিজারার বাসিন্দা অভিযুক্ত স্বামী তৌফিক শেখ। পর পর কন্যা সন্তানের জন্ম দেওয়ায় চরম শারীরিক নির্যাতন চালায় অভিযুক্ত। অভিযোগ, গৃহবধূর যৌনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে পাশবিক অত্যাচার চালায় তৌফিক। স্ত্রী-কে এই নিন্দনীয় নির্যাতনের খবর জানাজানি হয়ে যেতেই সে পলাতক।

আরও পড়তে পারেন:

পিছু হটল এসবিআই! অন্তঃসত্ত্বা মহিলাদের নিয়োগ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি প্রত্যাহার

সুপারি মিডিয়া! পেগাসাসের চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট নিয়ে মুখ খুললেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

ইজরায়েলের সঙ্গে প্রতিরক্ষা চুক্তির অংশ হিসাবে পেগাসাস কিনেছিল ভারত, চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট

‘মোদী সরকারের দেশদ্রোহিতা’, পেগাসাস কেনার চাঞ্চল্যকর রিপোর্টে কেন্দ্রকে তোপ রাহুল গান্ধীর

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন