শুভেন্দুর জেলায় ২ সমবায়ে জয় তৃণমূলের, একটিতে দ্বিতীয় স্থানে সিপিএম

0
TMC And CPIM
প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি

নন্দকুমার: পূর্ব মেদিনীপুরের আরও দুই সমবায়ের নির্বাচনে তৃণমূলের কাছে পর্যুদস্ত হল বিরোধীরা। রবিবার নন্দকুমারের শ্যামসুন্দরপুর কৃষি উন্নয়ন সমবায় সমিতি ও পাঁশকুড়ার মঙ্গলধারী ইউনাইটেড কৃষি উন্নয়ন সমিতির ডিরেক্টর নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন তৃণমূল সমর্থিত প্রার্থীরা।

শ্যামসুন্দরপুর সমবায় সমিতির ১২ টির মধ্যে ১০ টি আসনে জয়লাভ করেছে তৃণমূল। বাকি দু’টিতে জয় পেয়েছে বিজেপি। প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ছিলেন তৃণমূল, বাম-বিজেপি জোট ও নির্দলের দু’জন-সহ মোট ২৬ জন প্রার্থী। ৯৯০ জন ভোটারের মধ্যে ভোট পড়ে ৯০ শতাংশ।

পাঁশকুড়ায় মঙ্গলধারী ইউনাইটেড সমবায় কৃষি উন্নয়ন সমিতির নির্বাচনেও তৃণমূলের জয়। দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে সিপিএম। সমবায়ের মোট আসন ১২ টি। যার মধ্যে ৭টি তৃণমূল, ৪ টি সিপিএম এবং ১টি বিজেপি পেয়েছে। এখানে মোট ৩৮ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ৭৫০ ভোটারের মধ্যে ভোট পড়ে ৬৯৫ টি।

কিছু দিন আগেই শুভেন্দুর জেলায় নন্দকুমারের বহরমপুর কো-অপারেটিভ ক্রেডিট সোসাইটি লিমিটেডের সব আসনেই জিতেছিল বাম-বিজেপি জোট। যা পরে ‘নন্দকুমার মডেল’ নামে সাড়া ফেলে রাজ্য-রাজনীতিতে। পাঁশকুড়ায় মঙ্গলধারী ইউনাইটেড সমবায় কৃষি উন্নয়ন সমিতির জয়ের পরেও বাম, বিজেপি হাত মিলিয়ে লড়াই করেছে বলে অভিযোগ করেন তৃণমূল নেতৃত্ব। 

ফলাফল ঘোষণার পর স্থানীয় তৃণমূল নেতা সুজিত রায় বলেন, “বাম, বিজেপির মধ্যে একটা আঁতাঁত তৈরি হয়েছিল। কিন্তু মঙ্গলধারীর মানুষ সেটা হতে দেয়নি।” অন্য দিকে, বিজেপি নেতা আশিষ মান্না বলেন, “বামেরা কী করেছে জানি না, তবে বিজেপি দল আত্মনির্ভর। আমাদের কারও সঙ্গে জোট করতে লাগে না। আমরা নিজেদের শক্তিতেই লড়েছি।” সিপিএমের রাজ্য নেতৃত্ব অবশ্য আগেই জানিয়ে দিয়েছেন, নীতি বড়। তাই বিজেপির সঙ্গে জোট করা যাবে না। প্রয়োজনে নিচুতলায় জোটে উদ্যোগীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ারও হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়।

একই দিনে দুই সমবায়ে জিতে কার্যত উচ্ছ্বসিত তৃণমূল শিবির। আগামী ৪ ডিসেম্বর তমলুকের খারুইয়ে সমবায় নির্বাচন রয়েছে। সেই নির্বাচনেও কী ফলাফল হয় সেদিকেও তাকিয়ে রয়েছে শাসক, বিরোধী উভয় শিবির।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন