West Bengal Cabinet: অধিকারীদের দাপট কমতেই রাজ্যের মন্ত্রীসভায় ঠাঁই হল চার বারের বিধায়ক অখিল গিরির

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ২০০১ সালে প্রথম বার পূর্ব মেদিনীপুরের রামনগর কেন্দ্র থেকে তৃণমূলের টিকিটে জিতেছিলেন তিনি। এর পর ২০০৬ সালে হেরে গেলেও ২০১১, ২০১৬-এর পর ২০২১-এ ওই কেন্দ্র থেকে জিতে বিধায়ক হয়েছেন অধিকারী পরিবারের ঘোর বিরোধী হিসেবে পরিচিত অখিল গিরি। তবে এ বারই প্রথম বার রাজ্য মন্ত্রীসভায় ঠাঁই পেয়েছেন অখিলবাবু।

পূর্ব মেদিনীপুরে অধিকারীদের সামাজ্র্যের অনেকটাই পতন হয়েছে। বিজেপির টিকিটে শুভেন্দু অধিকারী নন্দীগ্রাম থেকে জিতলেও আশেপাশের অঞ্চলে বিজেপি খুব বেশি প্রভাব বিস্তার করতে পারেনি। বরং অধিকারীদের ছাড়াও পূর্ব মেদিনীপুরে তৃণমূল ভালো ফল করতে পারে, সেটাই দেখা গিয়েছে। এই ভালো ফলের নেপথ্যে অনেকটাই ছিলেন অখিল গিরি।

Loading videos...

মন্ত্রীসভায় ঠাঁই পাওয়ার পর প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে তাঁর আক্রমণের লক্ষ্য সেই অধিকারী পরিবারই। বিজেপির পাশাপাশি তাঁর লড়াইটা ছিল অধিকারী পরিবারের বিরুদ্ধেও, এমনটাই বলছেন অখিল। সাফল্য মেলায় দৃশ্যতই খুশি অখিল।

অধিকারী পরিবারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে অখিল বলছেন, ‘‘এ বার অন্য রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যেমন লড়াই ছিল, তেমনই অধিকারীদের বিরুদ্ধেও আমার লড়াই ছিল। ওরা যে ভাবে দলকে পরিচালনা করছিল, আমার লড়াইটা ছিল তারই বিরুদ্ধে। আমার ভাবতে ভালো লাগছে, অধিকারীরা চলে যাওয়ার পরেও, আমরা জায়গাটা অনেকটা ধরে রাখতে পেরেছি।’’

জেলায় বিজেপিকে রুখে দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েই অখিল বলছেন, ‘‘তমলুকের থেকে কাঁথি লোকসভা কেন্দ্রের বেশি আসনে আমরা পিছিয়ে আছি। আমার প্রথম লড়াই হবে, যে আসনগুলি আমরা হারিয়েছি সেই জায়গাগুলিতে পুনরায় ফিরে আসা।’’ চেষ্টার ফল ফলবে বলেও আশাবাদী অখিল।

উল্লেখ্য, রামনগর থেকে অখিল প্রথম বার তৃণমূলের টিকিটে জিতেছিলেন ২০০১ সালে। এর পর ২০০৬ সালে সিপিএমের স্বদেশরঞ্জন দাসের কাছে হেরে যান তিনি। তবে ২০১১ সালে তাঁর প্রত্যাবর্তন ঘটে। তার পর লাগাতার ২০১৬ এবং গত বিধানসভা নির্বাচনেও রামনগর কেন্দ্র থেকে জেতেন অখিল। উল্লেখ্য, ২০০৬-এর সিপিএম বিধায়ক স্বদেশরঞ্জনই এ বার অখিলবাবুর বিরুদ্ধে বিজেপির টিকিটে প্রার্থী হয়েছিলেন।

আরও পড়তে পারেন Bengal Cabinet: এক-তৃতীয়াংশ নতুন মুখ, আজ পৌনে ১১টায় শপথ রাজ্যের নতুন মন্ত্রীসভার

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.