এই শর্তটা পূরণ না করলে আর যাওয়া যাবে না দিঘা, মন্দারমণি, তাজপুরে!

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: করোনা সংক্রমণ প্রায় নিম্নমুখী হয়ে গিয়েছে। গোটা দেশের মতো পশ্চিমবঙ্গেও জনজীবন স্বাভাবিক হয়ে গিয়েছে প্রায়। এই পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষের একটা বড়ো অংশই বেড়াতে বেরিয়ে পড়ছেন।

কিছু কিছু ক্ষেত্রে পর্যটকদের বেপরোয়া হয়ে ওঠার ছবিও ধরা পড়ছে। দিঘা, মন্দারমণিতে যাওয়া বেশির ভাগ পর্যটককেই স্বাস্থ্যবিধি মানতে দেখা যাচ্ছে না। ফলে সংক্রমণ ছড়ানোর একটা আশঙ্কা করছে স্থানীয় প্রশাসন। এই পরিস্থিতিতে সোমবার কঠোর সিদ্ধান্ত নিল কাঁথি মহকুমা প্রশাসন।

Shyamsundar

মহকুমাশাসকের স্বাক্ষরিত একটি নির্দেশিকা এ দিন জারি করা হয়েছে। নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, ওই মহকুমার অন্তর্গত হোটেল এবং রিসর্টগুলি এখন থেকে পর্যটকদের দু’টি টিকার শংসাপত্র অথবা সর্বোচ্চ ৪৮ ঘণ্টা আগে নেওয়া কোভিড টেস্টের নেগেটিভ রিপোর্ট দেখে তবেই তাঁদের হোটেলে প্রবেশ করতে দেবে।

দিঘা, মন্দারমণি, তাজপুর, শঙ্করপুর, অর্থাৎ পূর্ব মেদিনীপুরের গোটা উপকূলটাই কাঁথি মহকুমার অন্তর্গত। ফলত, এখন থেকে এই সব জায়গায় যেতে হলে পর্যটকদের কোভিড টেস্ট করানো বাধ্যতামূলক। আরটিপিসিআরের পাশাপাশি র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট রিপোর্ট থাকলেও চলবে। তবে টিকার দু’টি ডোজ নিলেও কাজ হবে বলে জানানো হয়েছে।

এ ছাড়া আরও একগুচ্ছ নির্দেশিকা হোটেলগুলিকে দেওয়া হয়েছে। পর্যটকরা যদি স্বাস্থ্যবিধি কঠোর ভাবে না পালন করে, তা হলে তার দায় হোটেল কর্তৃপক্ষের ওপরেও বর্তাবে বলা জানানো হয়েছে। এমন হলে সংশ্লিষ্ট হোটেলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নেওয়া হতে পারে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

কিছু দিন আগেই শান্তিনিকেতন, তারাপীঠে ঢোকার ক্ষেত্রে এমন নির্দেশিকা জারি করেছে বীরভূম জেলা প্রশাসন। এ বার এল কাঁথির মহকুমার তরফ থেকে।

এখানে একটা প্রশ্ন থেকে যায়। কোভিড টিকার একটা ডোজও যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষজ্ঞরা অনেকেই বলেছেন, একটা ডোজেই করোনাকে দূরে রাখা সম্ভব। এই পরিস্থিতিতে কেরলের মতো রাজ্যও টিকার একটা ডোজের শংসাপত্রের ভিত্তিতে পর্যটকদের জন্য রাজ্যের দরজা খুলে দিয়েছে।

এই আবহে পশ্চিমবঙ্গে দু’টো টিকার নিয়ম করার যুক্তি কতটা, সেটাই প্রশ্ন। এতে এক দিকে যেমন সাধারণ মানুষ ভ্রমণের জন্য উৎসাহ হারাতে পারে, তেমনই পর্যটন ব্যবসাও ফের ধাক্কা খেতে পারে।

আরও পড়তে পারেন ভেস্তে গেল ছিনতাইয়ের পরিকল্পনা, লাটাগুড়িতে পর্যটকদের হাতে ধরা পড়ল ‘জ্যান্ত পেত্নি’

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন