বাণিজ্য সম্মেলনের জন্য সেজে উঠছে সৈকতনগরী দিঘা

0

দিঘা: বাণিজ্য সম্মেলনকে কেন্দ্র করে সেজে উঠছে দিঘা। সৈকতনগরীতে এখন তার প্রস্তুতি চূড়ান্ত পর্যায়ে। আগামী ১১-১২ ডিসেম্বর এই সম্মেলন হবে।

গত আগস্টে দিঘায় আন্তর্জাতিক মানের কনভেনশন সেন্টারের উদ্বোধন করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানেই এ বার বিশ্ববাংলা বাণিজ্য সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

এই সম্মেলনের জন্য দিঘা এবং তার আশেপাশের অঞ্চলে চলছে সৌন্দর্যায়নের তৎপরতা। রাস্তাঘাট সংস্কার করা হয়েছে। সরানো হয়েছে দিঘার সৈকতের ধারে বসা বেআইনি হকারদেরও। এই বাণিজ্য সম্মেলনকে সফল করতে রাজ্য শিল্পোন্নয়ন নিগমের তরফেও প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

সম্মেলনে শিল্পপতিদের আসার বিষয়টি শিল্পোন্নয়ন নিগম দেখাশোনা করছে। রাজ্য সরকারের বিভিন্ন  দফতর ছাড়াও জেলা প্রশাসন, পুলিশ এবং দিঘা-শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদ সম্মেলনের জন্য দিঘার পরিকাঠামো ও নিরাপত্তার বিষয়ে প্রস্তুতি নিচ্ছে।

তবে কোন কোন শিল্পপতি এই সম্মেলনে আসবেন, সেই ব্যাপারে বিস্তারিত এখনও কিছু জানা যায়নি। হলদিয়া শিল্পাঞ্চলের উন্নয়নের সম্ভাবনা আর প্রস্তাবিত তাজপুর বন্দর গড়ে তোলার পাশাপাশি দিঘা, শঙ্করপুর এবং মন্দারমণিকে পর্যটকদের গন্তব্য হিসেবে তুলে ধরা হবে শিল্পপতিদের কাছে।

দেশ-বিদেশের বহু শিল্পপতি দিঘায় হাজির থাকবেন, এ কথা মেনে নিয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন। তাঁদের থাকা এবং আপ্যায়নের মূল দায়িত্বে রয়েছে রাজ্যের শিল্পোন্নয়ন নিগম। সংস্থার এক আধিকারিক বলেন, ‘‘শিল্পপতি এবং অন্য আমন্ত্রিতদের জন্য ৫০টির মতো আধুনিক সুবিধা যুক্ত হোটেল বুকিং করা হয়েছে। আগামী ১০-১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত ওই হোটেলের সব রুম ইতিমধ্যেই আমরা বুকিং করিয়েছি।’’

ঠিক সেই কারণেই একটি সমস্যাও দেখা দিয়েছে। শিল্পপতিদের জন্য দিঘার বুকিং বাতিল করা হয়েছে পর্যটকদের।

আরও পড়ুন তিন দিনের উপমুখ্যমন্ত্রী হওয়ার ‘পুরস্কার’ পেয়ে গেলেন অজিত পাওয়ার!

বুকিং বাতিলের কথা মেনে নিয়েছেন দিঘা হোটেল মালিক সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক বিপ্রদাস চক্রবর্তী। তিনি বলেন, ‘‘পর্যটকেরা আগামী ১০-১২ ডিসেম্বর আসতে চেয়ে অনেক আগে থেকেই বুকিং করেছিলেন। কিন্তু শিল্প সম্মেলনের কারণে সরকারি ভাবে অনেকগুলি হোটেল বুকিং করা হয়েছে। তাই ওই সব হোটেলে পর্যটকদের বুকিং বাতিল করে তাঁদের টাকা ফেরত দেওয়া হচ্ছে।’’

ডিসেম্বরের এই সময়টা দিঘায় পর্যটকদের আনাগোনা ক্রমশ বাড়ে। সেখানে হঠাৎ করে দিঘার বুকিং বাতিল হওয়ায় হতাশ অনেক পর্যটকই।

তবে দিঘা আর তার আশেপাশের এলাকার বাসিন্দারা মনে করছেন, এই সম্মেলনের ফলে কাঁথি-দিঘা অঞ্চলের সামগ্রিক ভাবে আর্থসামাজিক উন্নয়ন হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.