খবর অনলাইন ডেস্ক: বিধানসভা ভোটের সময় প্রায় ‘নিষ্ক্রিয়’ ছিলেন তমলুকের তৃণমূল সাংসদ দিব্যেন্দু অধিকারী। ভোট মিটতেই তাঁর ব্যাপারে দলের জেলা কমিটি রিপোর্ট দিল রাজ্য তৃণমূল নেতৃত্বকে।

সোজা কথা, ভোটের সময় নিষ্ক্রিয় দলীয় সাংসদের বিষয়ে ভোট মিটতেই সক্রিয় হয়েছেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। এমনিতেই ভোটের ফলাফল ঘোষণা হওয়ার পরই বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী ঘনিষ্ঠ তৃণমূল নেতাদের একে-একে ছেঁটে ফেলার কাজ চলছে। এমন পরিস্থিতিতে দিব্য়েন্দুকে নিয়ে সক্রিয় হওয়ার নেপথ্যেও আশ্চর্যজনক কিছু নেই।

Loading videos...

শুভেন্দু, ছোটো ভাই সৌম্যেন্দু এবং অধিকারী পরিবারের কর্তা শিশির অধিকারী গেরুয়া শিবিরে নাম লেখালেও দিব্য়েন্দুর অবস্থান এখনও স্পষ্ট নয়। তাঁকে নিয়ে তৃণমূল নেতৃত্বের মতোই ধোঁয়াশা রয়েছে বিজেপিতেও।

কিন্তু দিব্যেন্দুর বেশ কিছু কার্যকলাপ ভালো ভাবে নিতে পারছেন না জেলা নেতৃত্বের বড়ো একটা অংশ। এ ব্যাপারে তৃণমূলের পূর্ব মেদিনীপুর জেলার সভাপতি সৌমেন মহাপাত্র জানান, দিব্যেন্দু যেহেতু সাংসদ, তাই তাঁকে নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেন এক মাত্র রাজ্য নেতৃত্ব। যদিও একই সঙ্গে তিনি জানান, গত কয়েক মাস ধরে নিষ্ক্রিয় ছিলেন সাংসদ। তা নিয়েই একটি রিপোর্ট জেলা থেকে পাঠানো হয়েছে রাজ্য নেতৃত্বকে।

তবে দলের কাজে দিব্যেন্দু যদি নিষ্ক্রিয় থেকেও থাকেন, তাঁর বেশ কিছু পদক্ষেপে আবার সক্রিয়তার নমুনাও মিলেছে। বিধানসভা ভোট চলাকালীন করোনা মোকাবিলায় হস্তক্ষেপ চেয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়কে চিঠি লিখেছিলেন দিব্যেন্দু। এমনিতে রাজ্যপালের কাছে এ ধরনের আর্জি জানানোয় কোনো বাধা নেই ঠিকই, কিন্তু দলে থেকেও দলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রীর বদলে রাজ্যপালের কাছে এই আর্জি জানানোয় জল্পনা ছড়িয়েছিল।

আবার গত এপ্রিলের শুরুতেই নন্দীগ্রামের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিঘ্নিত হতে পারে, এই আশঙ্কা করে পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসককে চিঠি দিয়েছিলেন দিব্যেন্দু। জেলাশাসককে উপযুক্ত সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের আবেদন জানিয়েছিলেন তিনি।

এর আগে অবশ্য কাঁথিতে নরেন্দ্র মোদীর সভায় দিব্যেন্দুর বিজেপিতে যোগদানের জল্পনা জোরালো হয়েছিল। পূর্ব মেদিনীপুরের এগরায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সভায় শিশির অধিকারীর যোগ দেওয়ার পর থেকেই তা জোরালো হয়। তবে কার্যত নিরাশ করেই দিব্যেন্দু মোদীর সভায় অংশ নেননি। আগামী দিন তাঁর রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নতুন পথে নেয় না কি এ ভাবেই চলতে থাকে, সেটাই দেখার!

আরও পড়তে পারেন: Covid Crisis: রাজ্যকে সাহায্য করুক কেন্দ্র, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি দিলেন অধীররঞ্জন চৌধুরী

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.