নন্দকুমারের ছায়া এবার পর্ব মেদিনীপুরের মহিষাদলে। তৃণমূলকে হারাতে ফের জোট করল বাম-বিজেপি। স্থানীয় সময়বায় সমিতির নির্বাচনে জোট করে তৃণমূলের বিরুদ্ধে প্রার্থী দিল বাম-বিজেপি। তৃণমূল একে অশুভ আঁতাঁত বলে মন্তব্য করেছে।

২০ নভেম্বর মহিষাদলের কেবশপুর জালপাই সমবায় সমিতির নির্বাচন। এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা তুঙ্গে। সমিতিতে মোট ৭৬টি আসন। এর মধ্যে ৬২ আসনে প্রার্থী দিয়েছে বিজেপি। বামেদের প্রার্থী সংখ্যা ১৩ জন। অন্য দিকে তৃণমূল সবকটি আসনেই প্রার্থী দিয়েছে। একটি আসনে জোট প্রার্থী না দেওয়ায় সেটি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করেছে তৃণমূল।

জোটের জোরদার প্রচার

‘সংযুক্ত কৃষক মোর্চা’ নাম দিয়ে জোট তৈরি করেছে বাম-বিজেপি। জোটের তরফে ইতিমধ্যে যৌথ ভাবে প্রচার চালানো হচ্ছে। ইটামগরা ২ অঞ্চলের বিজেপি আহ্বায়ক রামকৃষ্ণ দাস বলেন, ‘এই জোট মানুষের জোট। আমাদের লড়াই তৃমূলের বিরুদ্ধে।’ বিজেপির সঙ্গে প্রচারে দেখা গেল সিপিআই ইটামগরা আঞ্চলিক কমিটির সম্পাদক সুধাংশু বারিক।


আরও পড়ুন: সিবিআইয়ের গ্রুপ ডি তদন্তে অসন্তুষ্ট হাইকোর্ট, সিটে বড়োসড়ো রদবদলের নির্দেশ


নন্দকুমারের মতো কি ফল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে মহিষাদলে?

স্থানীয় বাসিন্দাদের কেউ কেউ বলছেন, নন্দকুমারের পুনরাবৃত্তি নাও হতে পারে। তৃণমূল একে অশুভে আঁতাত বলেই কটাক্ষ করেছে। স্থানীয় এক তৃণমূল নেতার কথায়, ‘মুখে বিজেপি বিরোধীতার কথা বললেও কাজে আসলে রাম-বাম এক। মহিষাদলে জোট প্রার্থী দেওয়াতে তা আরও একবার প্রমাণিত হল।

প্রসঙ্গত, গত ৬ নভেম্বর নন্দকুমারের বহরমপুর কৃষি উন্নয়ন সমিতির নির্বাচনে জোট করে তৃণমূল ধারশায়ী করে বাম-বিজেপি। সেই মেডেলে নির্বাচনে লড়ে মহিষাদলে সাফল্য আসে কি না তা জানা যাবে ২০ নভেম্বর।

সব খবর পড়ুন: khaboronline.com

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন